1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

পেকুয়ায় টানা বৃষ্টি আর জোয়ারের পানিতে ফের প্লাবিত

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ২৫ জুলাই, ২০১৫
  • ২৯ দেখা হয়েছে

এস.এম.ছগির আহমদ আজগরী, পেকুয়া :
কক্সবাজারের পেকুয়ায় গত দু’দিনের টানা বৃষ্টি আর জোয়ারের পানিতে ফের প্লাবন দেখা দিয়েছে। ফলে, উপজেলার নি¤œাঞ্চলের মানূষ পানি বন্দি হয়ে চরম ভোগান্তির মধ্যে রয়েছে। জানা যায়, গত দু’দিন ধরে টানা বৃষ্টি, পাহাড়ি ঢল আর জোয়ারের পানি বাড়ায় বন্যা পরিস্থিতি আবারো প্রকট আকার ধারণ করেছে। এসময় টানা বর্ষন, উজানের ঢল ও সাগরের জোঁ’র পানির তোড়ে উপজেলার সদর ইউনিয়ন ঘেরা খরশ্রোতা মাতামুহুরী নদী সংগ্লন্ন এলাকার বিস্তির্ণ বেড়িবাঁধের একাধিক পয়েন্টে ভাংগন ও ধ্বসের ফাটল দিয়ে লোকালয়ে অবা:ে পানি ডুকে পড়ায় ফের বন্যাক্রান্ত হয়েছে পেকুয়া সদর ইউনিয়ন ও তৎসংগ্লন্ন শিলখালী, বারবাকিয়া ও উজানটিয়া ইউনিয়ন এবং তার আশেপাশের এলাকা। আর এসব ইউনিয়নের মধ্যে পেকুয়া সদরের বলিরপাড়া, সৈকতপাড়া, খাসপাড়া, চৈরভাংগা, চড়াপাড়া, আলিংগাকাটা, আবাসনপল্লী, তেলিয়াকাটা, আঁধাখালী, আবদুল হামিদ সিকদারপাড়া, সরকারীঘোনা, সাবেকগুলদী, আন্নরআলী মাতবরপাড়া, মৌলভীপাড়া, সুতাবেপারীপাড়া, হরিণাফাঁড়ি, খাসমহল্লা, নন্দিরপাড়া, পূর্ব মেহেরনামা, পশ্চিম মেহেরনামা, দক্ষিণ মেহেরনামা, বাঘগুজারা গুরা মিয়া বাজার, পূর্ব ছিরাদিয়া, পশ্চিম ছিরাদিয়া, দক্ষিণ ছিরাদিয়া, ছিরাদিয়া খাসপাড়া, জাইল্ল্যেখালী, বিলহাচুঁড়া, পূর্ব গোঁয়াখালী, পশ্চিম গোঁয়াখালী, মিঠাবেপারীপাড়া, বাইম্মাখালী, মিয়ারপাড়া, শেখেরকিল্লাহঘোনা, রাহাতজানিপাড়া, শিলখালীর হাজিরঘোনা, আলী চাঁন মাতবরপাড়া, সবুজপাড়া, পেঠান মাতবরপাড়া, নিতাবুনিয়া, চরপাড়া, জনতাবাজার, বাজারপাড়া, দোকানপাড়া, চেপ্টামুরা, মুন্সিমুরা, বধু মুন্সিরঘোনা, হেদায়েতাবাদ, কালুর বাপেরপাড়া, ছৈয়দ নগর, কসাইপাড়া, আলেকদিয়াপাড়া, হাই স্কুল ষ্টেশন, মাঝেরঘোনা, সবুজপাড়া, জারুলবুণিয়া ষ্টেশন ও নীচেরপাড়া, পূর্ব ভারুয়াখালী, বারবাকিয়া ইউনিয়নের ভারুয়াখালী, নাথপাড়া, বাজারপাড়া, চরপাড়া, কাদিমাকাটা, ওয়ারেচী পল্লী, পূর্ব ও পশ্চিম পাহাড়িয়াখালী, কাদিমাকাটা, ফাশিয়াখালী, বুধা মাঝিরঘোনা, জালিয়াকাটা ও উজানটিয়া ইউনিয়নের বেশ কিছু পাড়া-মহল্লায় জোয়ার