1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :

উখিয়ায় কৃষকদের অতিরিক্ত দামে সার বিক্রির অভিযোগ

  • আপডেটের সময় : বুধবার, ৫ আগস্ট, ২০১৫
  • ৩৫ দেখা হয়েছে

ওমর ফারুক ইমরান, উখিয়া :
উখিয়া উপজেলার কয়েকটি স্থানে কৃষকদের কাছ থেকে সারের অতিরিক্ত দাম আদায় করার অভিযোগ উঠেছে। সরকারী আদেশ ও জেলা সার মনিটরিং কমিটির নির্দেশ অমান্য করে বিসিআইসি সার ডিলারগণ ইচ্ছাকৃত ভাবে দাম বেশি নেওয়ায় কৃষকদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। সচেতন কৃষকরা অতিরিক্ত দাম আদায়ের বিষয়টি তদন্ত করার জন্য সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।উখিয়া কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা যায়, চলতি আমন মৌসুমে ৯ হাজার হেক্টর জমিতে চাষাবাদের জন্য লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।  প্রান্থিক চাষীদের ন্যায্য মূল্যে সার ও কৃষি উপকরণ সরবরাহ করার জন্য কৃষি মন্ত্রণালয় ব্যাপক উদ্যোগ গ্রহণ করে। এ কর্মসূচির আলোকে জুলাই মাসে ইউরিয়া সার ৪৫০ মেট্টিক টন, টিএসপি সার ১২০ মেট্টিক টন, ডিএমপি ৭০ মেট্টিক টন ও এমওপি সার ৭০ মেট্টিক টন বরাদ্দ দেওয়া হয়। এছাড়াও  আগস্ট মাসের ইউরিয়া সার ৪৭০ মেট্টিক টন, টিএসপি সার ৯০ মেট্টিক টন, ডিএমপি সার ৬০ মেট্টিক টন ও এমওপি সার ৬০ মেট্টিক টন বরাদ্দ পাওয়া গেছে বলে কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের এক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছে। এক তথ্যে জানা গেছে জুলাই মাসের বরাদ্দকৃত সারের মধ্যে মাত্র ১৬০ মেট্টিক টন সার চট্টগ্রাম ফার্টিলাইজার কারখানা হতে উত্তোলন করলেও ডিলারগণ অবশিষ্ট  সার এখনও উত্তোলন করেনি। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, প্রান্তিক চাষীদের ন্যায্য মূল্যে সার সরবরাহ ও কৃষি উপকরণ বিতরণ করার জন্য কৃষি মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে জেলা সার মনিটরিং কমিটি মূল্য তালিকা নির্ধারণ করে। তৎমধ্যে ইউরিয়া সার প্রতি কেজি ১৬ টাকা, টিএসপি সার ২২  টাকা, এমওপি সার ১৫ টাকা ও ডিএমপি সার ২৫ টাকা। সরকারী বরাদ্দকৃত সার বিক্রয় করার জন্য উখিয়ায় ১০ জন বিসি আই সি নিযুক্ত সার ডিলার এবং উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক প্রতিটি ইউনিয়নের ওয়ার্ড ভিত্তিক ৪৫জন খুঁচরা সার ডিলার রয়েছে। সচেতন কৃষকরা অভিযোগ করে বলেন, উখিয়া সদর, কোটবাজার, মরিচ্যা বাজার সহ উপজেলার বিভিন্ন হাঁট বাজারে কতিপয় ডিলার ও খুচরা ডিলারগণ জেলা সার মনিটরিং কমিটির নির্দেশকে অমান্য করে কৃষকদের কাছ থেকে অতিরিক্ত দাম আদায় করছে। গুরুত্বর অভিযোগ উঠেছে টিএসপি সার ২২ টাকা স্থলে প্রতি কেজি ৩০ টাকা বিক্রি করছে। কোন কৃষক অতিরিক্ত দাম আদায়ের প্রতিবাদ করলে ডিলারগণ সার নাই বলে সাফ জবাব দেয়। তাই বাধ্য হয়ে অতিরিক্ত দাম দিয়ে কৃষকদের টিএসপি সার ক্রয় করতে হয়। এক ডিলার জানান, বরাদ্দকৃত টিএসপি সার আগেই শেষ হয়ে গেছে। চট্টগ্রাম শহর থেকে খোলাবাজার হতে উচ্চমূল্য দিয়ে ক্রয় করতে হয় বিধায় সরকারী দামের চেয়ে একটু বেশি দামে বিক্রি করতে হয়। কৃষকদের অভিযোগ ডিলারগণ কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি  করে কারসাজির মাধ্যমে টিএসপি সারের মূল্য অতিরিক্ত আদায় করছে।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আ.হ.ম শাহরিয়ার জানান বলেন, নির্ধারিত দামের চেয়ে টিএসপি সারের মূল্য অতিরিক্ত নেওয়ার কোন সুযোগ নেই। বিষয়টি তদারকি করার জন্য সদ্য যোগদানকৃত উপজেলা কৃষি অফিসার সুমন শীলকে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com