1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :

পেকুয়ায় ষ্ট্যাম্প জালিয়াতির মাধ্যমে এক অসহায়ের বসতভিটা জবর দখলরে চেষ্টা

  • আপডেটের সময় : বুধবার, ১২ আগস্ট, ২০১৫
  • ৮ দেখা হয়েছে

এস.এম.ছগির আহমদ আজগরী,পেকুয়া :
কক্সবাজারের পেকুয়ায় শালিষের নামে নেয়া ষ্ট্যাম্প জাল জালিয়াতি প্রতারণার আশ্রয়ে এক অসহায়ের বসতভিটা জবর দখল পাঁয়তারার গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘঠেছে, উপজেলার সদর ইউনিয়নের মঈয়াদিয়া গ্রামের বকশু চৌকিদারপাড়া এলাকায়। এঘটনার প্রতিকার কামনায় ভুক্তভুগী কৃষক সংশ্লিষ্ট সকল মহলের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন। জানা যায়, স্থানীয় নুরুল আবছার প্রকাশ পেঁচু মিয়া পারিবারিক সম্মতি, সামাজিক রীতিনীতি ও ধর্মীয় অনুশীলনের ইসলামী শরা মোতাবেক তার পুত্র মোঃ ওসমানকে বিয়ে করান চকরিয়া উপজেলার কোনাখালী ইউনিয়নের পুরুইত্যেখালী এলাকার মন্নান মিয়ার মেয়ে পারুল আক্তারকে। একপর্যায়ে দাম্পত্য কলহের জের ধরে পুত্রবধূ তার পিত্রালয়ের আশ্রয়ে চলে যান। পরে, এনিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে টানাপোড়ন দেখা দিলে চলে নানা দেন দরবার ও সামাজিক শালিষী বৈঠক। এনিয়ে পুত্রবধু পারুল আক্তারের পিতৃপক্ষ সামাজিক সমঝোতায় খালি জুড়িশিয়াল ষ্ট্যাম্পে বর ওসমান ও তার পিতা নুরুল আবছারের কাছ থেকে স্বাক্ষর টিপসহি সমেত মুছলেখা প্রদানের ভিত্তিতে শশুর বাড়িতে নববধু পারুল আক্তারকে শশুরালয়ে ফেরত পাঠাবে অন্যথায় নয় বলে মত দেন। এনিয়ে উভয় পক্ষের লোকজন দফায় দফায় শালিষী বৈঠকের সিদ্ধান্তের সম্মতিতে বর ওসমান ও তার পিতা নুরুল আবছার প্রকাশ পেঁচু মিয়ার কাছ থেকে পুত্রবধু পারুল আক্তারের পিতা বরপক্ষের কাছ থেকে স্বাক্ষর টিপসহি সমেত খালি জুড়িশিয়াল ষ্ট্যাম্প হাতিয়ে পুনরায় কনে পারুল আক্তারকে স্বামী ওসমানের কাছে ফিরিয়ে দেন। কিন্তু কিছুদিন যেতে না যেতেই পুত্রবধু পারুল আক্তার ফের পিত্রালয়ে ফিরে যায়। একপর্যায়ে ওই নববধু পারুল আক্তার শশুরের কাছ থেকে হাতিয়ে নেয়া খালি জুড়িশিয়াল ষ্ট্যাম্পটিতে শশুরের কাছ থেকে ১লক্ষ ৩০হাজার টাকায় শশুরের ভোগদখলীয় মাথা খিলা ১২শতক জায়গা খরিদ করলেও তার দখল বুঝিয়ে না দেয়ার কথা উল্লেখ করে চকরিয়া থানায় একখানা লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। চকরিয়া থানা বিষয়টি সরোজমিন তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনে ওসি পেকুয়া থানা বরাবরে প্রেরণ করলে পেকুয়া থানার ওসি থানার এ.এস.আই খালেদ মোশারফ নামীয় এক সহকারী দারোগাকে দায়িত্ব দেন। তদন্ত কর্মকর্তা এএসআই খালেদ মোশারফ উক্ত অভিযোগের ভিত্তিতে দু’পক্ষকে থানায় তলব করে নোটিশ দেন। নোটিশ পেয়ে পারুল আক্তারের শশুর নুরুল আবছার প্রকাশ পেঁচু মিয়া তার পুত্র বর মোঃ ওসমান স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ গোলাম ছোবহান এমইউপি, সমাজ সর্দ্দার ফরহাদুজ্জামান চৌধুরী মানিক, মৃত আবুল খাইরের পুত্র নেজাম উদ্দিন, খালেক, কামাল ও বাদী পক্ষের উপস্থিত লোকজনের