1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :

পেকুয়ায় বাল্য বিয়ে বন্ধে থানায় জিডি

  • আপডেটের সময় : সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৫
  • ১১ দেখা হয়েছে

এস.এম.ছগির আহমদ আজগরী, পেকুয়া :
জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে মোর্শেদ আলম। জন্ম সনদ মতে তার বয়স ১৭ বছর (২৭ আগষ্ট ১৯৯৮ইং)। অন্যদিকে শফি আলমের কন্যা রুনা আকতার। জন্ম সনদ মতে তার বয়স ১৫ বছর (১৫জুন ২০০০ইং)। দুজনেরই বাড়ি পেকুয়া উপজেলার শীলখালী ইউনিয়নের লম্বামুরা সবুজ পাড়া এলাকায়। ছেলের পরিবারের অভিযোগ তাদের অপ্রাপ্ত ছেলেকে অপহরণ পরবর্তি মেয়ের পরিবার তাদের অপ্রাপ্ত বয়স্ক কণ্যাকে জোর পূর্বক বাল্য বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে। এমনকি তাদের ছেলেকে এখনো খোঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা। ছেলেকে খোঁজে পেতে ও বাল্য বিয়ে বন্ধ করতে মেয়ের পিতা-মাতাকে অভিযুক্ত করে পেকুয়া থানায় সাধারণ ডায়েরী (জিডি) রুজু করেন ছেলের মাতা হাছিনা বেগম বাদী হয়ে। যার নং ১৭০। পরে স্থানীয় মাধ্যমে ছেলের পরিবার মেয়ের পরিবারের সাথে যোগাযোগ করলে তারা জানায় তাদের দুজনকে বিয়ে দেওয়া হবে। বিষয়টি তারা অবগত হওয়ার পর ওই বাল্য বিয়ে বন্ধ করতে গতকাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করলে তিনি পেকুয়া থানার ওসিকে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য মৌখিক নির্দেশ প্রদান করেন।
লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বিগত ১ সেপ্টেম্বর মোর্শেদ আলমকে রুনা আকতারের পরিবার ডেকে নিয়ে যায়। এরপর থেকে তাকে আর খোঁজে না  পাওয়ায়  ছেলের মাতা হাসিনা বেগম বাদী হয়ে পেকুয়া থানায় সাধারণ ডায়েরী করেণ। পরে বিষয়টি মেয়ের পরিবার অবগত হয়ে তাদের দুজনকে অজ্ঞাতস্থানে নিয়ে বাল্য দেওয়ার চেষ্টা করলে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তাকে মুঠোফোনে (তিনি ছুটিতে থাকায়) বিষয়টি অবগত করেন ছেলের পরিবার।
ছেলে মোর্শেদ আলমের মাতা হাসিনা বেগম এ প্রতিবেদককে জানান, আমার একমাত্র ছেলে মোর্শেদের বয়স এখনো ১৭ বছর। গত কয়েকদিন ধরে আমার ছেলের খোঁজ না পাওয়ায় আমরা খুবই মর্মাহত ছিলাম। এমনকি আমার হার্ডেও রোগটিও চরম আকার ধারণ করে। পরে বিভিন্ন মাধ্যমে খবর নিয়ে জানতে পারি শফি আলমের অপ্রাপ্ত কণ্যার সাথে একটি অজ্ঞাতস্থানে বাল্য বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। আমি আমার ছেলেকে ফেরত চাই আর বাল্য বিয়ে দেওয়ার চেষ্টাকারীকে আইনের আওতায় আনার দাবী জানাচ্ছি।
গতকাল সরোজমিন কণ্যার বাড়িতে গেলেও তাদের কাউকে না পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com