1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :

চকরিয়ায় সামাজিক বনায়নের জায়গা দখলের মহোৎসব ॥ দিনভর উচ্ছেদ আতঙ্ক

  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই, ২০১৫
  • ২৩ দেখা হয়েছে

imagesএ.এম হোবাইব সজীব :
চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারা বন বিটের আওতাধীন সামাজিক বনায়নের বিশাল জায়গা দখলের মহোৎসব চলছে। প্রভাবশালী জাকের হোসেন সওঃ ভিলেজার কালু লোকনাথ মন্দির নামে বাদল সওঃ ও ক্ষমতাশীন দলের একনেতার পুত্র কতিপয় দখল বাজরা।
জানা যায়, ডুলাহাজারা বন বিটের আওতাধীন রংমহলের পূর্ব পাশে ওলি বাপের জুম নামক স্থানে ২০০২-২০০৩ অর্থ সালে ১১০ হেক্টর জায়গা সামাজিক বনায়ন হিসেবে বরাদ্ধ দেয়া হয়। ২০১৪ সালে ৩ দফায় উক্ত বাগানের গাছ গুলো লট হিসেবে নিলাম দেয়া হয়। সরকার এ সামাজিক বনায়নের গাছ বিক্রি করে ২ কোটি টাকা রাজস্ব  আদায় করতে সক্ষম হয়েছে। উক্ত পরিমাণ রাজস্ব উপকারভোগীরাও পেয়েছে। চলতি বর্ষা মৌসুমে উক্ত জায়গায় পুনরায় বনায়ন করার কথা। কিন্তু বনায়নের গাছ কাটার পরপর বাদল সওঃ এর নেতৃত্বে হিন্দু সম্প্রদায়ের ১০/১৫ জনের একটি সিটিকেট উক্ত এলাকা থেকে প্রায় ৩ একর জায়গা দখল করে সেখানে থাকা একটি বট গাছে একটি লাল কাপড় মুড়িয়ে প্রথমে পুজারি করতে থাকে। বট গাছে পাশে থাকা জায়গায় ফাঁকা ভবন নিমার্ণের জন্য সেখানে মজুদ করেছে কয়েক ট্রাক লোহা, ইট ও ভবন নির্মাণ সামগ্রী। এমনকি ভবন নির্মাণের জন্য ফাউন্ডেশনের জন্য খননের কাজ শুরু করে। পাশে থাকা অন্যান্য জায়গা থেকে প্রায় ৪০ শতক জায়গা দখল করে খামার বাড়ী নির্মাণ করেছে জাকের হোসেন সওঃ, পূর্ব-পাশে পাহাড় কেটে জায়গা তৈরি করে নিচ্ছে ভিলেজার কালু ও ক্ষমতাশীন দলের একনেতার পুত্রসহ কতিপয় দখলবাজরা। এ সংবাদ পেয়ে ফাঁসিয়াখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন, ডুলাহাজারা বিট অফিসার সাব্বির এর নেতৃত্বে এক দল বনকর্মী গত ৩০ জুন বিকালে উক্ত অভিযান চালিয়ে ভবন নিমার্ণের মাটির বিভিন্ন সামগ্রী জব্দ করে রেঞ্জ অফিসে নিয়ে যায়। যাওয়ার সময় জাকের হোসেন সওঃ এর ঘেরা-বেড়াও ভেঙ্গে দেয়। পুনরায় দখল বাজদের উচ্ছেদের জন্য গত ১ জুলাই উক্ত এলাকায় অভিযান চলানোর কথা থাকলেও রহস্য জনক কারণে উচ্ছেদ অভিযান বন্ধ করে দেয়। এ ব্যাপারে ডুলাহাজারা বন বিট অফিসার সাব্বির এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, উপরের মহলের নির্দেশ থাকায় উচ্ছেদ অভিযান আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে। অন্যদিকে মাটি কাটার সরঞ্জামও ফেরত দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সামাজিক বনায়নের উপকারভোগীদের মাঝে চলছে চরম ক্ষোভ আর হতাশা।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com