আন্তর্জাতিক

মঙ্গল গ্রহের পথে আমিরাতের প্রথম মহাকাশ যাত্রী হাজ্জা আল মানসুরি

46views

 

মুহাম্মদ শাহ জাহান, আমিরাত প্রতিনিধিঃ
গতকাল  স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৫টা ৫৭ মিনিটে সংযুক্ত আরব আমিরাতের  হাজ্জা আল-মানসুরি(৩৪) রাশিয়ার সয়ুজ এমএস -১৫ মহাকাশযানে করে আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশন (আইএসএস)  মিশনে কাজাখস্তানের বাইকনুর থেকে সরাসরি ঐতিহাসিক মহাকাশ যাত্রা শুরু করেন। মহাকাশযানটি আল মানসুরি সহ ৩ সদস্যের ক্রু বহন করেছেন ।

আলমানসুরি রুশ সেনাপতি ওলেগ স্ক্রিপোচকা এবং  নভোচারী জেসিকা মিরের সাথে কাজাখস্তানের বাইকনুর কসমোড্রোম থেকে  মহাকাশে যাত্রা করেন। রিজার্ভ আমিরাতি  নভোচারী সুলতান আলনেয়াদিও নাসার রাশিয়ান কমান্ডার সের্গেই রাইহিকোভ এবং টমাস মার্শবার্নের সাথে বৈকনুরে ছিলেন।
সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং আরব বিশ্ব জুড়ে মহাজাগতিক গৌরব অর্জনে এটি  সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রতিষ্ঠাতা পিতা শেখ জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ানের দৃষ্টিভঙ্গি অনুধাবনের ও  ইতিহাস গড়ার পদক্ষেপ।


সংযুক্ত আরব আমিরাত গঠনের এক দশক আগে রাশিয়ার ইউরি গাগারিন প্রথম ব্যক্তি হয়েসবার  ১৯৬১  সালে মহাকাশে প্রবেশ করেন। ১৯৭৬ সালে স্বপ্নদর্শী শেখ জায়েদ মার্কিন নভোচারী এবং অ্যাপোলো মহাকাশ কর্মসূচির সদস্যদের সাথে সাক্ষাত করেছিলেন। সেই বৈঠককালে প্রয়াত শেখ জায়েদকে মুন রকের একটি ছোট্ট টুকরো উপহার দিয়েছিলেন, প্রাক্তন মার্কিন রাষ্ট্রপতি রিচার্ড নিকসনের পক্ষ থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতের উপহার। যদিও ইতিহাসের এই অংশটি আল আইন জাদুঘরে প্রদর্শিত রাখেন।  সংযুক্ত আরব আমিরাত আইএসএসে ১৯তম সফরকারী দেশ এবং হাজ্জাহ দৈত্যাকার ভাসমান ল্যাবটিতে ২৪০ তম পরিদর্শনকারী মহাকাশ যাত্রী।

আমিরাতের এই নভোচারী সাথে করে পবিত্র আল কোরআনের একটি কপি নিয়ে মহাকাশ ভ্রমণ শুরু করেন। এছাড়াও  পারিবারিক ছবি, খাঁটি সিল্কে বোনা সংযুক্ত আরব আমিরাতের পতাকা, ‘কিসাতি’ (আমার গল্প) নামক একটি গ্রন্থ, শায়খ জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ানের ছবি এবং ‘আল গাফ’ গাছের ৩০টি বীজ সাথে নিয়েছেন।
সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রথম এই নভোচারী আগামী ৩ অক্টোবর সকাল ১১টা ৩৪ মিনিটে হাজ্জা কাজাকিস্তানে ফিরে আসার কথা রয়েছে।

Leave a Response