1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
শিরোনাম :
ঈদগাঁওতে অবৈধ গ্যাস সিলিন্ডারের গুদামে ভয়াবহ বিস্ফোরণ : দগ্ধ ২ করোনার অ্যান্টিজেন পরীক্ষায় প্রস্তুত ১০ জেলা লালদিঘী পাড় মসজিদের শুভ উদ্বোধন ও ২৬ জন মুচিকে স্থায়ী দোকান দিলো কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ইসলামাবাদে হাতির পালের বসতবাড়ী ভাংচুর: চরম আতংকে এলাকাবাসী হিমছড়ি পাহাড়ের সিঁড়ি থেকে পড়ে কিশোরের মৃত্যু প্রথম ধাপে ভাসানচরে পৌঁছেছে ১৬৪২ রোহিঙ্গা একদিনে আরও ২৪ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২২৫২ কর্ণফুলী নদী হতে রোহিঙ্গা ভর্তি ৭টি জাহাজ ভাসানচরের পথে করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে আসাদুজ্জামান নূর করোনা ভ্যাকসিনকে ‌‘বিশ্ব জনপণ্য’ বিবেচনার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

কক্সবাজার যুব প্রশিক্ষন কেন্দ্রে প্রশিক্ষনার্থী ভর্তিতে ব্যাপক অনিয়ম

  • আপডেটের সময় : রবিবার, ৫ জুলাই, ২০১৫
  • ২৬৭ দেখা হয়েছে

durniti1বিশেষ প্রতিবেদক : কক্সবাজার যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কোর্সে প্রশিক্ষনার্থী ভর্তির ক্ষেত্রে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ভর্তি সংক্রান্ত সরকারী নীতিমালা উপেক্ষা করে মাথাপিছু মোটা অঙ্কের ঘুষ নিয়ে প্রশিক্ষনার্থী ভর্তির ফলে বাদ পড়ছেন যোগ্য অনেক প্রার্থী। আর এতে প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে প্রশিক্ষনের মান । জানা যায়, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের অধীন বেকার যুবকদের কারিগরী প্রশিক্ষন প্রকল্পের অধীন ৬ মাস মেয়াদী উক্ত কোর্সের আসন সংখ্যা ৪০ জন। কিন্তু প্রশিক্ষন নিতে আগ্রহী ছাত্র ছাত্রীর সংখ্যা বেশী হওয়ায় অত্র কোর্সে প্রতিযোগিতা মূলকভাবে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করা হয়। ভর্তির সরকারি নিয়মানুযায়ী পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর প্রথমে লিখিত পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়। লিখিত পরীক্ষায় ফলাফল প্রকাশের পর আসন সংখ্যার দেড়গুণ (৬০ জন) প্রশিক্ষনার্থীকে মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহনের অনুমোদন দেয়া হয়। এরপর লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার ফলাফল মিলিয়ে ৪০ জনের মেধাতালিকা প্রকাশ করা হয় ও অবশিষ্ট পরীক্ষার্থীদের আপেক্ষমান তালিকায় রাখা হয়। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তালিকা থেকে ভর্তি না হলে আপেক্ষমান তালিকা থেকে ক্রমানুসারে ভর্তির নিয়ম রয়েছে। কিন্তু ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেন, চলমান ভর্তি প্রক্রিয়ায় এসব নিয়মাবলী অনুসরন করা হয়নি, বরং মাথাপিছু ৫/৬ হাজার টাকা উৎকোচ গ্রহন করে উক্ত কোর্সে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করেছেন যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ছানাউল্লাহ। মৌখিক পরীক্ষার সময় জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার প্রতিনিধি ও জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি উপস্থিত থাকার নিয়ম থাকলেও তাদেরেকে জানানো হয়নি। সরকারি নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে এভাবে টাকার বিনিময়ে প্রশিক্ষনার্থী ভর্তি করার ফলে প্রকৃত মেধাবীরা উক্ত প্রশিক্ষন থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ও প্রশিক্ষনের মান প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে। কিন্তু উপরোক্ত অভিযোগ অস্বীকার করে উপ-পরিচালক ছানাউল্লাহ বলেন, সরকারি নিয়মানুসারেই প্রশিক্ষনার্থী ভর্তি করা হচ্ছে। মাথাপিছু ঘুষ নেয়ার কথাও অস্বীকার করেন তিনি।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com