1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

ঈদগড়ে নদীগর্ভে বিলীন হচ্ছে বসত বাড়ী

  • আপডেটের সময় : বুধবার, ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৫
  • ২০ দেখা হয়েছে

এম আবু হেনা সাগর, ঈদগাঁও :
রামু উপজেলার পাহাড়ী ইউনিয়ন খ্যাত ঈদগড়ের বিভিন্ন এলাকায় বড়খাল ও রেনুরছড়া নদীর পার্শ্ববর্তী দু’কূলে ঘরবাড়ী বিগত বর্ষার ভাঙ্গণের কবলে পড়ে নদীতে বিলীন হতে চলেছে। জানা যায়, ঈদগড় ইউনিয়নের ধুমছাকাটাস্থ রেনুরছড়া নদীতে এবং পূর্ব রাজঘাটস্থ বড়খালে উল্লেখিত এলাকার বসবাসকৃত অনেক ঘরবাড়ী ইতিপূর্বে নদীতে বিলীন হয়েছে এবং বর্তমানেও বিলীন হতে চলেছে। তথ্য মতে, পূর্ব রাজঘাটা এলাকায় বসবাসকৃত ফেরদৌস, বাদল, মিন্টু, সুমন সহ আরো অনেকের ঘরবাড়ী ইতিপূর্বে ঈদগড় খালে বিলীন হয়েছে। বর্তমানে উল্লেখিত এলাকার নুরুল ইসলাম, নুরুল আলম, জসিম খলিফার বাড়ী সহ আশ পাশের আরো অনেকের বাড়ীঘর নদীতে প্রায় বিলীনের পথে। অপর দিকে ধুমছাকাটাস্থ রেনুরছড়া নদীতে ইতিপূর্বে অছিউর রহমান সিকদার, ইউনুছ ও জাফর আলমের বাড়ী সহ আরো অনেকের বাড়ী বিলীন হয়েছে। বর্তমানে ঈদগড় শ্রমিকলীগ নেতা জাফর ইকবালের ভাই আবুল কালামের বাড়ীটি নদী গর্ভে বিলীন হতে চলেছে। বিলীন হওয়া ঘরবাড়ীর লোকজন বর্তমানে অনেকেই সরকার কর্তৃক নির্মিত আশ্রয়ন প্রকল্পে আশ্রয় নিয়েছেন। আবার অনেকেই রিজার্ভ বন ভূমিতে ঘরবাড়ী গড়ে তোলেছে। অনেকেই এখনো পর্যন্ত ঘরবাড়ী নির্মাণ করতে না পেরে বিভিন্ন জায়গায় আশ্রয়ের জন্য চেষ্টা চালাচ্ছে।  অপরদিকে বর্তমানে বিলীন হতে চলা ঘরবাড়ীর লোকজন ব্যাপক ঝূঁকিপূর্ণ অবস্থায় বসবাস করছে। যে কোন অবস্থায় নদী গর্ভে তাদের ঘরবাড়ী ও বিলীন হয়ে সর্বশান্ত হওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করেন তারা। এ ব্যাপারে ঈদগড়ের ইউপি সদস্য বেলাল উদ্দিনের মতে, বিলীন হওয়া ঘরবাড়ী গুলো রক্ষার্থে নানা চেষ্টা চালিয়ে ছিল। কিন্তু প্রকৃতির নিয়তিকে মেনে নিতে হয়েছে। বর্তমানে আমরা তাদেরকে আশ্রয়ন প্রকল্প সহ বিভিন্ন জায়গায় আশ্রয় দিয়েছি। অপর দিকে ঈদগড় ধুমছাকাটা এলাকার মাওলানা ছৈয়দুল হকের মতে, ইতিপূর্বে নানা ঘরবাড়ী নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। এ ব্যাপারে তিনি প্রশাসনের জরুরী ভিত্তিতে সহযোগিতা কামনা করেন। উল্লেখ্য যে, বহু ঘরবাড়ী নদীতে বিলীন হয়ে গেলেও স্থায়ী ভাবে এসব বাড়ীগুলো রক্ষার্থে এখনো পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি। ভূক্তভোগী নুরুল আলম ও জসিম উদ্দিন খলিফা- তাদের ঘরবাড়ী গুলো রক্ষার্থে সরকারের সহযোগিতা কামনা করছেন। এ ব্যাপারে ঈদগড় ইউপি চেয়ারম্যানের মতে, ভাঙ্গন গুলো রোধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com