1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :

ভরা মৌসুমেও দাম কমছে না ইলিশের

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
  • ৮ দেখা হয়েছে

বৈশাখী ইলিশের উত্তাপ বেশি। ওই সময় পাশের বাড়ির ইলিশ ভাজার সুবাস নিয়েই থাকতে হয় নিম্নবিত্তদের। জিভে স্বাদ চাখা যায় না। আশা ছিলো, ভরা মৌসুমে দাম কমবে। কিন্তু কপাল মন্দ। বাজারে সরবরাহ বাড়লেও দাম কমেনি’।

রাজশাহীর সাহেববাজার এলাকার মাছপট্টিতে শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে আক্ষেপের সুরে কথাগুলো বলছিলেন কুমারপাড়া এলাকার মোসলেম উদ্দিন। দাম না কমার পেছনে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের দোষ দেন তিনি।

কেবল মোসলেম উদ্দিনই নন, ভরা মৌসুমে প্রচুর সরবরাহ থাকার পরও সেই অনুযায়ী দাম না কমায় সাধারণ ক্রেতাদের অনেকেই এখন ইলিশ ব্যবসায়ীদের ওপর ক্ষুব্ধ।

রাজশাহীর নিউমার্কেট এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে মিনি ট্রাকে করে ইলিশ মাছ আসা শুরু করে। সেখানেই পাইকারি দরে ইলিশ কিনে নেন মাছের ঠিকাদার ব্যবসায়ীরা। নিলামে হাঁক ডাকের পরে সর্বোচ্চ দরদাতার হাতে চলে যায় ইলিশের ঝাঁপি। সেখান থেকে আড়ত হয়ে চলে যায় বিভিন্ন খুচরা বাজারে।

খুচরা বিক্রেতা হোসেন আলী বাংলানিউজকে বলেন, ‘এ আড়ত থেকেই ইলিশ কিনি। এখন ১ কেজি থেকে ১ কেজি ৩শ’ গ্রামের ইলিশও আসছে। গত বছরও এমন সাইজের মাছ চোখে পড়েনি’।

তিনি বলেন, ‘এবার জাটকা নিধন নিয়ন্ত্রণে থাকায় এটা সম্ভব হয়েছে। কিন্তু বড় আকারের ইলিশ ও প্রচুর সরবরাহ থাকলেও তুলনামূলকভাবে দাম কমেনি বাজারে। দুই হাত ঘুরে পাইকারি আড়ত থেকে খুচরা বাজারে ইলিশ যাওয়ার পর প্রতি কেজি ইলিশ ৫০ টাকা থেকে ১শ’ টাকা বেশি দরে বিক্রি করতে হচ্ছে। আর তিন হাত ঘুরে ক্রেতা সাধারণের ব্যাগে ইলিশ যাওয়ার পর দাম বেশি পড়ছে’।

তিনি আরও বলেন, ‘ঈদের পর শনিবারের খুচরা বাজারে ৩শ’ ৫০ গ্রাম থেকে ৪শ’ গ্রামের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৪শ’ টাকা কেজি দামে। আমি পাইকারি কিনেছি ৩শ’ ৫০ টাকা দরে। ৭শ’ থেকে ৯শ’ গ্রামের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৬শ’ টাকা থেকে ৮শ’ টাকা দরে। যা পাইকারি কিনতে হয়েছে ৫শ’ ৫০ টাকা থেকে ৭শ’ টাকা দরে’।

‘আর এক কেজির ওপরের মাছের দাম ৯শ’ থেকে ১ হাজার ২শ’ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। যা পাইকারি কেনা হয়েছে ৮শ’ ৫০ টাকা থেকে ১ হাজার ১শ’ ৫০ টাকা দরে’।

মাছের ঠিকাদার, আড়তদার হয়ে খুচরা ব্যবসায়ীদের ডালিতে উঠতে গিয়ে প্রথমে এভাবেই ইলিশের দাম বাড়ছে বলে জানান খুচরা মাছ বিক্রেতা হোসেন আলী।

নিউমার্কেট এলাকার আড়তদার সালেক উদ্দিন বাংলানিউজকে বলেন, ঈদের পর এখন সরবরাহ আরও বেড়েছে। কিন্তু মোকামেই দাম বেশি থাকায় তারা খুব একটা কমাতে পারছেন না।

তিনি বলেন, মিনি ট্রাকে করে প্রতিদিন তিন থেকে চার ট্রাক ইলিশ আসছে বরিশাল থেকে। নিলামের পর মাছের ঠিকাদারের হাত ঘুরে আসছে আড়তে। ফলে এখানে ওজন ভেদে এমনিতেই কেজি প্রতি মাছ ৫০ টাকা থেকে ১শ’ টাকা বেড়ে যাচ্ছে।

তবে কোনো ক্রেতা ফ্রিজে রেখে খাওয়ার জন্য তিন থেকে পাঁচ কেজি মাছ কিনতে চাইলে তাকে আড়তের দরেই দেওয়া হচ্ছে বলে দাবি করেন এই আড়তদার।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com