কক্সবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদের প্রধান জামাত সকাল ৮ টায়

ছৈয়দ আলম : পবিত্র ঈদুল আজহা সোমবার। ত্যাগের মহিমায় চিরভাস্বর এক ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতা। মুসলমানদের অন্যতম বৃহৎ উৎসব। মহান আল্লাহ রাব্বুল আল-আমিনের সন্তুষ্টি অর্জনের লক্ষ্যে পশু কোরবানি দেয়া ঈদুল আজহার মূল বৈশিষ্ট্য। জামাতে ঈদের নামাজ আদায় করাও আরেকটি প্রধান করণীয়। ইতোমধ্যেই পুরো কক্সবাজার জেলায় কোরবানির পশু কেনার পর্বও শেষ করেছেন অনেকেই। অন্যান্য প্রস্তুতিও শেষ পর্যায়ে। এখন শুধু নির্ধারিত সময়ের অপেক্ষা।
এ উপলক্ষে পর্যটন নগরী কক্সবাজারে ঈদুল আযহা উদযাপনে সর্বাত্মক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায় কক্সবাজার কেন্দ্রিয় ঈদগাহ ময়দানে। এতে ইমামতি করবেন কেন্দ্রিয় জামে মসজিদের ভারপ্রাপ্ত খতিব মাওলানা মুফতি সোলাইমান কাসেমী। আর ঈদের জামাতকে ঘিরে নেয়া হয়েছে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা। বিভিন্ন স্থানে আলোকসজ্জা, বিভিন্ন সড়কে রং বেরংয়ের ব্যানার ফেস্টুন টাঙ্গানো এবং হাসপাতাল ও কারাগারে বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।
জেলা প্রশাসন ও কক্সবাজার পৌরসভার আয়োজনে প্রধান ঈদ জামাতে বৃষ্টি হলেও যদি মাঠে পানি না জমে তাহলে ঈদের জামাত আদায় করা যাবে বলে জানান পৌর কর্তৃপক্ষ। এছাড়া পৌর এলাকায় পশুর বর্জ্য যত্রতত্র না ফেলে নির্ধারিত স্থানে রেখে দিলে তা খুব দ্রুত পৌরসভার পরিচ্ছন্ন কর্মীরা নিয়ে আসবে বলে জানা গেছে।
কক্সবাজার পৌরসভার প্রশাসনিক কর্মকর্তা খোরশেদ আলম জানান, ১২ আগস্ট সোমবার পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে ইতোমধ্যে কক্সবাজার পৌরসভা যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। কক্সবাজারে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮ টায় কেন্দ্রিয় ঈদগাহ ময়দানে।
তিনি বলেন, ইতোমধ্যে ঈদ জামাতের যাবতীয় কাজ শেষ হয়েছে। উপরে ত্রিপল লাগানো হয়েছে যাতে বৃষ্টি হলেও নামাজ আদায় করা যায়। এবারেও ঈদের প্রধান জামাতে একসাথে প্রায় ১৫/২০ হাজার ধর্মপ্রাণ মুসলমান ঈদের নামাজ আদায় করতে পারবেন।
কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান বলেন, পৌরসভার পক্ষ থেকে যথারীতি ঈদের জামাতের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। আশা করছি পৌরবাসী সকাল ৮ টার আগেই ঈদের মাঠে চলে আসবেন। তিনি বলেন, আগের চেয়ে এবার পৌরসভার ব্যবস্থাপনায় পৌর এলাকার ৩৮ পয়েন্টে নির্ধারিত স্থানে পশু জবাই করা হবে। আমরা সেসব নির্ধারিত স্থানকে পশু জবাইয়ের উপযুক্ত করে তৈরি করেছি এবং সেখানে পৌরসভার পক্ষ থেকে সহযোগিতাও দেওয়া হচ্ছে। এতে করে শহর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন এবং রোগ জীবাণুমুক্ত থাকা যাবে। এছাড়াও যারা নিজ বাসা-বাড়িতে কোরবানীর পশু জবাই করবে তাদের পশুর বর্জ্য যেখানে সেখানে না ফেলে নির্ধারিত স্থানে রাখার আহবান করছি। সব বর্জ্য দুপুরের মধ্যেই পৌরসভার পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা নিয়ে আসবে বলে তিনি জানান। কোনভাবেই পশুর নাড়িভুড়ি নালাতে না ফেলার অনুরোধ করেন তিনি।

উপদেষ্টা সম্পাদক : হাসানুর রশীদ
সম্পাদক ও প্রকাশক : মুহাম্মদ শাহজাহান

নির্বাহী সম্পাদক : ছৈয়দ আলম

যোগাযোগ : ইয়াছির ভিলা, ২য় তলা শহিদ সরণী, কক্সবাজার। মোবাইল নং : ০১৮১৯-০৩৬৪৬০

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য অধিদপ্তরে নিবন্ধনের জন্য আবেদিত

Email:coxsbazaralo@gmail.com