1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :

টেকনাফে ঝড়ের কবলে পড়ে মাছ ধরার ট্রলার ডুবি, নিখোঁজ-১

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ২৫ জুলাই, ২০১৫
  • ১১ দেখা হয়েছে

টেকনাফে বৈরী আবহাওয়া মুষলধারে বৃষ্টির কারনে লোকজদের জীবন যাত্রা ব্যাহত : নিম্মাঞ্চল প্লাবিত
আমান উল্লাহ আমান, টেকনাফ :
টেকনাফ শাপলাপুর উপকূলের বঙ্গোপসাগরে ঝড়ের কবলে পড়ে মাছ ধরার ট্রলার ডুবে যাওয়া খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আব্দুল মজিদ (৪০) নামে এক ব্যক্তি নিখোঁজ রয়েছে। এদিকে টেকনাফে সারাদিন মুষলধারে বৃষ্টি হচ্ছে। ফলে লোকজনদের স্বাভাবিক জীবন যাত্রা ব্যাহত হয়ে উঠেছে। টেকনাফে সাথে অনেক এলাকার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। অতি বৃষ্টির কারণে শাহপরীর দ্বীপ, সেন্টমার্টিন ও বাহারছড়া এলাকার লোকজনেরা পড়েছে বিপদে। বিশেষ করে শাহপরীর দ্বীপ ও সেন্টমার্টিন এলাকার লোকজনদের যাতায়াত বন্ধ রয়েছে। এছাড়াও শাহপরীর দ্বীপ ও সেন্টমার্টিন এলাকায় সাগরের প্রচন্ড তর্জন-গর্জন ও ভাঙ্গণ ইত্যাদিতে লোকজন তটস্থ। অতি বৃষ্টির ফলে টেকনাফ উপজেলার নিম্মাঞ্চল এলাকা পানিতে তলিয়ে গেছে। পানি বন্ধি হয়ে পড়েছে অনেক পরিবার। বিশেষ করে শাহপরীরদ্বীপে বৃষ্টির পানি ও সাগরের জোয়ারের পানিতে তলিয়ে গেছে কয়েক এলাকা। তম্মধ্যে পশ্চিম পাড়া, মাঝের পাড়া, উত্তরপাড়া, হ্নীলার দমদমিয়া, রঙ্গিখালী, আলী খালী, হোয়াইক্যংয়ের উনছিপ্রাং, টেকনাফের চৌধুরীপাড়া, জালিয়া পাড়া উল্লেখযোগ্য। অপরদিকে টেকনাফ শাপলাপুর উপকূলের বঙ্গোপসাগরে ঝড়ের কবলে পড়ে মাছ ধরার ট্রলার ডুবে যাওয়া খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আব্দুল মজিদ (৪০) নামে এক ব্যক্তি নিখোঁজ রয়েছে। ২৫ জুলাই শনিবার দুপুরে ট্রলার ডুবির ঘটনাটি ঘটে। ডুবে যাওয়া ট্রলারটি শামলাপুর এলাকার নুরুল হকের। রিপোর্ট লেখাকালে নিখোঁজ ব্যক্তির হদিস মেলেনি। রহিমুল্লাহ মাঝি জানান, আমিসহ ৫ জন মাঝিমাল্লা শনিবার সকালে মাছ ধরার ট্রলার নিয়ে সাগরে যাই। এ সময় প্রবল ঝড়ের কবলে পড়ে ট্রলারটি। এক পর্যায়ে আমরা দুইজন সাগরের পানিতে পড়ে যাই। আমি ফিরে আসলেও আব্দুল মজিদ সাগরে হারিয়ে যায়। শামলাপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম জানান, ঘটনার খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে। নিখোঁজ ব্যক্তির উদ্ধারে তৎপরতা চলছে। স্থানীয় ইউপি সদস্য মোকতার আহমদ আমীর জানান, মাছ ধরতে যাওয়ার বেলায় লাইফ জ্যাকেট না নেওয়ায় এরকম ঘটনা ঘটছে। এদিকে টেকনাফসহ কক্সবাজার উপকূলে ২৪ জুলাই শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে ৩নং সতর্কতা সংকেত জারি রয়েছে। এরপর উপকূলীয় এলাকায় মাইকিং করে লোকজনকে নিরাপদ এলাকায় অবস্থান নিতে নিদের্শ দেয়া হচ্ছে। আকাশ মেঘাচ্ছন্ন রয়েছে ও মুষলধারে বৃষ্টিপাত হচ্ছে। এ দিকে শনিবার বিকাল তিনটা পর্যন্ত গত ২৪ ঘন্টায় ১৫৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজার আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তা মশিউর রহমান। তিনি বলেন, উপকূলীয় এলাকায় বৈরী আবহাওয়া ও প্রবল বৃষ্টি দেখা দিয়েছে। সবাইকে সর্তক অবস্থায় থাকতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com