1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

চৌফলদন্ডী-কক্সবাজার যাতায়াত সড়কে অসংখ্য খানা খন্দক আর সংকীর্ণতায় ভরপুর

  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৫
  • ৪১ দেখা হয়েছে

এম আবু হেনা সাগর, ঈদগাঁও :
মহাসড়কের পর বিকল্প সড়ক হিসাবে চৌফলদন্ডী ও কক্সবাজারের যাতায়াত সড়কটিতে অসংখ্য খানা খন্দক আর সংকীর্ণতায় ভরপুর হয়ে উঠেছে। যাতে করে পথচারী ও যানবাহন চলাচলে দারুণ দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। নেই কোন বড় দু’টি গাড়ী ক্রসিংয়ের জায়গা। দেখা যায়, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পরবর্তী বিকল্প হিসাবে বৃহত্তর ঈদগাঁও তথা ছয় ইউনিয়নের প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের লোকজন নানা কাজকর্মে ব্যবহার করছে চৌফলদন্ডী-কক্সবাজার যাতায়াত সড়কটি। দুঃখজনক হলেও সত্য যে, এ সড়কে নেই কোন যানবাহন ক্রসিংয়ের পর্যাপ্ত জায়গা আর যা আছে তাও নানা স্থানে খানা খন্দকে ভরপুর। ভয় আর নানা আতঙ্ক নিয়ে দিবারাত্রি যানবাহনের চালকরা গাড়ী চালিয়ে যাচ্ছে কোন রকম। নেই কোন এ বিকল্প সড়কের সংস্কারের উদ্যোগ। যার ফলে একের পর এক দুর্ঘটনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। রাস্তাটি উন্নত করে সংস্কার করা হলে বিশাল এলাকার অসহায় লোকজনের কক্সবাজার আসা-যাওয়া আরো সহজতর হত বলে জানান অনেক যানবাহনের চালক ও পথচারীরা। এখন আধা ঘন্টার পথ ঘন্টারও বেশি সময় পেরিয়ে যায়। রোগী হলে তো অবস্থা আরো বেগতিক হয়ে পড়ে। সরেজমিনে দেখা যায়, চৌফলদন্ডী ব্রীজের পরবর্তী সড়কটির অনেকাংশে স্থান থেকে ইট আর কংক্রিট সরে গিয়ে যাতায়াত রাস্তা ক্ষতবিক্ষত হয়ে পড়েছে। তার পাশাপাশি জোয়ার ও ঢলের পানির ধাক্কায় রাস্তা একের পর এক ভেঙ্গে যাচ্ছে। যাতে করে দুর্ভোগ আর দূর্গতিতে দিনাতিপাত করছে নানা কাজকর্মের জন্য কক্সবাজার যাওয়া অসহায় লোকজনরা। সড়কের দু’পাশের লবণাক্ত পানি তথা প্রজেক্ট। নেই কোন তদারকি। এদিকে জেলা সদরের ব্যস্ততম বাণিজ্যিক কেন্দ্র ঈদগাঁও বাজার থেকে চৌফলদন্ডী হয়ে কক্সবাজার যাতায়াত করছে ইসিসি পরিবহন, মাহিন্দ্রা ও সিএনজিসহ নানা রকম যানবাহন। মাঝেমধ্যে মালবাহী ট্রাক ও যাতায়াত করতে চোখে পড়ে। এ সড়কে রাত্রি কালীন সময়ে যানবাহন চলাচল মহা কঠিন ব্যাপার হয়ে দাড়িয়েছে। যার কারন পুরো সড়কের যত্রতত্র স্থানে রয়েছে খানা খন্দক আর রাস্তার সংকীর্ণতা। যাতে করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে গাড়ী চালানোর সময় দুর্ঘটনায় পতিত হওয়ার আশংকা প্রকাশ করেন অনেকে। অপরদিকে খুরুষ্কুল টাইমবাজার, পালপাড়া, খুরুষ্কুলসহ সড়কের আওতাধীন ছোট ছোট বাজারের দোকানপাট যাতায়াতের রাস্তার উপর এসে পৌছেছে এক প্রকার। যাতে করে যানবাহন চলাচলে দারুন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে চালকদের। অন্যদিকে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে যাত্রী সাধারণকে। সড়কে চলাচলরত একাধিক গাড়ীর চালক আর পথচারীদের মতে, অতিসত্ত্বর যদি ঈদগাঁও-চৌফলদন্ডী ও কক্সবাজারের যাতায়াতের বিকল্প সড়কটি সংস্কার করা হয় তাহলে বিশাল এলাকাবাসী নিশ্চিন্তে তথা আরাম-আয়েশে কক্সবাজারের নানা কাজে কর্মে আসা-যাওয়া করতে পারবে। একাধিক পথচারী আজকের কক্সবাজারের এ প্রতিনিধিকে জানান, দীর্ঘ মাস ধরে মহাসড়ক হয়ে কক্সবাজার যাতায়াত করছি না। কারন বিকল্প সড়ক তথা কাছের হিসাবে চৌফলদন্ডী দিয়ে কক্সবাজার আসা-যাওয়া করছি। আরো দেখা যায়, সড়কে যত্রতত্র স্থানে খানা খন্দক আর রাস্তা সংর্কীণতা আতঙ্ক নিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে আমাদেরকে। তারা মহাজোট সরকারের কাছে দাবী জানাচ্ছে যে, অবিলম্বে ঈদগাঁও-চৌফলদন্ডী-কক্সবাজার যাতায়াত সড়কটি সংকীর্ণতা দূর করে পর্যাপ্ত পরিমাণ সংস্কার পূর্বক যাতায়াতের সুব্যবস্থা করা হোক। অন্যথায় বৃহত্তর ঈদগাঁওবাসীকে যোগাযোগের ক্ষেত্রে প্রতিমুহুর্তে মরণ দশায় ভুগতে হবে।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com