1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :

পেকুয়ায় বন্যার ত্রাণ তৎপরতায় সমন্বয়ের দারুণ দৃষ্টতা গড়লো শিলখালী

  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ১০ জুলাই, ২০১৫
  • ২৩ দেখা হয়েছে

এস.এম.ছগির আহমদ আজগরী,পেকুয়া :
কক্সবাজারের পেকুয়ায় বন্যার ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনা ও বাস্তবায়নে সমন্বয়ের দৃষ্টতা গড়েছে শিলখালী ইউনিয়ন পরিষদ। ফলে, এঘটনায় বন্যাক্রান্ত লোকজনের পাশাপাশি দলমত নির্বিশেষে সর্বস্তরের মানূষের মন্তব্যে সন্তোষ ও সাধুবাদের ঢল পড়েছে। জানা যায়, চলতি বছরে সাম্প্রতিক সময়ের বন্যায় উপজেলার আক্রান্ত জনপদগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি লোকালয়ের নাম শিলখালী ইউনিয়ন। যেখানে রয়েছে কয়েক হাজার পরিবারের বসতি। আর এসব পরিবারের অধিকাংশরাই ভুমিহীন ও দরিদ্র। পেকুয়ার সদর ও বারবাকিয়া ইউনিয়নের পাশাপাশি চকরিয়া উপজেলার বরইতলী, হারবাং গ্রামের সীমান্ত লাগোয়া পেকুয়ার এই গ্রামটির নাম ডাক আর নানা সাফল্য ব্যর্থতা ও গড়ে তোলা ইতিহাসের কথা যূগ যূগ ধরে এতদাঞ্চলের হাজারো মানূষের মুখে মুখে আলোচিত সমালোচিত। সম্প্রতির বন্যায়ও নতুন করে উপজেলার শিলখালী ইউনিয়নটি গড়লো সমন্বয়ের দৃষ্টান্ত। বিভিন্ন সূত্রের প্রাপ্ত তথ্য উপাত্ত আর চলমান জিবনধারা পর্যালোচনায় দেখা গেছে যে, বন্যাক্রান্ত গ্রাম বিবেচনায় আন্তর্জাতিক মহল, সরকার ও স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে শিলখালীতেও দেয়া হয়েছে ত্রাণ ও পূর্ণবাসন উপকরণ। আর এ প্রক্রিয়ার যথাযথ বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া নিয়ে অতিতের মতো সংঘঠিত নানা বঞ্চনা বৈষম্যের সাথে অনিয়ম, দূর্নীতি, স্বজনপ্রীতি ও স্বেচ্ছাচারীতা ঘটনায় স্থানীয় গ্রাম পরিষদ ও তার সংশ্লিষ্টরা ফের নেতিবাচক পত্র পত্রিকার শিরোনামের আশংকা থাকলেও এবার গ্রাম পরিষদের কার্যক্রমে ছিল যেন নতুন এক ভিন্নতা। যার কারণে সমন্বয়ের দীর্ঘদিনের আলোচনা সমালোচনা আর নেতিবাচক সংবাদ শিরোনামের রেকর্ড ভেঙ্গে গড়েছে এক নতুন ইতিহাস। চলতি বন্যার সময় বেড়িবাঁধ ভেংগে জোয়ারের পানি প্রবেশ ও পাহাড়ি ঢলে উপজেলার শিলখালী ইউনিয়নও প্লাবিত হয়। এসময় পানি বন্দি হয়ে পড়ে গ্রামটির হাজারো পরিবারের লোকজন। খবর পেয়ে উপজেলা প্রশাসনের পরিষদ চেয়ারম্যান শাফায়েত আজিজ রাজু ও ইউএনও মোঃ মারুফুর রশিদ খানের নেতৃত্বে বিভিন্ন দপ্তর ও সংস্থ্যার নেতৃস্থানীয়রা প্রায় সপ্তাহখানেক যাবত জলাবদ্ধতার শিকার লোকজনদের ভোগান্তির অবসানের পাশাপাশি শিলখালীতে ত্রাণ ও পূর্ণবাসন তৎপরতা অব্যাহত রাখতে দেয়া হয় বিশেষ জরুরী নির্দ্দেশনা। স্থানীয় প্রশাসনের নির্দেশনা পেয়ে শিলখালী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ নুরুল হোছাইন বন্যা পরিস্থিতির সার্বক্ষনিক মনিটরিং অব্যাহত রাখার পাশাপাশি পরিষদ সংশ্লিষ্টদের সাথে নিয়ে স্থানীয় পর্যায়ের নেতৃস্থানীয়দের মধ্যে সমন্বয় সাধন করে দফায় দফায় বরাদ্ধ পাওয়া ত্রাণ সামগ্রী দূর্গত ও আক্রান্ত পরিবারের লোকজনদের দ্রুত তালিকা তৈরী করে সার্বিক বিষয়াধি