1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

ঈদকে সামনে রেখে কক্সবাজারে বেড়েছে চুরি-ছিনতাই : পুলিশের পক্ষ থেকে কঠোর নিরাপত্তার ঘোষনা

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ১১ জুলাই, ২০১৫
  • ৯০ দেখা হয়েছে

ছৈয়দ আলম :
ঈদ উপলক্ষে শনিবার সন্ধ্যায় কক্সবাজার শহরের নিউ মার্কেট এলাকায় কেনাকাটা করতে আসেন উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের নুরুল কবিরসহ তার পরিবার।  নিউ মার্কেট থেকে তার দুই ছেলে ফাহিম ও ফাহাদ এর জন্য পোষাক কিনে রাস্তায় বেড়োতেই তার সাথে থাকা পার্সটি নিয়ে দৌড় দিলো দুই ছিনতাইকারী। প্রথমে কবির অন্যদের সহযোগিতা পেতে চিৎকার পরে নিজেই ছুটলো ছিনতাইকারীদের পিছনে। তিন্তু তাতে কোন লাভ হলো না। কারন ততক্ষনে ওই ক্রেতার সর্বস্ব নিয়ে ছিনতাইকারী হাওয়া হয়ে গেছে। ফলে কেনাকাটা করার জন্য নিয়ে আসা ১২ হাজার টাকা ও দুইটি মোবাইল ফোন হারিয়ে বাধ্য হয়ে বারি ফিরে যেতে হলো ওই পরিবারকে।

কেবল নিউ মার্কেট নয় ঈদকে কেন্দ্র করে কক্সবাজার শহরের বিভিন্ন স্থানে গত কয়েকদিন ধরে এমন ঘটনা বেড়েই চলছে। হঠাৎ করেই শহরে ছিনতাইকারীরা মাথাচড়া দিয়ে উঠেছে। আর এ ছিনতাই বেশী শহরের ঈদ বাজার, লালদীঘিরপাড় ও বাসস্টান্ডে সংগঠিত হবে বলে সাধারন মানুষের ধারনা। অপরদিকে শহরের মধ্যে ও আশপাশ এলাকায় চোরচক্রও মাঠে নেমেছে বেরোয়াভাবে।
কক্সবাজার শহরের মামুন নামের এক ব্যবসায়ী বলেন, সংঘবদ্ধ চোরেরদল প্রতিনিয়ত মার্কেটের আশপাশ এলাকায় ও সাধারন ক্রেতাদের বিভিন্নভাবে হয়রানি ও ছিনতাই করার জন্য ছদ্ধবেশে চলাফেরা করে। কিন্তু সম্প্রতি মার্কেটের দোকান মালিক ও পুলিশের সার্বিক সহযোগিতা করার ফলে অনেকটাই পার পায় সাধারন মানুষ।
যদিও পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে ঈদকে কেন্দ্র করে তারা ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যাস্থা নিয়েছে। শহরের কয়েকটি বাসস্টান্ড ও মার্কেটসহ দশটি পয়েন্টে থেকে ঈদের তিনদিন পর পর্যন্ত স্থায়ীভাবে পুলিশ ফোর্স রাখা হবে। এছাড়া শহরে স্পেশাল টহল পুলিশের গাড়ি থাকবে যারা সার্বক্ষনিক সাধারন মানুষের নিরাপত্তা দিবে। অপরদিকে ট্রাফিক বিভাগ ঈদকে কেন্দ্র করে যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ব্যবস্থা নিয়েছে। ট্রাফিক বিভাগের চারটি টিম মাঠে থাকবে যারা যাত্রীদের ভোগান্তি দুর করবে।
ট্রাফিক বিভাগের ট্রাফিক ইনচার্জ আবদুর রউফ বলেন, ঈদের পূর্বে ও পরে তাদের কয়েকটি টিম মাঠে থাকবে যাতে যাত্রিদের কোন দুর্ভোগে পরতে না হয়। একই সাথে কক্সবাজার জেলা প্রসাশনের সাথে সভা হয়েছে তারাও সার্বক্ষনিক দায়িত্ব পালন করবে। তাছাড়া ঈদের পূর্বে তাদের পুলিশ সদস্যরা স্থায়ীভাবে পাহারায় থাকবে যাতে যাত্রীদের দুভোগে পরতে না হয়।
কক্সবাজার জেলা পুলিশ সুপার শ্যামল কুমার নাথ বলেন, ঈদকে কেন্দ্র করে যাতে কোন ধরনের চুরি ছিনতাইয়ের ঘটনা না ঘটে সে জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে পুলিশের টহল গাড়ির সাথে আরো ৫টি স্পেশালভাবে যোগ করা হয়েছে। ঈদের এক সপ্তাহ পূর্বে আরো ১০টি টহল গাড়ি এর সাথে যোগ হবে। তাছাড়া ঈদে নারীরটানে ফেরা মানুষের নিরাপত্তা দিতে বাসস্টান্ড ও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্নস্থানে স্থায়ীভাবে পুলিশ সদস্যরা থাকবে।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com