1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :
শিরোনাম :
টেকনাফে ১ কেজি ক্রিষ্টাল মেথসহ রোহিঙ্গা আটক সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের ঈদ সামগ্রি ও খাবার ‍দিল স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বেটার টুগেদার বিডি বেগম খালেদা জিয়া’র রোগমুক্তি কামনায় কক্সবাজারে দোয়া মাহফিল করোনায় আরও ৪৫ প্রাণহানি, শনাক্ত ১২৮৫ কলাতলী থেকে ১ লক্ষ ২০ হাজার ইয়াবাসহ মা ও ছেলে আটক দেশে করোনার ভারতীয় ধরন শনাক্ত: আইইডিসিআর আমরা একে অপরের অত্যন্ত আপন: শেখ হাসিনাকে মমতা আব্দুল মোনাফের বাবার মৃত্যুতে টেকনাফ সমিতি ইউএই’র শোক প্রকাশ খলিলুর রহমান সিভাসু’র অফিসার সমিতির সভাপতি মনোনীত হওয়ায় টেকনাফ সমিতি ইউএই’র  অভিনন্দন রমজান উপলক্ষে বাংলাদেশকে ৫০ টন খাদ্য সহায়তা দিয়েছে আমিরাত সরকার

ঈদগাঁও-ঈদগড়-বাইশারীর লক্ষাধিক জনগোষ্ঠির যোগাযোগ সড়ক এখন মরণ ফাঁদ

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৫
  • ৩৫ দেখা হয়েছে

এম আবু হেনা সাগর, ঈদগাঁও :
কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁও, রামু উপজেলার ঈদগড় আর নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী সড়ক প্রায় লক্ষাধিক জনগণের সড়ক পথে যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম। এ সড়কটি দীর্ঘদিন সংস্কারের অভাবে খানা খন্দকে পরিণত হয়েছে। সড়কের দুই পাশ ভেঙ্গে পিচের কার্পেটিং ক্ষয় হয়ে ধুলোয় মিশে একাকার। তাছাড়া রাস্তার দু’পার্শ্বে মাটি না থাকায় এবং পিচ, কংক্রিট ও ইট উঠে যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় প্রতিদিন ছোট-বড় বাস, সিএনজি টেক্সি ও ব্যাটারী চালিত অটো রিক্সা, মোটর সাইকেল চলাচল করছে। ঈদগাঁও থেকে ঈদগড় হয়ে বাইশারী পর্যন্ত প্রায় ২২ কিঃ মিঃ রাস্তার অনেক জায়গায় বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। তাছাড়া ভোমরিয়াঘোনা থেকে পানেরছড়া ঢালা পর্যন্ত রাস্তার শোচনীয় অবস্থা। বিকল্প কোন রাস্তা না থাকায় প্রতিদিন স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থী, চাকুরীজীবি, ব্যবসায়ী ও অন্যান্য পেশার মানুষ অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে গমন করছে। বিশেষ করে রোগী ও প্রসূতী মহিলাদের জন্য খুবই বিপদজনক। ব্যস্ততম এ সড়কটির কোন কোন স্থানে ভেঙ্গে মাত্র ৫/৬ ফুট রাস্তা টিকে আছে। ফলে মালবাহী ট্রাক, বাসের কারনে যেমন যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে তেমনি ক্রসিং করতে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে ছোট যানবাহনগুলো। এতে মূল্যবান সময়ের অপচয়সহ হতাহত হচ্ছে সাধারণ মানুষ। আর যে কোন মুহুর্তে শিকার হতে পারে প্রাণহানির মত বড় ধরণের দুর্ঘটনার। এ সড়কটির অবস্থা এতই বেহাল যে, প্রতিদিন সিএনজি, অটো কিংবা মোটর সাইকেল উল্টে যাওয়ার