1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :

খুনখারাবি ধর্ষণ বন্ধে জাগ্রত করুন নিজের বিবেক…..

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ১ অক্টোবর, ২০১৬
  • ১০ দেখা হয়েছে

 

খুনখারাবি বন্ধ করার সর্বপ্রথম কাজ হচ্ছে দেশ থেকে
মাদকদ্রব্য ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। একটু খেয়াল করলেই
দেখা যাবে নামিদামি লোক বা বড় কোনো নেতাকে
সরাসরি খুনখারাবি করতে দেখা যায় না।
নেশাগ্রস্তদের দিয়েই খুনের মতো জঘন্য কাজ খুব সহজে
করা সম্ভব। হয়তো তাদের দিয়ে কেউ করাচ্ছে নয়তো
তারা নিজেরাই নেশার টাকা মেলানোর প্রয়োজনে
ছিনতাই, চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসী এবং মানুষ খুন করতেও
দ্বিধাবোধ করে না। প্রধান কারণগুলোর মধ্যে আরেকটি
হচ্ছে জুয়া। জুয়ার টাকা জোগাড় করতে ছোটখাটো চুরি
ডাকাতি থেকেই সৃষ্টি হয় মানুষ খুনের মতো বড় অপরাধ।নেশাগ্রস্থ মাতালদের দ্বারা ধর্ষিত হচ্ছে ১০/১২ বছরের কন্যা শিশুটিও। বর্তমানে অভিভাবকরা হচ্ছেন অসচেতন,অনেক পিতামাতা সন্তানদের শুধু শাষনই করেন তবে বন্ধুসুলভ আচরন করতে খুব একটা দেখা যায়না। নামিদামি প্রাইভেট স্কুল,কলেজে সন্তানদের ভর্তি করিয়ে দিয়েই মনে করেন বাবা মা হিসেবে সকল দায়িত্বকর্তব্য শেষ।তারপরের গল্পটা ঠিক আলালের ঘরের দুলালদের যেমনটা হওয়ার কথা তেমনটাই হবে। দেশে খুনখারাবি বন্ধ করতে সবচেয়ে বেশী অবদান রাখতে পারবে পুলিশ
প্রশাসন। রূপকথার গল্পের মতো পুলিশ হবে একদম সৎ,
কোনো অবৈধ কাজের পার্সেনটিজ নয় বরং যে যার
জায়গাতে থেকে দুর্নীতি করছে প্রত্যককে নিজ
দায়িত্বে খুঁজে বের করে উপযুক্ত শাস্তি দিতে হবে।
যদি সে কোনো বড় নেতাও হয়ে থাকে তবুও তাকে
শাস্তি দিতে হবে। জুয়ার আসর কোথায় বসছে, কোন
নেতার ছায়াতলে থেকে সমাজে চলছে মাদকদ্রব্যের
রমরমা ব্যবসা। এসব খুঁজে শাস্তি দেওয়ার ব্যবস্থা করতে
হবে।
সমাজ দেশকে সন্ত্রাসমুক্ত করতে পুলিশ প্রশাসনের
যেমন দায়িত্ব আছে ঠিক তেমনই নিজেদেরও আছে
দায়িত্ব ও কর্তব্য।
নিজেদের বিবেককে করতে হবে জাগ্রত। ইতোমধ্যে ঘটে
যাওয়া জুনায়েদের বিষয়টা উদাহরণস্বরূপ উল্লেখ করা
যায়। জুনায়েদ তার বন্ধুকে রাস্তায় দাঁড়িয়ে মারধর
করছে অথচ তার পাশ দিয়ে হেঁটে যাচ্ছে বিবেকহীন
কিছু মানসিকতার দিক থেকে পঙ্গু মানুষ।
আমাদের উচিত এসব অপরাধের প্রতিবাদ করা। নিজে না
পারলে পুলিশ প্রশাসনকে সহায়তা করা। দেশের জন্য
সাংবাদিকরা রাখছে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। প্রয়োজনে
তাদের সহযোগিতা নেওয়া যায়। একমাত্র তাদের
মাঝেই বেশি আছে সাহসিকতার মানসিকতা নিয়ে
সাংবাদিকতা করা। সর্বোপরি এই নেশাকে বন্ধ করতে
পারলেই আমাদের দেশ থেকে অনেকাংশে কমবে
খুনখারাবির ধর্ষনের মতো জঘন্য কাজ।

তৌহিদুল ইসলাম রবিন
লাকসাম, কুমিল্লা
mti.robin8@gmail.com

www.facebook.com/tianshi.hero

01918708383

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com