1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :
শিরোনাম :
সাংবাদিক মামুনকে হত্যার চেষ্টা ঘটনায় জড়িদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবী সাংবাদিক ইব্রাহীম খলিল মামুনকে গাড়ি চাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা বাংলাদেশ দূতাবাস আবুধাবিতে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উদযাপন কলাতলী ডলফিন মোড় থেকে ইয়াবাসহ যুবক আটক কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রকল্প পরিদর্শন করলেন গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী ঈদগাঁও থানার উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ পালিত ৭ই মার্চের বঙ্গবন্ধুর ভাষণে নিহিত ছিল বাঙালীর মুক্তির ডাক-অতিরিক্ত ডিআইজি জাকির হোসেন স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছেন ১০ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান এডঃ ওসমান গণি’র মৃত্যুতে কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির শোক উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশ প্রাপ্তিতে র‌্যাবের আনন্দ উদযাপন 

ছাত্রলীগ-শিবির সংঘর্ষ পুলিশের মামলায় ১৯৪ শিবির নেতাকর্মী আসামি

  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৫
  • ১৮ দেখা হয়েছে

চট্টগ্রাম : মহান বিজয় দিবসে ফুল দেওয়া নিয়ে চট্টগ্রাম কলেজে ছাত্রলীগ ও ছাত্রশিবিরের মধ্যকার সংর্ঘষের ঘটনায় দুটি মামলা করেছে পুলিশ।
বুধবার রাতে নগরীর চকবাজার থানায় এসআই মো. কামাল বাদী হয়ে এই মামলা করেন।
মামলায় ১৪ জনের নাম উল্লেখসহ ছাত্রশিবিরের ১৯৪ জন নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চকবাজার থানার ডিউটি অফিসার সফিকুল ইসলাম।
তিনি বলেন, ‘বিস্ফোরক ও অস্ত্র আইনে দায়ের দুটি মামলায় শিবিরের ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে মোট ১৯৪ জনকে আসামি করা হয়েছে। এর মধ্যে অস্ত্র মামলায় ৯৪ জন এবং বিস্ফোরক মামলায় ১০০ জনকে আসামি দেখানো হয়েছে।’
মামলা দুটির তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. কামাল জানান, বুধবার ছাত্রলীগ-শিবির সংঘর্ষের পর চট্টগ্রাম কলেজ এলাকা থেকে চারটি কিরিচ, ৩টি গুলির খোসা, দুটি পিস্তলের গুলি খোসা, একটি খালি জর্দার কোটা ও ছয়টি হকিস্টিক উদ্ধার করা হয়। এসব উদ্ধারে ঘটনায় দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে তিনি জানান।
উল্রেখ্য, মহান বিজয় দিবসে কলেজের শহীদ মিনারে ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে বুধবার সকালে ছাত্রলীগ ও পুলিশের সঙ্গে ইসলামী ছাত্রশিবিরের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়।
এতে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন নেতাকর্মী আহত হন। পরে অভিযান চালিয়ে কলেজ থেকে শতাধিক শিবিরের নেতাকর্মীকে আটক করে পুলিশ।
এ ঘটনায় পরে চট্টগ্রাম কলেজের চারটি এবং পার্শ্ববর্তী মহসীন কলেজের দুটি ছাত্রাবাস অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে হল ত্যাগের নির্দেশ দেয় কর্তৃপক্ষ।
আর সংঘর্ষের ঘটনা তদন্তে কলেজ কর্তৃপক্ষ পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটির গঠন করেছে। সংঘর্ষের পর কলেজের একাডেমিক কাউন্সিলের জরুরি সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানিয়েছেন অধ্যক্ষ জেসমিন আক্তার।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com