1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

উখিয়ার গ্রামীণ সড়ক যোগাযোগ তছনছ

  • আপডেটের সময় : রবিবার, ৫ জুলাই, ২০১৫
  • ৮২ দেখা হয়েছে
SAMSUNG CAMERA PICTURES

উখিয়া প্রতিনিধি :
সম্প্রতি সময়ে টানা বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলের পানিতে গ্রামীণ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙ্গে তছনছ হয়ে পড়েছে। গ্রামীণ যোগাযোগ ব্যবস্থার একমাত্র অবলম্বন এসব উপসড়কগুলো ভেঙ্গে যাওয়ার কারণে এলাকার সাধারণ মানুষকে পোহাতে হচ্ছে অসহনীয় দুর্ভোগ। পাশাপাশি স্ব স্ব এলাকায় উৎপাদিত কৃষি পণ্য সামগ্রী বাজারজাত করতে সমস্যা হওয়ায় বৃহত্তর গ্রামীণ জনগোষ্ঠীকে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হতে হচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে।
জানা গেছে, গত কয়েক দিন আগে লাগাতার ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলের পানির স্রোতে উখিয়া উপজেলার ৫ ইউনিয়নের অধিকাংশ আঞ্চলিক সড়ক ও উপসড়ক ভেঙ্গে তছনছ হয়ে গেছে। উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের থাইংখালী হয়ে তেলখোলা-মোছারখোলা প্রায় ৩ কিলোমিটার সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন সহ দুইটি কালভার্ট ভেঙ্গে যাওয়ার কারণে ওইসব এলাকার প্রায় ৫ হাজারেরও অধিক নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীকে অসহনীয় দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। স্থানীয় হেডম্যান চৈপুছিং চাকমা জানান, সড়ক পথ ঠিক থাকলে চাঁদের গাড়ি চলাচল করত। সম্প্রতি ভারী বর্ষণে ৩ কিলোমিটার এলাকার বিভিন্ন অংশে ভেঙ্গে যাওয়ার কারণে পায়ে হেঁটেও যাতায়াত করা কষ্টকর হচ্ছে। স্থানীয় ইউ,পি, সদস্য মানিক চাকমা এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, সড়কটি যত দ্রুত সম্ভব মেরামত করার জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট আবেদন করা হয়েছে।
এ ছাড়াও দরগাহবিল-হাতিমোরা সড়ক ৫ কিলোমিটার, জাদিমুরা হয়ে হরিণমারা-আমিনপাড়া ৩ কিলোমিটার, উখিয়া বাজার হয়ে দোছরী পাহাড়িকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ৫ কিলোমিটার সড়কের বিভিন্ন অংশে ভেঙ্গে গিয়ে ফসলী জমিতে পরিণত হওয়ার কারণে এসব এলাকার মানুষ গৃহবন্দী হয়ে পড়েছে। পালংখালী হতে আনজুমানপাড়া বিজিবি ক্যাম্প সড়ক, থাইংখালী থেকে রহমতের বিল সড়ক, রতœাপালং ইউনিয়নের তেলীপাড়া সড়ক, সাদৃকাটা সড়ক, তুতুরবিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সড়ক, হলদিয়াপালং ইউনিয়নের বড়বিল সড়ক ও থিমছড়ি সড়ক সহ বিভিন্ন ইউনিয়নের প্রায় অর্ধ শতাধিক ব্রিক সলিং ও কাবিখা কর্মসূচীর আওতায় নির্মিত সড়ক পথ ভেঙ্গে গেছে। এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা বাকি বিল¬াহ জানান, যে সমস্ত গ্রামীণ সড়ক ভেঙ্গে গেছে ওই সমস্ত সড়কগুলোর তালিকা করে প্রাক্কলিত ব্যয় বরাদ্দ সহ প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য স্থানীয় চেয়ারম্যানকে অনুরোধ করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিলে¬¬¬াল বিশ্বাস জানান, বন্যায় ও জলাবদ্ধতায় ক্ষতিগ্রস্থ আঞ্চলিক ও গ্রামীণ সড়ক পথ মেরামতের আওতায় আনার জন্য বিশেষ বরাদ্দ ছাড়াও বিভিন্ন তহবিল থেকে অতিরিক্ত বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com