উপজেলা

অল্প কথা,গল্প নয়

29views

সততা, মহানুভবতা, বিচক্ষণতা, সৌজন্যতা, ব্যক্তিত্ব, মানবতা, বিবেকবান, আদর্শবান, নীতিবান, গ্রহণযোগ্য ইত্যাদি আরো কতো না শব্দের সাথে আমরা পরিচিত।প্রাত্যহিক জীবনে এ শব্দগুলো আমাদের চিরচেনা এবং শব্দগুলো গুণবাচক শব্দ হিসেবে রীতিমত চর্চা ও ব্যবহার করি। একজন মানুষের মধ্যে এই সব গুণাবলী যদি বিদ্যমান থাকে তখন তাকে অাদর্শবান সুপুরুষ বা মহাপুরুষ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এক্ষেত্রে টেকনাফ উপজেলা সম্মানিত নির্বাহী অফিসার জনাব মোঃ রবিউল হাসান মহোদয়কে সরাসরি এই সব গুণের অধিকারী বলে বড় বা ধন্য করছি না। তবে একজন মানুষ কতটুকু হৃদয়বান, নীতিবান ও মানবতার অধিকারী তার ক্ষুদ্র নমুনা তুলে ধরার অল্প প্রয়াস মাত্র।

আমার এক পুরাতন সহকর্মী বন্ধুর বোন মাদকাসক্ত স্বামী কর্তৃক দীর্ঘদিন ধরে নির্যাতনের স্বীকার হয়ে আসছে। বন্ধুটি বিষয়টি স্হানীয়ভাবে সুরাহা করার পাশাপাশি ভগ্নীপতিকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়। পরবর্তীতে তিনি আমার কাছে পরামর্শ চান। আমি বললাম, আমিতো একজন সামান্য শিক্ষক। আমি আপনার বোনের জন্য কী করতে পারব? তখন সহকর্মীটি বলল,আপনার যদি ছোট বোন এই ধরনের সমস্যায় পড়ত তাহলে আপনি কী কিছু করতেন না! বন্ধুটির এমন আবেগপ্রবণ কথা শুনে আমি হতভম্ব হয়ে যায়। তখন উপজলা নির্বাহী অফিসার মহোদয়ের কথা মনে পড়ল। একদিন আমাদের শিক্ষকদের এক প্রশিক্ষণে মহোদয় বলেছিলেন, আপনাদের নিজেরা বা পরিবারের অন্য কেউ বা কোন আত্মীয়-স্বজন যদি কোন জটিল সমস্যায় পড়েন তাহলে আমার সাথে যোগাযোগ করবেন। আমি সমস্যা সমাধানে যথাসাধ্য চেষ্টা করব। তখন বন্ধুটিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একখানা দরখাস্ত লিখতে বলি। তিনি দরখাস্ত লিখে নিয়ে আসেন। আমি তখন আমার বন্ধুটি ও তার বোনকে নিয়ে সম্মানিত উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্যারের কাছে গেলাম। স্যার তখন খুব বেশি ব্যস্ত ছিলেন। সকাল থেকে দাপ্তরিক কাজের পাশাপাশি এনজিও প্রতিনিধি,উন্নয়ন প্রকল্পের টেন্ডার ড্র, বনায়নের সুবিধাভোগীদের চেক বিতরণসহ নানা কাজের ফলে দম নেয়ার সময় পাচ্ছিছিলেন না। এতকিছুর মাঝেও স্যার আমাকে দেখে বললেন, কেমন আছেন,কী খবর, কোন সমস্যা। আমি বললাম স্যার ভালো আছি এবং আমার বন্ধুর বোনের সমস্যার কথা বলে দরখাস্তটি স্যারের হাতে দিলাম। স্যার তখন দরখাস্তটি একবার পড়ে ফরওয়ার্ডিং দিলেন ওসি বরাবর। যেমন আশ্বাস দিয়েছিলেন তেমন তার প্রতিফলন দেখলাম। শত ব্যস্ততা মাঝেও সুন্দর, সাবলীল, স্বাভাবিক, এমনিতে স্যার দেখতে খুব সুদর্শন তারউপর সুন্দর হাস্যোজ্জ্বল ভঙ্গিতে আচরণ আমি বিমোহিত।
একজন নির্যাযিত মহিলাকে মাদকাসক্ত স্বামীর নির্যাতন থেকে বাঁচাতে স্যারের তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ ছিল দৃষ্টান্ত ও প্রশংসনীয়। স্যারকে জানাই স্যালুট। অবশেষে বলি, ভালো থাকুন স্যার এবং আপনার মতো আদর্শবান,ন্যায়বান অভিভাবক প্রতিটি উপজেলায় দরকার।
লেখক-সাইফুল ইসলাম,সহকারী শিক্ষক।যোগাযোগ -০১৮১৮০৮৩৫৩৪

Leave a Response