1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

বদরখালী বাজারে নৌ-পুলিশের হাবিলদারকে ম্যানেজ করে সিনেমা হলে চলছে অশ্লীল ছায়াছবি

  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ৬ আগস্ট, ২০১৫
  • ৪৭ দেখা হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক :  
চকরিয়া উপজেলার সাগর ও নদী বেষ্টীত ইউনিয়ন বদরখালী বাজারটি উপকূলীয় এলাকার সর্ববৃহত্তম বাজার। জানা গেছে, এ বাজারে কয়েকটি দোকানে দীর্ঘদিন ধরে অশ্লীল ছায়াছবির প্রদর্শনী চলে আসলেও তা বন্ধে প্রশাসনিক কোন উদ্যোগ পরিলক্ষিত হচ্ছেনা বলে অভিযোগ করেছেন স্থানিয় লোকজন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানিয় লোকজন জানান, বন্যার ক্ষত শোকাতে না শোকাতে বদরখালী নৌ-পুলিশের আইসির অঘোচরে পুলিশের হাবিলদার নারায়ণ চক্রবর্তীকে মিনি সিনিমে হল মালিকরা মাসিক মাসেহারা দিয়ে বদরখালী বাজারের মিনি সিনেমা হলে চলছে অশ্লীল ছায়াছবির জমজমাট প্রর্দশনী। তাই সংশ্লিষ্ট প্রশাসন রয়েছে নির্বিকার। গত ৫ আগষ্ট বুধবার বিভিন্ন অনলাইন গণমাধ্যমে নৌ-পুলিশের টি.এস আই হাবিলদার নারায়ণ চক্রবর্তীর বেপরোয়া চাঁদাবাজিতে অতিষ্ট হয়ে পড়েছে মহেশখালীর উপজেলার আগত লোকজন সহ এলাকার ব্যবসায়ী ও  বদরখালী কেবি জালাল উদ্দিন সড়কে চলাচলরত গাড়ীর ড্রাইভার বলে তথ্য বহুল সংবাদও প্রকাশিত হয়।
জানা গেছে, বাজারে পশ্চিম পার্শ্বে রবি টাওয়ার সংলগ্ন এলাকায় আবু মুছার দোকানে হেলাল উদ্দিন ও তার ৩০/৪০ গজ উত্তরে জনৈক শাহ জাহান সিনেমা হলের স্টাইলে টিকিটের এর ভিত্তিতে দরজায় পর্দা টাঙ্গিয়ে রাত দিন অশ্লীল সিনেমা প্রর্দশন করে আসছে। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দিনের বেলায় বাংলাদেশ ও ইন্ডিয়ান হিন্দি ছায়াছবির প্রর্দশনী হলে ও রাতে জমে উঠে নীল ছায়াছবির প্রর্দশনী হয় বলে পার্শ্ববর্তী দোকান মালিকও ব্যবসায়ীরা জানান। রাত গভীর হয়ে আসতেই অশ্লীল (ব্লু ফিল্ম) প্রর্দশনীর ছবি প্রর্দশনী শুরু হয়। একই ভাবে বাজারের দক্ষিণ পার্শ্বেও ফেরীঘাট সংলগ্ন ১/২ টি দোকানে পর্দা লাগিয়ে রাত দিন ব্লু ফিল্ম প্রর্দশীত হয়ে আসছে। সাথে এসব মিনি সিনেমা হলে দৈশিয় তৈরী মাদকের ব্যবস্থাও রাখা হয় বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানিয় সচেতন লোকজন জানান, স্কুল কলেজ ও মাদ্রাসার উঠতি বয়সের ছাত্ররাই এসব প্রর্দশনীর মুল দর্শক। এর বাইরে বাজারের দোকানের কর্মচারী, রিক¥াচালক সহ শ্রমজীবি লোকজনও এসব প্রর্দশনীর দর্শক। এসব নীল ছবি প্রর্দশনীর ফলে নতুন প্রজন্মের শারীরিক  মানসিক বিকাশ মারাত্মক ভাবে বাধাগ্রস্ত হওয়ার শংকা দেখা দিয়েছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে,অথচ এসব মিনি সিনেমা হলের ৬’শ গজের মধ্যে স্থানিয় নৌ পুলিশ ফাঁড়ির কার্যালয়। সচেতন লোকজন জানান, পুলিশ ফাঁড়িতে দায়িত্বরত হাবিলাদার নারায়ণ চক্রবর্তী চাইলে এসব মিনি সিনেমা হল বন্ধ করতে প্রদক্ষেপ নিতে পারেন? এবং উর্ধŸতন প্রশাসনকে জানাতে পারেন। কিন্তু তিনি প্রদক্ষেপ নিচ্ছেনা কেন সচেতন লোকজনের মাঝে কৌতুহল সৃষ্টি হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন হল মালিক সাংবাদিকদের জানান, বদরখালী নৌ-পুলিশের হাবিলদার নারায়ণ চক্রবর্তীকে সুযোগ সুবিধা দিয়ে তারা মিনি সিনেমা হল চালু করেছেন।  তাই তাদের প্রশাসনের জামালে পোহাতে হয়না। এসব নীল ছবির মিনি সিনেমা হল বন্ধ করার জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে দাবী জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসী।

এই বিভাগের আরও খবর

  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com