উপজেলা প্রশাসনকে অবহিতের মাধ্যমে নির্দ্দেশনা নিয়ে করে গেছেন বিলি বন্টন। এসময় পরিষদের পক্ষ থেকে উপজেলা প্রশাসনের পাঠানো টেক অফিসার, ক্ষমতাসীন সরকারীদল আওয়ামীলীগ, প্রধান বিরোধীদল জাতীয় পার্টি ও অন্যান্য রাজনৈতিক নেতৃস্থানীয়দের মধ্যে সমন্বয় সাধনের দৃষ্টান্ত গড়ে বন্যা পরিস্থিতির মোকাবেলা সহ ত্রাণ ও পূর্ণবাসন প্রক্রিয়া চালাতে দেখা গেছে। শিলখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি (বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি) সামশুল আলম কাদেরী, শিলখালী ইউপি’র প্যানেল চেয়ারম্যান আ’লীগ নেতা মোঃ নুরুল আলম কাদেরী, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ বেলাল উদ্দিন আহমদ ও আইন বিষয়ক সম্পাদক পেকুয়া বিওজেএ’র সভাপতি সাংবাদিক ছগির আহমদ আজগরী, বর্তমান সংসদের প্রধান বিরোধীদল জাতীয় পার্টির উপজেলা কাউন্সিলর কায়ছার হামিদ, ইউনিয়ন জাপা’র সভাপতি মোঃ আলম ফরায়েজীসহ স্থানীয় তৃনমুল পর্যায়ের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ, সামাজিক লোকজন এবং গণ্যমান্যদেরও দেখা গেছে পরিষদের বরাদ্ধপ্রাপ্ত ত্রাণ ও পূর্ণবাসন কার্যক্রমের বিষয়ে যাবতীয় তদারকি, নজরদারীর মাধ্যমে সকল প্রকার অনিয়ম বৈষম্যের বিতর্কের উর্ধ্বে অবস্থান নিয়ে এলাকার বন্যা দূর্গতদের পাশে দাড়াতে। আর এনিয়ে দলমত নির্বিশেষে সর্বস্তরের মানূষ সন্তোষ ও সাধুবাদ জানিয়ে বলেন, তারপরেও গুটিকয়েক অসাধু ইউপি সদস্য ও তাদের লোকজন শিলখালী ইউনিয়ন পরিষদের ত্রাণ ও পূর্ণবাসন কার্যক্রমকে বিতর্কিত করার নানা চেষ্টা তদবিরের মাঝেও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ নুরুল হোছাইন বহুধা বিভক্ত সমাজ ব্যবস্থায় সকল দলমতের সমন্বয়ে বন্যা মোকাবেলার পাশাপাশি ত্রাণ ও পূর্ণবাসন প্রক্রিয়ার যথাযথ বাস্তবায়নে অতিতের সকল ধারনা রেকর্ড ভংগ করে গড়েছেন সমন্বয়ের নতুন দিনের ধারণায় মানূষকে উদ্বূধ ও পরিচালিত করার স্বপ্নের দ্বার বুনায়। শিলখালী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ নুরুল হোছাইনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে পরিষদ চেয়ারম্যান শাফায়েত আজিজ রাজু ও মহানুভব ইউএনও মোঃ মারুফুর রশিদ খানের দিকনির্দ্দেশনায় নির্দিষ্ট টেক অফিসার ও স্থানীয় সংবাদকর্মীদের উপস্থিতি নিশ্চিত আর পরিষদ সদস্য, সদস্যা, গ্রাম পুলিশ, স্থানীয় রাজনৈতিক সামাজিক নেতৃস্থানীয়রাসহ দলমত নির্বিশেষে সকলকে চলতি সময়ের আষাঢ়ি বন্যার ভয়াবহ হিং¯্র থাবার ক্ষয়ক্ষতি থেকে রক্ষার পাশাপাশি ত্রাণ ও পূর্ণবাসন কার্যক্রম পরিচালনা হয়েছে ও হচ্ছে। যা নিয়ে সবাই খুশী হওয়ায় আমিও তৃপ্ত। পেকুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাফায়েত আজিজ রাজু চলমান বন্যা পরিস্থিতি ঘিরে শিলখালী ইউপি’র ত্রাণ ও পূর্ণবাসন কার্যক্রমে সমন্বয়ের দৃষ্টান্ত ঘুনে ধরা সমাজ ব্যবস্থার জন্য হয়ে থাকবে অনুপ্রেরণীয়। পেকুয়ার ইউএনও মোঃ মারুফুর রশিদ খরন. শিলখালী ইউপি’র ত্রাণ ও পূর্ণবাসন প্রক্রিয়ায় সমন্বয়ের দৃষ্টান্ত গড়ায় সন্তোষ প্রকাশ করে এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com