1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

কক্সবাজারের সাড়ে ৫ লাখ শিক্ষার্থীর পাঠ্যপুস্তক উৎসব ২ জানুয়ারি

  • আপডেটের সময় : বুধবার, ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৫
  • ২৩ দেখা হয়েছে

কক্সবাজারের প্রায় সাড়ে ৫ লাখ শিক্ষার্থীর জন্য সাড়ে ৫৯ লাখ নতুন বই আসছে। ইতিমধ্যে প্রাথমিকে ৫২% আর মাধ্যমিকে ৮৫% বই চলে এসেছে। চলতি মাসের মধ্যে বাকি বই চলে আসবে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্টরা। একই সাথে ২ জানুয়ারি নতুন বই সবার হাতে পৌছে দিয়ে বই উৎসবে মাতবে বলেও জানান তারা।
কক্সবাজার জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, জেলায় ২০১৬ বছরের জন্য ৩ লাখ ৭৩ হাজার ৫০৬ জন শিক্ষার্থীদের জন্য ১৮ লাখ ২৮ হাজার ৩৫ টি বইয়ের চাহিদা দেওয়া হয়েছে।
এরমধ্যে সদর উপজেলায় ৩ লাখ ১৩ হাজার ৩৫০ টি, রামু উপজেলাতে ২লাখ ১৪ হাজার ৫০০ টি, চকরিয়াতে ৩ লাখ ৮৩ হাজার ৭০০টি, পেকুয়াতে ১ লাখ ৫৭ হাজার ৮০০ টি, কুতুবদিয়া উপজেলায় ১ লাখ ১৯ হাজার ৪০০টি, মহেশখালীতে ২ লাখ ৮৫ হাজার, উখিয়াতে ১ লাখ ৮৩ হাজার ৩০০টি, টেকনাফে ১ লাখ ৭০ হাজার ৯৮৫ টি নতুন বইয়ের চাহিদা রয়েছে। তবে এর মধ্যে পুরু জেলাতে ৯ লাখ ৫৫ হাজার ৪১৬ টি বই এসেছে। যা ৫২% বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্টরা।
জেলায় ৩৮৪ টি সরকারি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ছাড়াও মোট ৯০৭ টি স্কুলে বই দেওয়া হবে বলে জানান তারা। এদিকে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে নতুন বইয়ের চাহিদা ৪১ লাখ ১৯ হাজার ৪৭১ টি, প্রায় ২ লাখ শিক্ষার্থীর মাঝে বই বিতরণ করার লক্ষ্যমাত্রা আছে তাদের। ইতিমধ্যে ৮৫% বই চলে এসেছে বলে জানিয়েছে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের প্রধান সহকারি মারমা বাবু।
জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ জসিম উদ্দিন বলেন, প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে বই উৎসব পালন করা হবে। এবছর ১ জানুয়ারি শুক্রবার হওয়ায় ২ জানুয়ারি বই উৎসব পালন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সে হিসাবে আমাদেরও প্রস্তুতি নিয়েছি। আসা করছি বাকি বইগুলো খুব দ্রুত চলে আসবে এবং জেলার সকল শিক্ষার্থীর হাতে নতুন বই তুলে দেওয়া হবে। তিনি বলেন বর্তমান সরকার সফলভাবে প্রতি বছর শিক্ষার্থীদের হাতে সম্পূর্র্ণ বিনামুল্যে বই তুলে দিয়ে সারা বিশ্বে নজির সৃষ্টি করেছে। এর ফলে দেশে শিক্ষার হার বেড়েছে, মানুষ লেখাপড়ার প্রতি আগ্রহ বেড়েছে। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এবিএম ছিদ্দিকুর রহমান বলেন, জেলার প্রাথমিক স্থরের কোন শিশু বই না পেয়ে থাকবে না। সবার হাতে নতুন বই পৌছে দেয়া হবে।
জানুয়ারির ২ তারিখ সবাই নতুন বই হাতে পাবে। এ ব্যাপারে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক অজিত দাশ বলেন, সারা দেশের সকল শিক্ষার্থীদের সম্পূর্র্ণ বিনা মুল্যে বই বিতরণ করা এটা কোন ছোট বিষয় না। এটা সরকারের অনেক বড় সাহসিকতার বিষয়। খুব বেশি শিক্ষা বিষয়ে আন্তরিক না হলে সরকার এ ধরনের পদক্ষেপ নিতে পারে না।
জেলা সুজনের সভাপতি প্রফেসর এম এ বারী বলেন, বর্তমান সরকার শুধু বই দেওয়া নয় এক সাথে সারা দেশের বেশির ভাগ রেজিস্ট্রাট প্রাথমিক বিদ্যালয়কে সরকারিকরন করা ছাড়া প্রতিটি উপজেলায় একটি করে সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় আর কলেজ করার পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে। তাছাড়া শিক্ষকদের জন্য বেতন ভাতা বৃদ্ধি করে সার্বজনিনভাবে শিক্ষাকে অনেক বেশি পৃষ্ঠপোষকতা করেছে। যার ফলে দেশে শিক্ষার মান বেড়েছে।
এ ব্যাপারে এক প্রতিক্রিয়া কক্সবাজার শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুজিবুর রহমান বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাই হচ্ছে একমাত্র দেশপ্রেমিক সরকার প্রধান। তিনি নিজেকে দেশের উন্নয়নে উজাড় করে দিয়েছেন, তাই শিক্ষাছাড়া কোন জাতি মাথা তুলে দাঁড়াতে পারবে না সেটা জেনে তিনি শিক্ষাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দেশের জন্য কাজ করছেন। তিনি বলেন, অনেক উন্নত দেশ শিক্ষা খাতে এত বেশি ভূর্তকি দেয় কিনা সন্দেহ আছে। অথচ আমাদের চরম সীমাবদ্ধতা তার পরও শিক্ষাকে প্রধান করে উন্নয়নের টার্গেট ঠিক করা হয়েছে সে হিসাবে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এতে দেশের মানুষের সহযোগিতা দরকার।

এই বিভাগের আরও খবর

  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com