1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

চকরিয়ায় শেষ মুহুর্তের ঈদ কেনাকাটা জমে উঠেছে

  • আপডেটের সময় : রবিবার, ১২ জুলাই, ২০১৫
  • ৭২ দেখা হয়েছে

এ.এম হোবাইব সজীব, চকরিয়া : কক্সবাজারের চকরিয়ায় সদ্য শুরু হওয়া ঈদের কেনাকাটা, ঈদ বাজার ও আসন্ন ঈদ উপলক্ষ্যে মৌসমুী অপরাধীদের প্রতিরোধে কক্সবাজার জেলা পুলিশের অংশ হিসেবে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষে সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন কক্সবাজার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল-চকরিয়া) মোঃ মাসুদ আলম ও চকরিয়া থানার ওসি প্রভাষ চন্দ্রধর। এজন্য চকরিয়া পৌর শহরের বিপনী বিতানের প্রধান সড়কে পুলিশ অতিরিক্ত নিরাপত্তা বলয় নিয়োগ করেছে। দৈনিক মুক্তবাণীকে কোন অপরাধ ও অপরাধীকে ছাড় দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল-চকরিয়া) মোঃ মাসুদ আলম।

উৎসব মুখর পরিবেশে চকরিয়ায় শেষ মুহুর্তে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা। শহরের বাণিজ্যিক এলাকা চিরিঙ্গা সোসাইটির বিপনী বিতান গুলোতে এখন ধম ফেলার ফুসরত নেই। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলছে বিকিকিনি। দিনের চেয়ে রাতে বেলায় বিপনী বিতান গুলোতে নারীদের উপছে পড়া ভিড় পরিলক্ষিত হচ্ছে। শহরের একাধিক বিপনী বিতান ঘুরে দেখা গেছে, আর বাহারি রঙের পোশাক “কিরণমালার” দখলে মাকের্ট গুলো। স্কুল, কলেজ পড়ুয়া মেয়েরা বিদেশী পোশাক কিরণ মালা কিনতে মার্কেটের প্রতিটি দোকানে ধর্ণা দিচ্ছে। শাড়ির দোকান গুলোতে নারী ক্রেতাদের ভিড় বাড়ছে। ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, এবারের ঈদে নারীদের প্রথম পছন্দ নামাীদামি ব্রান্ডের শাড়ি ও শেলোয়ার কামিজ। ক্রেতা সমাগমকে উপলক্ষ করে ইতোমধ্যে বিপনী বিতান সমুহের প্রায় দোকান সেজেছে বর্ণিল সাজে।

চকরিয়া শহরের বাণিজ্যিক এলাকার নিউ সিটি সেন্টার, নিউ মার্কেট, ওয়েস্টান প্লাজা, আনোয়ার শপিং কমপ্লেক্স, চকরিয়া শপিং কমপ্লেক্স, সুপার মার্কেট, নিউ সুপার মার্কেট, চিরিংগা সমবায় মার্কেট, আবদুল মতলব শপিং সেন্টার, রূপালী শপিং কমপ্লেক্স, রওশন মার্কেট ও বাবু মিয়া বাজার হকার্স মার্কেটের মার্কেটে রয়েছে প্রায় হাজার খানিক দোকান। এছাড়া পৌর শহরে ছোট বড় রয়েছে আরো ৬’শতাধিক দোকান রয়েছে। এসব দোকানে শোভা পাচ্ছে মেয়েদের কিরণমালা, আনার কলি, লেহেঙ্গা, পাগলো, শিলা, ছাম্মাকছালো, ঝিলিক, ফুলকলি, আনারকলি, শিপন, স্কাট টপস, থ্রি পিস, জিন্স প্যান্ট, জামদানি শাড়ি, বেনারশি, কাতান, সিল্ক, জর্জেট জয়পুরি, ছেলেদের নবাবী পাঞ্জাবি, শেরওয়ানি, ফতুয়া, টি-শার্ট, প্যান্ট এবং ছোটদের জন্য রয়েছে বাহারি ডিজাইনের তৈরি পোশাক। প্রত্যেক দোকানে ক্রেতাদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। শহরের সুপার মার্কেটে কাপড়ের সবচেয়ে বড় দোকান সৌদিয়া ক্লথ ষ্টোর। দোকান মালিক মুজিবুল হক বলেন, অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার কাপড়ের দাম একটু বেশি হলেও গুনগত মান ভাল হওয়ায় ক্রেতারা সানন্দে কিনছেন তাদের পছন্দের কাপড়। তিনি বলেন, তার দোকানে নারী ক্রেতাদের চাহিদা থাকে বরাবরেই বেশি।

অপরদিকে উপজেলার উপকূলীয় ইউনিয়ন বদরখালী বাজারে ঘুরে দেখা যায়, নবী ষ্টোর, আল মদিনা ক্লথ ষ্টোর, মা-মনি ক্লাথ ষ্টোর, মনে রেখ ফেব্রিক্্র, হাবিব ডিপোর্টমেন্টাল ষ্টোর, আল-মদিনা, ফ্যাশন কালেকশন, সোলাইমান ক্লাথ ষ্টোর, আজিজিয়া ক্লাথ ষ্টোর প্রভৃতি পোশাকের দোকানে অন্যন্যা কাপড়ের চেয়ে বেশির ভাগ কিরণমালা নামের পোশাকের দিকে ঝুঁকছে নারী ক্রেতারা। ক্রেতারাও পছন্দ মত কেনার চেষ্টা করছে। ডাঃ মোহাম্মদ আলমগীর, ডাঃ হেলাল উদ্দিন জানান, এভাবে বিদেশী চ্যানেলের ভৌতিক চরিত্রের নামকরণে পোশাকে বাজার সয়লাব করে নিম্ন মানের বাহারী নামের এ পোশাকে উঠতি প্রজন্মের হুজগে বাঙালীর সর্বনাশ ও সংস্কৃতির বিরূপ প্রভাব পড়বে এক সময়।

এদিকে এএসপি মোঃ মাসুদ আলমের সহযোগিতায় ঈদ বাজারে কেনাকাটায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চকরিয়া থানা পুলিশ ইতোমধ্যে চালু করেছে ‘অপারেশন কুইক সার্ভিস’ ও নারী পুলিশ সদস্যদের নেতৃত্বে বোরকা বাহিনী নামে দুটি অভিযান টিম। চকরিয়া থানার ওসি প্রভাষ চন্দ্র ধর মুক্তবাণীকে বলেন, দুটি অভিযান টিমের নজরদারির কারনে শহরের বিপনী বিতান গুলোতে নির্বিগ্নে চলছে কেনাকাটা। ঈদের দিন ভোররাত পর্যন্ত পুলিশের এই সেবা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে ক্রেতা ও ব্যবসায়ীদের জন্য। তিনি আইনশৃংখলা বাহিনীর কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টিনীর রয়েছে বলে জানিয়েছেন।

এই বিভাগের আরও খবর
  • ২০১৪ - ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ‌্য মন্ত্রণালয়ে আবেদিত ।
Site Customized By NewsTech.Com