1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

বৃষ্টি বাগড়ায় ৬৯ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ

  • আপডেটের সময় : বুধবার, ২২ জুলাই, ২০১৫
  • ৪৮ দেখা হয়েছে
Bangladesh cricketers Mohammad Mahmudullah (R) and Tamim Iqbal (L) run between the wickets during the second day of the first cricket Test match between Bangladesh and South Africa at the Zahur Ahmed Chowdhury Stadium in Chittagong on July 22, 2015. AFP PHOTO/ Munir uz ZAMAN (Photo credit should read MUNIR UZ ZAMAN/AFP/Getty Images)

চট্টগ্রাম: প্রথমে বৃষ্টি থামার পর মাত্র একটি বল গড়ানোর সুযোগ পায়। বুধবার শেষ বিকেলে দ্বিতীয় দফায় বৃষ্টি নামলে আর খেলা শুরু করা সম্ভব হয়নি।দ্বিতীয় দিনের ২৩ ওভারের মত খেলা পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন আম্পায়াররা। ফলে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম ইনিংসের চেয়ে স্বাগতিক বাংলাদেশ এখনো ৬৯ রানে পিছিয়ে রয়েছে। বাংলাদেশের হাতে রয়েছে আরো ছয়টি উইকেট। ক্রিজে রয়েছেন ১৬ রান নিয়ে অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম এবং সাকিব আল হাসান ১ রান নিয়ে। দলের সংগ্রহ ৪ উইেকেটে ১৭৯। এখান থেকেই বাংলাদেশ আগামীকাল বৃহস্পতিবার তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করবে। এর আগে চট্টগ্রাম টেস্টে সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম ইনিংসে ২৪৮ রানে গুটিয়ে যায়। মুস্তাফিজুর রহমান আর যুবায়ের হোসেনের বোলিং নৈপূণ্যে তারা প্রথম দিনেই অলআউট হয়। এরপর দিনের শেষভাগে বাংলাদেশ দুই ওভারে ৭ রান তোলে। তামিম ইকবাল ১ এবং ইমরুল কায়েস ৫ রানে অপরাজিত থাকেন। সেখান থেকেই দুজন বুধবার দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করেন। বেশ সতর্কতার সঙ্গে খেলতে থাকেন তারা। তবে দলীয় ৪৬ রানে স্টিয়ান ফন জিলের স্লো-মিডিয়াম বলে স্ট্যাম্পিং হয়ে সাজঘরে ফেরেন ইমরুল কায়েস। তিনি ৭৩ বলে তিন বাউন্ডারিতে ২৬ রান করেন। দলীয় ৫৫ রানের মাথায় সিমন হারমারের দারুণ এক ঘূর্ণিতে বলের লাইন মিস করে সরাসরি বোল্ড হন মুমিনুল হক। তামিমের সঙ্গে মাত্র ৯ রানের জুটি গড়ে ব্যক্তিগত ৬ রান করে বিদায় নেন মুমিনুল। এরপর তামিম ইকবাল মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে নিয়ে প্রতিরোধের দেয়াল গড়ে তোলেন। কিন্তু দলীয় ১৪৪ রানে ৮৯ রানের সেই দেয়ালে ফাটল ধরান ডিন এলগার। তার ফুলটস বল তামিম লেগে সুইপ করতে গিয়ে লাইন মিস করলে লেগ স্ট্যাম্প উড়ে যায়। তামিম ১২৯ বলে তিন বাউন্ডারিতে করেন ৫৭ রান। তবে অপরপ্রান্ত আগলে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ তার অর্ধশতক তুলে নেন। চা-বিরতির পরপরই তিনি ফিল্যান্ডারের বলে এলবিডব্লিউ হন। মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে ৩৪ রানের জুটি গড়া মাহমুদুল্লাহ করেন ১৩৮ বলে ১০ বাউন্ডারিতে ৬৭ রান। তার বিদায়ের পর মাত্র চারটি বল গড়িয়েছে। এরপর বিকেল তিনটা ১২ মিনিটে বৃষ্টি নামে। বিকেল চারটা পাঁচ মিনিটে খেলা পুনরায় শুরু হলে এক বল পরেই আবার বৃষ্টি নামে। এতে করে খেলা ফের বন্ধ হয়ে যায়। যেখান থেকে আর শুরু করা সম্ভব হয়নি। এর আগে মঙ্গলবার প্রথম দিনে সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকা তাদের প্রথম ইনিংসে ২৪৮ রান করে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৪ রান করেন টেম্বা বাভুমা। বাংলাদেশের পক্ষে অভিষেকে মুস্তাফিজুর রহমান নেন ৪ উইকেট। এছাড়া স্পিনার যুবায়ের হোসেন পান ৩ উইকেট। সফরে ইতোমধ্যে প্রোটিয়ারা দুটি টি-২০ এবং তিনটি ওয়ানডে খেলেছে। টি-২০ সিরিজ জিতলেও তারা ওয়ানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে টাইগারদের কাছে হেরে গেছে।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com