1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :

পেকুয়ায় দফায় দফায় সড়ক পার্শ্বের সবুজ বেষ্টনী নিধন চালাচ্ছে প্রভাবশালীরা,প্রশাসন নিরব!

  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই, ২০১৫
  • ১৩ দেখা হয়েছে

পেকুয়া প্রতিনিধি :
কক্সবাজারের পেকুয়ায় প্রভাবশালীরা দফায় দফায় সড়ক পাশের্^র সবুজ বেষ্টনী নিধন চালালেও কোন ব্যবস্থায় নিচ্ছেনা স্থানীয় প্রশাসন। নির্বিচারে সড়ক পাশের্^র সবুজ বেষ্টনী নিধনে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনে স্থানীয় প্রশাসনের রহস্যজনক ভুমিকায় সরকারের ভাবমূর্তি ও স্থানীয় প্রশাসনের সংশ্লিষ্টদের গ্রহনযোগ্যতা নিয়ে নানা প্রশ্ন তুলেছে এলাকাবাসী। জানা যায়, সম্প্রতি পেকুয়া উপজেলার টইটং ইউনিয়নের আঞ্চলিক মহাসড়ক(এবিসি) রোড সংগ্লন্ন উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের কাদিমাকাটা এলাকার মৃত কবির আহমদের পুত্র ঠিকাদার সাহাবুদ্দিনের মালিকানাধীন এম.পি.এম ব্রীক ফিল্ড এলাকায় দীর্ঘদিন পূর্বে সড়কের ২পাশের্^ রোপিত প্রায় শতাধিক মূল্যবান আকাশমনি মাদার ট্রি গাছ কেটে সাবাড় করা হয়। বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা গত ২১জুন রোববার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ও পরদিন গণমাধ্যমে সচিত্র সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশ ও প্রচার করা হয়। পত্র পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের জের ধরে এলাকায় তোলপাড় হলেও আইনগত কোন ব্যবস্থা গ্রহণ নেয়া হযনি। পরে, গত ১১ ও ১২জুলাই রাতের আঁধারে ফের ওই স্থান থেকে আবারো প্রায় অর্ধ-সহ¯্রাধিক সড়ক পাশের্^র সবুজ বেষ্টনী কেটে উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের বহুল আলোচিত কাসেম কোম্পানীর করাতকলে নিয়ে যাওয়ার গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়লে গতকাল ১৪ জুলাই মঙ্গলবার দুপুরে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা সরোজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনার সত্যতা পান। পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে উপস্থিত লোকজন ও স্থানীয়রা জানিয়েছেন, স্থানীয় এম.পি.এম ব্রীক ফিল্ডের মালিক সাহাবুদ্দিন ও ঠিকাদার আহমদ নবীর ম্যানেজার মনছুর ও ওই এলাকার এক শিক্ষকের নেতৃত্বাধীন প্রভাবশালী সিন্ডিকেট সড়ক পাশের্^র সহ¯্রাধিক সবুজ বেষ্টনী নিধন ও পাঁচারের ঘটনায় জড়িত। অন্যদিকে, সড়ক পাশের্^র সহ¯্রাধিক সবুজ বেষ্টনীর গাছ নিধন ও পাঁচারের চাঞ্চল্যকর ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত, গ্রেপ্তার ও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনে ইউএনও, ওসি ও উপকুলীয় বন বিভাগের লোকজনদের একাধিকবার অবহিত করলেও নেয়া হয়নি কোন পদক্ষেপ। বরং চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ধামাচাঁপা দিতে ঘটনায় জড়িতদের সাথে তাল মিলিয়ে সংশ্লিষ্টরাও হয়ে উঠেছে মরিয়া বলে মন্তব্য করেন এলাকাবাসী। উপকূলীয় বনবিভাগের মগনামা বিট কর্মকর্তা নেজাম উদ্দিনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে জানতে চাইলে তিনি কল রিসিভ করেননি। পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মারুফুর রশিদ খান সড়ক পাশের্^র সবুজ বেষ্টনী নিধনের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টির দেখ ভালোয় সংশ্লিষ্টদের অবহিত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com