1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :

‘অ-বাপরে আর হাঁদি ন পারির’

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ২২ আগস্ট, ২০১৫
  • ১৭ দেখা হয়েছে

গোলাম আজম খান,কক্সবাজার :
মায়ের দু’চোখ বেয়ে অশ্রু গড়িয়ে পরে এ অশ্রু যেন বাধ মানে না, এ কন্না কিছুতেই থামে না, থামবার নয়। একমাত্র বুকের মানিককে হারিয়ে মা আমেনা বেগম ও বাবা জাফর আহমদ পাগল প্রায়। তাদের আর্তনাদে এলাকার আকাশ-বাতাস ভারি হয়ে উঠেছে। আদরের একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে পাগলের মত এদিক-সেদিক ছুটাছিুটি করছে মা। ১১ আগষ্ট টেকনাফ লেঙ্গুরবিল রোড বাড়ির সামনে থেকে সন্ধায় অজ্ঞাত লোকজন কর্তৃক অপহ্নত টেকনাফ উপজেলা চেয়ারম্যানের ছেলে মোস্তাক আহাম্মদকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর থেকে নিখোঁজ সে। থানা পুলিশ, ডিবি অফিস, র‌্যাবের অফিসে কোথাও মোস্তাকের সন্ধান পাওয়া যায়নি। আইনশৃংখলা বাহিনীর কাছে মোস্তাকের বিষয়ে এমন কোন তথ্য নেই বলে দাবী করা হয়। স্বজনরা শত মিথ্যা আশ্বাস দিয়েও থামাতে পারছে না মায়ের কান্না। তার খোঁজে স্বজনদের বুকফাটা আহাজারি। অন্যদিকে কয়েকমাস আগে বিয়ে করেছিল মোস্তাক। সে নববধু জয়নব রাজিয়া শিমুও স্বামীর জন্য পাগল প্রায়। তিনি জানান, স্বামীর জন্য কাইন্তে কাইন্তে তার চোখের পানি হুগাইয়া গেছে। আর ছেলেকে হন্য হয়ে খোঁজছেন পিতা টেকনাফ উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর আহমদ। ‘ অ বাপরে আর হাঁদি ন পারির।হাঁইনতে হাইনতে চক্ষের পানিও শুকাইয়া গেছে।হইলজাডা ছিঁড়া যারগই’ হৃদয়স্পর্শী কথাগুলো বলছেন নিখোঁজ ছেলের ছবি হাতে নিয়ে আর্তনাদ করছে মা আমেনা বেগম। তিনি জানতে চান কোথায় কার কাছে গেলে তার ছেলেকে পাওয়া যাবে। মাস্তাকের মা অভিযোগ করে বলেন, আইনশৃংখলা বাহিনীর পরিচয় দিয়ে আমার ছেলেকে অপহরণ করেছে। সে আইনশৃংখলা বাহিনীর হাতেই রয়েছে। সুতরাং তার একমাত্র ছেলেকে বুকে ফিরিয়ে দেয়ার দাবী জানান।
মোস্তাক নিখোঁজ হওয়ার খবর শুনে সর্বস্তরের নারী-পুরুষের বিভিন্ন ব্যানার ও পোষ্টার নিয়ে অক্ষত অবস্থায় ফিরিয়ে দেয়ার দাবীতে ১৬ আগষ্ট টেকনাফ ষ্টেশন চত্বরে মানববন্ধনও করেছে। সংবাদ সম্মেলন করেছে মোস্তাকের পরিবার।
অপহৃত মোস্তাককে অক্ষত অবস্থায় ফিরিয়ে দেবার দাবী জানিয়ে নিজ বাড়ীতে সংবাদ সম্মেলন করে মোস্তাকের স্ত্রী জয়নব রাজিয়া শিমু। তার স্বামীকে উদ্ধারে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি আহবান জানান।
একই দাবীতে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে স্মারক লিপি প্রদান করা হয়।
মোস্তাক নিখোঁজের পর উখিয়া-টেকনাফের সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট একে আহমদ হোসেন, কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগের এক নেতাসহ বেশ কয়েজন নেতা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, পুলিশ সুপারের কার্যালয়, র‌্যাব, গোয়েন্দা সংস্থাসহ সংশ্লিষ্ট সব দপ্তরে দৌঁড়ঝাপ করেছেন। কিন্তু সব দপ্তর থেকেই নেতিবাচক মনোভাব প্রকাশের পর ঢাকায় ছুটে যান এমপি আবদুর রহমান বদি ও জাফর আহমদ চেয়ারম্যান। তারা ধর্ণা দিচ্ছেন আইনশৃংখলা বাহিনীর উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের কাছে। কয়েকজন প্রভাবশালী নেতার সাথে সাক্ষাতের পর তারা স্বরাষ্টমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সাথেও দেখা করেছেন বলে জানা গেছে। ‘মোস্তাককে কারা নিয়েছে বলে মনে করেন এমন প্রশ্নের জবাবে তার পিতা টেকনাফ উপজেলা চেয়্রাম্যান জাফর আহমদ বলেন, ‘র‌্যাবই মোস্তাককে নিয়েছে। এছাড়া আর কারো পক্ষে এটি সম্ভব নয়।’
টেকনাফ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক সাংসদ অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘গুম-খুন ভাল লক্ষণ নয়।
উল্লেখ্য, গত ১১ আগষ্ট মঙ্গলবার নিজ বাসার সামনে থেকে আইন শৃংখলা বাহিনীর পরিচয় দিয়ে টেকনাফ উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন সম্পাদক মোস্তাক আহমদকে অপহরণ করে। এর ১০দিন অতিবাহিত হলেও তাকে এখনো পাওয়া যায়নি।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com