1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

ফেনীতে ইয়াবা জব্দ – ডা. শাহ আলম ও রুবেলকে খুঁজছে পুলিশ

  • আপডেটের সময় : সোমবার, ২৯ জুন, ২০১৫
  • ১৯৫ দেখা হয়েছে

ফেনীতে ৬ লাখ ৮০ হাজার ইয়াবা আটকের ঘটনায় আটক পুলিশের এসবি শাখার এএসআই মাহফুজুর রহমানের সহযোগী ইয়াবা ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন আদালতে ১৬৪ ধারায় ঢাকার ডাক্তার শাহ আলম ও কুমিল্লার রুবেলের নাম উল্লেখ করে। জবানবন্দিতে সে জানায়, কয়েক বছর আগে ঢাকায় ডাক্তার শাহ আলম মাধ্যমে এএসআই মাহফুজুর রহমানের সাথে তার পরিচয় হয়। শবেবরাতের পর দিন এএসআই মাহফুজুর রহমান তাকে ১৭শ’ পিস ও ৯শ’ পিস ইয়াবা ভর্তি দুটি ব্যাগ দেয়। একটি ব্যাগে ওই ব্যাগ দুটো তিনি কুমিল্লার চান্দিনার রুবেলের কাছে পৌঁছে দেয়। এছাড়াও ইয়াবাসহ তিন বার আটক করে এএসআই মাহফুজ তাকে ছাড়িয়ে নেয়। গত শনিবার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আলমগীর মোহাম্মদ ফারুকীর আদালতে ৬ পৃষ্ঠার জবানবন্ধী গ্রহণ করে।
এর আগে মাহফুজের স্বীকারোক্তী ও তার কাছ থেকে জব্দ হওয়া নোটবুকে হাইওয়ে পুলিশের কুমিল্লা রেঞ্জের কুমিরা ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক আশিকুর রহমান, কক্সবাজার জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক মো. বেলাল, কক্সবাজার ডিবি পুলিশের এসআই আমিরুল ইসলাম, ডিবি পুলিশের এসআই কামাল আব্বাস, আশিকের ভাই কক্সবাজার ডিবি পুলিশের এসআই (বর্তমানে মহেশখালী থানায় কর্মরত) আনিসুর রহমান, তোফাজ্জল হোসেন, কাশেম, আজাদ, গিয়াস মামা, গিয়াস, গোবিন্দ দা, সেলিম, শাহিন, অ্যাডভোকেট জাকির, হাইকোর্টের মুহুরি মোতালেব, এসআই আমিরের বন্ধু, মামা হান্নান (কুমিল্লা) জড়িত থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হয় র‌্যাব।
ওই সিন্ডিকেট তিন মাসে আড়াইশ’ কোটি টাকার লেনদেন করার তথ্য র‌্যাব জানায়। নোটবুকে পাওয়া যায় তারা তোফাজ্জল হোসেন এক কোটি ৫০ লাখ ৯২ হাজার, কাশেম ৪৩ লাখ ৪০ হাজার, আজাদ ছয় লাখ, গিয়াস মামা ৬৫ লাখ ৬০ হাজার, গিয়াস এক কোটি ৮০ লাখ, গোবিন্দ দা চার লাখ, সেলিম ৩৮ লাখ ৩৭ হাজার, শাহিন আট লাখ ৯০ হাজার, অ্যাডভোকেট জাকির ৬৩ লাখ ১০ হাজার, হাইকোর্টের মুহুরি মোতালেব ২০ কোটি, ৩৭ লাখ ৪ হাজার, এসআই আমিরের বন্ধু চার লাখ ১০ হাজার, মামা হান্নান (কুমিল্লা) ২১ লাখ ৭০ হাজার এবং এসআই আশিক (চট্টগ্রাম) ৪৬ লাখ টাকা লেনদেন করে। ইয়াবা পাচার চক্রের সাথে গিয়াস উদ্দিনের জবানবন্ধিতে পাওয়া এ দুইজন জড়িত কিনা তা খতিয়ে দেখছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।
ফেনী মডেল থানা পরিদর্শক (তদন্ত) ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহীনুজ্জামান বলেন, আটককৃতরা জবানবন্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিচ্ছে। এগুলো যাচাই-বাচাই করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
উল্লেখ্য, গত ২০ জুন রবিবার রাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফেনী বাইপাস অংশের লালপুল থেকে ৬ লাখ ৮০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ এসবি পুলিশের এএসআই মাহফুজুর রহমান (৩৫) ও তার গাড়ী চালক মোঃ জাবেদ আলীকে (২৯) আটক করে র‌্যাব। এ সময় তাদের কাছ থেকে মাদক বিক্রির নগদ ৭ লাখ টাকা, ৪টি মোবাইল সেট, বিভিন্ন ব্যাংকের ৮ ক্রেডিট কার্ড ও ৩টি মাদক বিক্রির টাকার হিসেবের নোটবুক উদ্ধার করে র‌্যাব।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com