ভাটার পানিতে তলিয়ে পড়েছে। সম্প্রতি সময়ের বন্যায় উপজেলার বেশ কয়েকটি বন্যাক্রান্ত ইউনিয়নে কাঁচা, আধ কাঁচা ও মাটির ঘর বিলিন আর অর্ধ্ব বিলিন হয়ে গেলেও এখন আবার নতুন করে বন্যা দেখা দেওয়ায় বাকি থাকা হাজার পরিবারের বসতি চরম ঝুঁকির মুখোমুখি হয়ে পড়েছে। সম্প্রতির বন্যা পরবর্তী উপজেলার বন্যাক্রান্ত এলাকায় পানি কমে আসতে শুরু করলেও উপজেলার ভাংগন ও ধ্বস ফাটল কবলিত বেড়িবাঁধের অংশগুলো এখনো সংষ্কার নির্মাণ সম্পন্ন না করায় গত দু’দিনের টানা বর্ষন, উজানের ঢল ও নদ-নদীর জোয়ার ভাটার পানি অবাধে লোকালয়ে ডুকে পড়ায় উপজেলার শিলখালী, পেকুয়া সদর, বারবাকিয়া, উজানটিয়া ও মগনামা ইউনিয়নের নিচু এলাকায় ফের দেখা দিয়ে বন্যার প্লাবন। গত দু’দিনের বৃষ্টিতে পুরো উপজেলার জন জিবনে দেখা দিয়েছে চরম অচলাবস্থা। মানূষের গন্তব্যে যাওয়া আসা অচলবস্থা দেখা দিলেও যারা জরুরী প্রয়োজনে বাড়িঘরের বাইরে বেরুচ্ছে তাদের পানিতে তলিয়ে পড়া রাস্তাঘাট মারিয়ে পথ চলা সহ গলাকাটা ভাড়ার পকেট কাটতি আর নানা ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। অন্যদিকে, ফের বন্যায় নিচু এলাকা তলিয়ে যাওয়া এসব এলাকার লোকজন তাদের গৃহপালিত গরু, মহিষ, ছাগল, ভেড়া, হাঁস-মুরগি ও পরিবার পরিজনদের নিয়ে নতুন নিরাপদ আশ্রয়ের সন্ধান বা উঁচু এলাকায় বসবাসরত আত্মীয় স্বজনের বাড়ি ও পাড়া-মহল্লার উঁচু রাস্তাঘাট ও বেড়িবাঁধে ঠাঁই নিতে কাটাচ্ছেন ব্যস্ত সময়। ফের বন্যাক্রান্ত লোকজনদের বাড়িঘর বসতি বিলিন বা পানিতে তলিয়ে থাকায় তাদের অধিকাংশরাই পড়েছেন বিপাক ভোগান্তিতে। যার দৃশ্য দর্শনে বুঝা যায় আদমের মানবেতর দিনাতিপাতের চিত্র। তার উপর সাগর-নদ-নদীর জোঁ’র জোয়ার ভাটার পানিতে লোকালয় তলিয়ে পড়ায় গোটা পেকুয়া উপজেলা জুড়ে নতুন করে মারাত্মক আকার ধারণ করেছে বর্তমান পরিস্থিতির। লোকজনের বাড়িঘরে প্রতিনিয়ত পানি উঠা নামা অব্যাহত থাকায় মানূষ পারছেনা তাদের বন্যাক্রান্ত বাড়িঘর মেরামত বা নিজ বসতিতে ফিরতে। পেকুয়ার ইউএনও মোঃ মারুফুর রশিদ খান টানা বর্ষনে পেকুয়ায় ফের নতুন করে বন্যা দেখা দেওয়ার বিষয় নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, দূর্যোগ মোকাবেলায় স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক প্রস্তুতি ও সতর্কবস্থানে রয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com