ঘটনা যেন নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার। এ চলাচল রাস্তাটি যেন এক মরণ ফাঁদ। একটি দেশে আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে যোগাযোগ ব্যবস্থার গুরুত্ব অপরিসীম। সে সাথে ঈদগাঁও-পালপাড়া ও রামু উপজেলার ঈদগড় যাতায়াত সড়ক এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়ে পড়েছে। যাতে করে দৈনিক ২০ সহস্রাধিক লোকজন চলাচলে চরমভাবে দূর্ভোগ আর দূর্গতিতে পড়েছে। আরো জানা যায়, গেল চার দফা বন্যায় লন্ডভন্ড হয়ে যাওয়া ঈদগাঁও পালপাড়া-ঈদগড় যোগাযোগ সড়ক এখনো সংস্কারের মুখ দেখেনি। বিগত বন্যার প্রায় ৫/৬ মাস পার হলেও যাতায়াত রাস্তা সংস্কারের বিষয়ে কর্তৃপক্ষের টনক নড়েনি। যার ফলে বিশাল এলাকার লোকজনকে নানা কষ্ট আর দূর্ভোগের মধ্য দিয়ে প্রতিনিয়ত কাজকর্মে আসা-যাওয়া করতে হচ্ছে। এ কষ্ট কখনো ভুলার নয়। আরো জানা যায়, ঈদগাঁও ঈদগড় সড়কের ভোমরিয়াঘোনা পয়েন্টে বন্যার পানিতে ভেসে যাওয়া চলাচল রাস্তা খালে পরিণত হয়ে পড়ায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরাসহ এলাকার অসহায় লোকজন প্রতিনিয়ত বিপাকে পড়েছে। এমনকি ঐ সড়কে চলাচলরত হরেক রকমের যানবাহন চলাচল করতে দারুনভাবে হিমশিম খাচ্ছে। তার পাশাপাশি লোকজনের চলাচলের সুবিধার্থে স্থানীয় সচেতন লোকজন ভোমরিয়াঘোনা পয়েন্টে সাঁকো নির্মাণ করে চলাচল সহজতর করে দেয়। ঐ সাঁকো দিয়ে কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ এলাকার মা-বোনেরা অনেক কষ্টে পারাপার হতে দেখা যাচ্ছে। এছাড়াও ঈদগাঁও-পালপাড়া-ঈদগড় সড়ক দিয়ে লোকজন কানিয়ারছড়া, গজালিয়া, শিয়া পাড়া, ভোমরিয়াঘোনা, চৌধুরী পাড়া, পালপাড়ার বিভিন্ন এলাকাসহ নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারীর প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে লোকজন কোন না কোনভাবে যাতায়াত করে থাকে। ঈদগড়-ঈদগাঁও-বাইশারী সড়কে যেখানে চলাচলের জন্য সময় দরকার মাত্র ৫০ মিনিট সেখানে সময় ব্যয় হচ্ছে প্রায় দেড় ঘন্টা। অন্যদিকে ভাঙ্গা রাস্তাদিয়ে চলাচল করতে গিয়ে সাধারণ যাত্রীদের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় জখমও হচ্ছে প্রায় সময়। অপরদিকে ভোমরিয়াঘোনার স্থানীয় এমইউপির মতে, প্রতিনিয়ত এ সড়ক দিয়ে ২০ সহস্রাধিকেরও বেশি লোকজন যাতায়াত করে থাকে। কিন্তু এতদিনেও কর্তৃপক্ষ রাস্তা পুনঃসংস্কারের বিষয় নিয়েও এখনো ঘুম না ভাঙ্গায় দুঃখ প্রকাশ করেন। আবার চলাচলরত পথচারীর মতে, দূর্ভাগ্যজনকভাবে সেখানে অত্র এলাকার সাধারণ মানুষ এ ছোয়া থেকে বঞ্চিত। সরকারের উর্ধ্বতন মহলের কাছে সাধারণ মানুষের প্রাণের দাবী, অবিলম্বে এ রাস্তাটি সংস্কারের কাজ শুরু করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক। অন্যথায় মরণ দশায় ভুগবে এলাকাবাসী।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com