1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
শিরোনাম :
“প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিকতায় বিশ্বমানের পর্যটন নগরী হবে কক্সবাজার”: সচিব হেলালুদ্দীন ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড, আইনের খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদন শহরের পূজা মন্ডপগুলোতে দর্শনার্থী ও পূজারিদের ভিড় অশুভ শক্তির বিনাশই দুর্গোৎসবের বৈশিষ্ট্য-জেলা প্রশাসক প্রেসিডেন্টস কাপে চ্যাম্পিয়ন মাহমুদউল্লাহ একাদশ ঈদগাঁওতে এবার সীমিত পরিসরে শারদীয় দূর্গাৎসব উদযাপিত সরাসরি ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে চবি’তে শিক্ষার্থী ভর্তির সিদ্ধান্ত সেন্টমার্টিনে আটকেপড়া চার শতাধিক পর্যটক ফিরলেন রোহিঙ্গাদের ফেরাতে গ্রিসের সহযোগিতা চাইলেন রাষ্ট্রদূত আন্দাজে ব্যাট ঘোরায় না গেইল : টেন্ডুলকার

ঈদগাঁওতে প্রায় দীর্ঘবছর ধরে গজে বসেছে ২৫ হাজার রোহিঙ্গা

  • আপডেটের সময় : সোমবার, ৩১ আগস্ট, ২০১৫
  • ৭ দেখা হয়েছে

এম আবু হেনা সাগর, ঈদগাঁও :
কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁওতে রোহিঙ্গাদের উৎপাত ক্রমশঃ বাড়ছে। বৃহত্তর ছয় ইউনিয়নের প্রত্যন্ত গ্রামগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় বিগত দীর্ঘবছর ধরে সরকারী খাস জমি দখল করে গজে বসবাস করছে প্রায় ২৫ হাজার রোহিঙ্গা। অনুপ্রবেশকারী নাগরিকদের মধ্যে বাংলা ও মার্মা ভাষার লোক রয়েছে। ভাষা ও নৃতাত্ত্বিক ভাবে রোহিঙ্গা নাগরিকদের সাথে এতদঞ্চলের জনগোষ্টির মিল থাকায় সহজেই এরা বৃহত্তর ঈদগাঁওর জনসমাজের সাথে মিশে গেছে। জানা যায়, রোহিঙ্গারা কক্সবাজারের বিশেষ করে ঈদগাঁওর ছয় ইউনিয়নের নানা গ্রাম-গঞ্জ কিংবা পাড়া-পল্লীর ভাড়া কলোনীতে অবস্থান করছে। এসব নাগরিকদের কোন কর্মসংস্থান না থাকায় তারা সরকারী সংরক্ষিত রিজার্ভ বাগান দখল ও বৃক্ষ নিধনে মরিয়া হয়ে উঠেছে। তাছাড়া রোহিঙ্গা মহিলাদের প্রজনন স্বাস্থ্য বিষয়ক জ্ঞান অজ্ঞতার দরুন জনসংখ্যা বাড়ছে আপেক্ষিক গতিতে। তারা এ দেশে এসে শুধু ডাল-পালা বিস্তার করে ক্ষান্ত থাকেনি, সারা দেশে ছড়িয়ে দিয়েছে নানা ধরনের অপরাধ কর্মকান্ড। সচেতন মহলের মতে, বৃহত্তর ঈদগাঁওর শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ধ্বংসের পথে ধাবিত হওয়ার কারণের মধ্যে অন্যতম একটি কারণ রোহিঙ্গা জনসংখ্যা বৃদ্ধি। রোহিঙ্গারা এদেশে অবৈধ ভাবে অনুপ্রবেশ করে নানা অপরাধ-অপকর্ম সংঘটিত করে সুযোগ বুঝে নির্বিঘেœ বার্মায় চলে যায়। এরই প্রভাব বিশেষ করে বর্তমানে কক্সবাজারসহ আশপাশ এলাকায় ছড়িয়ে ভাইরাস আকারে প্রতি উপজেলায় ছড়িয়ে পড়েছে। তারই অংশ হিসাবে ঈদগাঁও’র বিভিন্ন ইউনিয়নে প্রায় ২৫ হাজার রোহিঙ্গা বাস করছে বলে স্থানীয়দের সূত্রে প্রকাশ। স্থানীয়দের মতে সংখ্যাগরিষ্ট বার্মাইয়া পরিবার যে সব এলাকায় রয়েছে তৎমধ্যে ঈদগাঁও উত্তর শিয়াপাড়া, কানিয়ার ছড়া, মধ্যম শিয়াপাড়া, কোনা পাড়া, দরগাহ পাড়া, ভাদীতলা, হাসিনা পাহাড়, মেহের ঘোনা, চাঁন্দের ঘোনা,কালির ছড়া, ভুতিয়া পাড়া, জঙ্গল মাছুয়াখালী, ইসলামাবাদের আউলিয়াবাদ, করাচী পাহাড়া, পূর্ব হাজী পাড়া, গজালিয়া এবং ইসলামপুরের পূর্ব নাপিতখালী, নতুন অফিস, বাঁশকাটা, জওন্নাকাটা, ভিলিজার পাড়া, বামন কাটা, পোকখালী ইউনিয়নের গোমাতলী, চৌফলদন্ডী খামার পাড়া, পশ্চিম পাড়া সহ ঈদগাঁও বাজারের আনাচে-কানাচে সর্বত্র ছড়িয়ে ছিটিয়ে বার্মাইয়া পরিবার অবস্থান করছে। এ অবস্থান রোধে প্রশাসনের কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ সময়ের দাবী হয়ে উঠেছেন বলে মনে করেন এলাকার সুধী সমাজ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com