1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ গঠনের অনুমোদন

  • আপডেটের সময় : সোমবার, ৩১ আগস্ট, ২০১৫
  • ৩১ দেখা হয়েছে

কক্সবাজার আলো ডেস্ক :
বিনিয়োগ বোর্ড ও প্রাইভেটাইজেশন কমিশন বিলুপ্ত করে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ গঠনের নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। সোমবার (৩১ আগস্ট) সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ কর্তৃপক্ষ গঠনে ‘বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ আইন-২০১৫’ এর খসড়া অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকের পর সম্মেলন কক্ষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা এ তথ্য দেন। মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ আইনের চূড়ান্ত অনুমোদন ও জাতীয় সংসদে পাসের পর এটি কার্যকর হলে বিনিয়োগ বোর্ড ও প্রাইভেটাইজেশন কমিশন বিলুপ্ত হবে। তবে বিনিয়োগ বোর্ড ও প্রাইভেটাইজেশন কমিশনের কোনো কর্তকর্তা-কর্মচারীর চাকরি যাবে না। বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তা-কর্মচারী হবেন তারা। এ ক্ষেত্রে কোনো সমস্যা হলে প্রচলিত আইনে সমাধান করা হবে।
মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা বলেন, ১৯৮৯ সালে বিনিয়োগ বোর্ড আইন দ্বারা গঠিত হয়েছে। এর লক্ষ্য বিনিয়োগ বৃদ্ধি ও বিনিয়োগে উৎসাহিত করা। বোর্ডের কাজ- নিবন্ধন, অনুমোদন, সুযোগ-সুবিধা প্রদান ইত্যাদি।
এ বোর্ডে একটি পরিচালনা পর্ষদ রয়েছে। এর চেয়ারম্যান প্রধানমন্ত্রী। আর নির্বাহী প্রধান নির্বাহী চেয়ারম্যান।
মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, ১৯৯৩ সালে রেজুলেশন করে বেসরকারিকরণ আইনের মাধ্যমে প্রাইভেটাইজেশন বোর্ড গঠন করা হয়। পরবর্তীতে এটিকে প্রাইভেটাইজেশন কমিশন করা হয়। প্রাইভেটাইজেশন কমিশনের কাজ সরকারি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান চিহ্নিত করে তা বিক্রি করে দেওয়া। ২০০০ সাল থেকে গত ১৫ বছরে প্রত্যাশিত মাত্রায় ফলাফল অর্জিত হয়নি। এ পর্যন্ত দেশে ৫৮টি প্রতিষ্ঠান বেসরকারিকরণ করা হয়েছে। আর শেয়ার আপডেট করা হয়েছে ২৩টি প্রতিষ্ঠানের। সরকার অনুভব করছে প্রতিষ্ঠান লাভজনক হলে চালানো হবে। আর অলাভজনক হলে বিক্রির নিষ্ফল প্রয়োগ না চালিয়ে লাভবান কাজে অব্যবহৃত সম্পত্তির ব্যবহার নিশ্চিত করা হবে। কারণ, বিক্রি করলে দাম পাওয়া যায় না।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী চাইছেন, বিনিয়োগ বোর্ড ও প্রাইভেটাইজেশন কমিশন মার্জ/এমালগেমেট করা। এ প্রেক্ষাপটে প্রধানমন্ত্রী আমাকে নির্দেশনা দিয়েছিলেন, আমরা একটি কমিটি করে দিয়েছিলাম। প্রস্তাবিত প্রতিষ্ঠানের জন্য এ কমিটি আইনের খসড়া করবে এবং প্রতিষ্ঠানের অর্গানোগ্রাম তৈরি করবে। কমিটি দু’টি কাজই করেছে।
আমরা (মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ) খসড়া করে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠিয়েছিলাম। প্রধানমন্ত্রী তার উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমানের কাছে পাঠিয়েছিলেন। খসড়াটিকে ভিত্তি ধরে তা পরিমার্জন করে অনুমোদনের জন্য মন্ত্রিসভায় উপস্থাপন করা হয়। মন্ত্রিসভা আজ নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে। এরপর আইন মন্ত্রণালয়ের ভেটিংয়ের পর চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য উপস্থাপিত হবে। মন্ত্রিসভার অনুমোদন ও জাতীয় সংসদে পাসের পর আইন কার্যকর হলে বিনিয়োগ বোর্ড ও প্রাইভেটাইজেশন কমিশন বিলুপ্ত হবে।
এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বাংলাদেশ ইনভেস্টমেন্ট ডেভেলপমেন্ট অথরিটি) আইনের খসড়াটি অনুমোদন দেওয়া হয়।
এ কর্তৃপক্ষের একটি গভর্নিং বোর্ড থাকবে। বোর্ডের প্রধান চেয়ারম্যান থাকবেন প্রধানমন্ত্রী। ভাইস চেয়ারম্যান থাকবেন অর্থমন্ত্রী।
১৭ সদস্যের এই বোর্ডে কৃষিমন্ত্রী, শিল্পমন্ত্রী, বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী, পরিকল্পনামন্ত্রী, বিদ্যুৎ ও জ্বালানিমন্ত্রীসহ কয়েকটি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী থাকবেন। আর ছয়জন থাকবেন অন্য সদস্য। –

এই বিভাগের আরও খবর

  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com