কাতারকে হারিয়ে শেষ আট-এ আর্জেন্টিনা

কক্সবাজার আলো ডেস্ক

বাঁচা-মরার লড়াইয়ে প্রতিপক্ষের ভুলে ম্যাচের শুরুতেই আর্জেন্টিনাকে এগিয়ে দিলেন লাউতারো মার্তিনেস। শেষ দিকে ব্যবধান দ্বিগুণ করলেন সের্হিও আগুয়েরো। কাতারকে হারিয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হিসেবে কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার-ফাইনালে উঠেছে প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ চ্যাম্পিয়নরা।
পোর্তো আলেগ্রেতে রোববার স্থানীয় সময় বিকালে ‘বি’ গ্রুপের শেষ রাউন্ডে ২-০ গোলে জিতেছে আর্জেন্টিনা।

ম্যাচের তৃতীয় মিনিটে দারুণ দুটি সুযোগ পায় আর্জেন্টিনা। কিন্তু ২০ গজ দূর থেকে মেসি উড়িয়ে মারার খানিক পর ডি-বক্সে ফাঁকায় বল পেয়ে লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নেন মার্তিনেস।

পরের মিনিটেই প্রতিপক্ষের হাস্যকর ভুলের সুযোগ কাজে লাগিয়ে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। নিজেদের ডি-বক্সে থেকে বল ক্লিয়ার করতে গিয়ে কাতারের এক ডিফেন্ডার বল তুলে দেন মার্তিনেসের পায়ে। নিচু শটে জাল খুঁজে নিতে কোনো ভুল করেননি ইন্টার মিলানের এই ফরোয়ার্ড।

২২তম মিনিটে মেসির বাড়ানো বল ডি-বক্সে পেয়ে লক্ষ্যভ্রষ্ট শটে সমর্থকদের হতাশ করেন ম্যানচেস্টার সিটির ফরোয়ার্ড সের্হিও আগুয়েরো। ৩৯তম মিনিটে মুহূর্তের ব্যবধানে আরও দুবার সুযোগ নষ্ট করে আর্জেন্টিনার হতাশা বাড়ান মার্তিনেস। গোলরক্ষক বরাবর হেড করার কয়েক সেকেন্ড পর ছোট ডি-বক্সের মুখে বলে পা লাগাতে ব্যর্থ হন তিনি।

প্রথমার্ধের শেষ দিকে প্রতিপক্ষের রক্ষণে কয়েকবার ভীতি ছড়ানো কাতার বিরতির ঠিক আগে সমতায় ফিরতে পারত। কিন্তু ডিফেন্ডার বাসামের ফ্রি-কিক পোস্টে লাগলে বেঁচে যায় আর্জেন্টিনা।

৬০তম মিনিটে আবারও সুযোগ নষ্টের হতাশা যোগ হয় আর্জেন্টিনা শিবিরে। মেসির পাস ডি-বক্সে ফাঁকায় পেয়ে আগুয়েরোর নেওয়া শট একজনের পায়ে লেগে বাইরে চলে যায়। ৭২তম মিনিটে এবার মেসি নিজেই পেনাল্টি স্পটের কাছে ফাঁকায় বল পেয়ে অবিশ্বাস্য ভাবে উড়িয়ে মারেন।

৮২তম মিনিটে দিবালার পাস ধরে ডি-বক্সে ঢুকে কোনাকুনি শটে দূরের পোস্ট দিয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন আগুয়েরো।

উপদেষ্টা সম্পাদক : হাসানুর রশীদ
সম্পাদক ও প্রকাশক : মুহাম্মদ শাহজাহান

নির্বাহী সম্পাদক : ছৈয়দ আলম

যোগাযোগ : ইয়াছির ভিলা, ২য় তলা শহিদ সরণী, কক্সবাজার। মোবাইল নং : ০১৮১৯-০৩৬৪৬০

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য অধিদপ্তরে নিবন্ধনের জন্য আবেদিত

Email:coxsbazaralo@gmail.com