বক্তব্যে পিত্রালয়ে চলে যাওয়া পুত্রবধু পারুল আক্তারকে ফিরিয়ে পাওয়ার বিষয়ে শশুর নুরুল আবছার ও বর ওসমানের কাছ থেকে হাতিয়ে নেয়া খালি জুড়িশিয়াল ষ্ট্যাম্পটিকে জালিয়াতির বিষয় বলে প্রমানিত হলে তদন্ত কর্মকর্তা হাতিয়ে নেয়া অলিখিত জুড়িশিয়াল ষ্ট্যাম্পখানা ফেরত দেওয়ার নির্দ্দেশ দিলেও কতিথ বাদী পুত্রবধু পারুল আক্তার সেটি ফিরিয়ে না দেয়ায় তদন্ত কর্মকর্তা এএসআই খালেদ মোশারফ তৎবিষয়ে গত ৯জুলাই-১৫ইং তারিখে নিজ স্বাক্ষরিত পত্রে চকরিয়া থানা বরাবরে তার তদন্ত প্রতিবেদন প্রেরণ ও তৎবিষয়ে শশুর নুরুল আবছারের পক্ষে থানায় একটি জিডি নথিভুক্ত করেন। যার জি.ডি নং-২৬৩/১৫ইং। অন্যদিকে, অসহায় শশুর নুরুল আবছারের পক্ষে ওসমানের শশুরবাড়ি চকরিয়া ও পেকুয়া থানার শালিষী বৈঠকে অংশগ্রহনকারী প্রভাবশালী শালিষকাররা বিষয়টি তারা স্থানীয় ভাবে সুরাহা দেয়ার মিথ্যা আশ^াস দিয়ে অসহায় শশুর নুরুল আবছারের স্ত্রী মমতাজ বেগমের কাছ থেকে ২য় দফায় নন্ জুড়িশিয়াল খালি ষ্ট্যাম্পে তার স্বাক্ষর ও টিপসহি হাতিয়ে নিয়ে অসহায় শশুর নুরুল আবছারের বসতভিটা ও জায়গা জমি প্রতারক পুত্রবধু পারুল আক্তারের এওয়াজনামায় খরিদ করে নিয়েছেন জানিয়ে তার দখল নিতে মরিয়া হয়ে পড়েছেন বলে ভুক্তভুগী অসহায় শশুর নুরুল আবছার এ প্রতিবেদককে অভিযোগ করেন। এবিষয়ে ঘটনার তদন্ত কর্মকর্তা পেকুয়া থানার এ.এস.আই খালেদ মোশারফের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, নুরুল আবছারের পুত্র ওসমানের স্ত্রী পারুল আক্তার তার শশুরের কাছ থেকে সু’কৌশলে খালি নন্ জুড়িশিয়াল ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর টিপসহি হাতিয়ে নিয়ে জাল জালিয়াতির আশ্রয়ে শশুরের বসতভিটা দখলে নেয়ার পাঁয়তারায় লিপ্ত হয়ে চকরিয়া থানায় যে অভিযোগ দায়ের করেছেন তা মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন প্রমানিত হওয়ার পরও হাতিয়ে নেয়া প্রকৃত খালি ষ্ট্যাম্পটি থানার শালিষী বৈঠকে উপস্থাপন ফিরিয়ে দিতে না পারায় তৎবিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে তদন্ত প্রতিবেদন প্রেরণ করা হয়েছে। তবে, অসহায় শশুর নুরুল আবছারের স্ত্রী মমতাজ বেগমের কাছ থেকে স্থানীয় প্রভাবশালী সমাজ সর্দ্দারদের স্বাক্ষর টিপসহি সমেত খালি নন্ জুড়িশিয়াল ষ্ট্যাম্প হাতিয়ে নেয়া ও বসতভিটা জবরদখল পাঁয়তারার বিষয়ে তিনি অবগত নয় বলে মন্তব্য করেন। এবিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ গোলাম ছোবহান এমইউপি ও সমাজ সর্দ্দার মোঃ জেব্রিছ চৌধুরী কতিথ শালিষকারদের জাল জালিয়াতি প্রতারনার আশ্রয়ে অসহায় শশুর নুরুল আবছারের বসতভিটা ও জায়গা জমি জবরদখল পাঁয়তারার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে তার যথাযথ সুরাহা কামনা করেছেন। পেকুয়া থানার ওসি মোঃ আবদুর রকিব এধরনের কোন অভিযোগ এখনো তিনি পাননি মন্তব্য করে বলেন, অভিযোগ পেলে তদন্ত্র পূর্বক যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেবে পুলিশ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com