1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

পেকুয়ায় পাহাড় কাটা ও বালি দূস্যতা বন্ধে নিরব প্রশাসন

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ২৯ আগস্ট, ২০১৫
  • ৪০ দেখা হয়েছে

পেকুয়া প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের পেকুয়ায় পাহাড় কাটা ও বালি দূস্যতা বন্ধে নিরব প্রশাসন। ফলে, পাহাড় কাটা ও বালিদূস্যতায় জড়িতরা বেপরোয়া হয়ে তাদের অপকর্ম অবৈধ ব্যবসা নির্বিঘেœ অব্যাহত রেখেছেন। সরোজমিন ঘুরে দেখা গেছে যে, উপজেলার শিলখালী, বারবাকিয়া ও টইটং এলাকায় এক শ্রেণীর অসাধু লোকজন পৃথক পৃথক সিন্ডিকেড গঠন করে পাহাড় কেটে মাটি জমির শ্রেণী পরিবর্তন, পাহাড়ি খনিজ সম্পদ বালি ও মাটি পাঁচার বানিজ্যে মেতেছে। একই সাথে কিছু চিহ্নিত বালি দূস্যরা এসব এলাকার ছড়া ও জমিতে অবৈধ ভাবে সরকারের ঘোষিত খনিজ সম্পদ বালি উত্তোলন করে তার পাঁচার ব্যবসা চালিয়ে আসছেন। এসব বিষয় নিয়ে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা একাধিকবার ধারাবাহিক সচিত্র সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশ ও প্রচার করলেও মাঝে মধ্যে বিচ্ছিন্ন ভাবে স্থানীয় প্রশাসন লোক দেখানো তৎপরতা দেখালেও অর্থবহ ব্যবস্থা গ্রহনে রয়েছে রহস্যজনক ভুমিকায়। সরোজমিন ঘুরে দেখা গেছে যে, উপজেলার শিলখালী ইউনিয়নের জারুলবুণিয়া এলাকায় স্থানীয় মৃত গোলাম সুলতানের পুত্র মহিউদ্দিন, তার নিকটাত্মীয় রিদুয়ান, হাজি¦ আবুল হোছনের পুত্র মাষ্টার নেজাম উদ্দিন, মরহুম ছৈয়দ নুরের পুত্র একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের মাঠ কর্মী ছৈয়দ নুরুল হাকিম, মৃত আলী আহমদের পুত্র চাঞ্চল্যকর গৃহবধু আমেনা হত্যাকান্ডের আলোচিত আসামী মোস্তাক আহমদ, তার পুত্র শাহাদত হোছাইন, মৃত আবুল হোছনের পুত্র জসিম উদ্দিন, ঢালার মুখের বদি আলম মেস্ত্রী, মৃত আহমদ হোছনের পুত্র মোঃ নুরুল আমিন, তার ছোট ভাই মোঃ আসিফ প্রমুখ পৃথক সিন্ডিকেট গঠন করে ভাড়াটিয়া শ্রমিক লাগিয়ে দীর্ঘদিন যাবত জারুলবুণিয়া ছড়া থেকে স্থানীয় প্রশাসনের কোন ধরনের অনুমতি ছাড়াই নির্বিচারে অবৈধ ভাবে বালি উত্তোলন করে বালিদূস্যতায় লিপ্ত রয়েছে। এছাড়া, একই ইউনিয়নের মাঝেরঘোনা এলাকায় মৃত মোঃ শাহ আলমের পুত্র আজমগীর ও নেয়ামত উল্লাহ, জহির ড্রাইভার, মনজুর আলম, শেখ আহমদ নামীয় ব্যক্তিরা তাদের জবর দখলীয় বসতির পাহাড় কেটে দেদারছে বালি ও মাটি পাঁচারের অবৈধ ব্যবসা চালিয়ে আসছেন। অন্যদিকে, একই ইউনিয়নের পূর্ব ভারুয়াখালী, সবুজপাড়া এলাকায়ও অসাধু লোকজন খনিজ সম্পদ আইনের তোয়াক্কা না করে প্রশাসনের চোখ ফাকি দিয়ে চালিয়ে আসছেন একই ধরনের ব্যবসা। অপরদিকে, বারবাকিয়া ইউনিয়নের ভারুয়াখালী, ফরেষ্ট বিট অফিস ও তার আশপাশের এলাকায়ও এক শ্রেণীর অসাধু লোকজন জড়িয়ে আছেন অবৈধ খনিজ সম্পদ পাঁচারের ব্যবসায়। এদের মধ্যে স্থানীয় প্রাক্তন মেম্বার মোঃ ইলিয়াছ সুমন নামের এক ষ্টুডিও ব্যবসায়ী, পাহাড়িয়াখালী এলাকার জাফর আলমের পুত্র মোঃ জাহাঙ্গীর আলম ছাড়াও আরো বেশ কয়েকজনের অসাধু সিন্ডিকেট স্থানীয় যাদুখালী ছড়ায় মেশিন বসিয়ে বালি উত্তোলন ব্যবসা করছেন। একই ভাবে টইটং ইউনিয়নের রমিজপাড়া, ঢালার মুখ, বনকানন, মধুখালী, সংগ্রামীজুম নামের এলাকায় সেখানকার অসাধু লোকজন নিরবে নিবৃত্তে রেখেছেন অব্যাহত বালির ব্যবসা। তাছাড়া. শিলখালী ইউনিয়নের মাঝেরঘোনা এলাকায় পাহাড় কেটে মাটির ব্যবসা শেষে বহুতল ভবন নির্মাণ করছেন স্থানীয় শেখ আহমদের প্রবাসী ভাতিজা। একই গ্রামের উত্তরেরজুম এলাকার মৃত আলতাজ মিয়ার পুত্র মোঃ ফিরুজ প্রকাশ লাদেন ও তার মেয়ের জামাই কামাল বন বিভাগের সংরক্ষিত জায়গার তাদের ভোগদখলীয় পাহাড় কেটে জমির শ্রেণীর পরিবর্তন সহ অপরিকল্পিত ভাবে মাটি সরানোর অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী। শিলখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ৫নং ওয়ার্ড কমিটি ও জারুলবুণিয়া ষ্টেশন বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি নুর মোহাম্মদ রানা জানিয়েছেন এবিষয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান, ইউএনও এবং থানা পুলিশকে অবহিত করেও বালি দূস্যতায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনে রহস্যজনক ভাবে নিরব রয়েছে প্রশাসন। এবিষয়ে বারবাকিয়া বন বিট কর্মকর্তা মোঃ লিয়াকত আলীর কাছে জানতে চাইলে তিনি ঘটনার খোঁজ-খবর নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের অনুমতি চেয়ে উর্ধ্বতন মহলকে অবহিত করেছেন। শীঘ্রই ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নিবে বন বিভাগ। পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মারুফুর রশিদ খানের দৃষ্টি আকর্ষন করলে প্রথমে তিনি বালিদূস্যতায় জড়িতরা শিলখালী ইউপি’র বিএনপি সমর্থীত চেয়ারম্যান মোঃ নুরুল হোছাইনের সাথে সম্পর্ক্য রয়েছে কিনা প্রশ্ন তুলে কাল রোববারের মধ্যে সরোজমিন পরিদর্শনের মাধ্যমে বালিদূস্যতায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন বলে জানান।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com