1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :
শিরোনাম :
টেকনাফে সর্ববৃহৎ ক্রিস্টাল মেথ আইসের চালান জব্দ  সেন্টমার্টিনে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা ও বিদেশী অস্ত্র উদ্ধার সাবেক এমপি বদির বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির নির্দেশ বুধবার থেকে ফের ভার্চুয়ালি চলবে উচ্চ আদালত সেবা নিতে এসে মানুষ যেন হয়রানির শিকার না হন: প্রধানমন্ত্রী ৫০ বছর বয়সীরা পাবেন বুস্টার ডোজ বিশ্বের চট্টগ্রাম এসোসিয়েশন ও সমিতিগুলির ভার্চুয়াল সভায় বিশ্ব চট্টগ্রাম উৎসব করতে “আন্তর্জাতিক চট্টগ্রাম সমন্বয় কমিটি” গঠিত রামুতে হেডম্যানকে কূপিয়ে হত্যা  ঈদগাঁওতে মাস্ক ব্যবহার ও সামাজিক দুরত্বসহ স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছেনা নারায়ণগঞ্জ সিটিতে আইভীর হ্যাটট্রিক জয়

মনখালিতে বউয়ের অনৈতিক কাজে বাধা দেওয়ায় রক্তাক্ত শাশুড়ি

  • আপডেট : রবিবার, ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৫
  • ৬৪ দেখা হয়েছে

এম হেলাল উদ্দিন সাগর :
মনখালিতে বউয়ের অনৈতিক কাজে বাধা দেওয়ায় এক শাশুড়িকে রক্তাক্ত ও গুরুতর জখমের অভিযোগ পাওয়া গেছে। উখিয়া থানার জালিয়া পালং ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের মনখালির শাহ আলমের স্ত্রী মজুমা খাতুনের (৪৯) উপর চালানো হয় এই হামলা। ২৫শে ডিসেম্বর শুক্রবার সকালে শাহ আলমের নিজ বাড়িতে ঘটে এই ঘটনা। মজুমা খাতুনের বড় ছেলে কায়রুল আমিন দীর্ঘদিন ধরে প্রবাসে থাকায় পুত্রবধূ গুলবাহার বেগম (২৫) দুই সন্তানসহ শ্বশুরবাড়িতে আছেন। বেশকিছু দিন ধরে বউয়ের অনৈতিক চালচলন শ্বশুরবাড়ির লোকজন ও প্রতিবেশীদের চোখে পড়ে এবং এই নিয়ে কয়েকবার গ্রাম্য শালিসও হয়। এর প্রেক্ষিতে গত শুক্রবার বউকে সরাসরি অবৈধ কাজে লিপ্ত অবস্থায় দেখে শাশুড়ি চিৎকার করলে বউকে গুলবাহার বেগম, বউয়ের বোন জারো আক্তার, ভাই আব্দুল কাদের, ভগ্নীপতি আরকান প্রকাশ গনু ও অজ্ঞাত কয়েকজন মিলে অসহায় শাশুড়িকে বেধড়ক মারধর করে গুলবাহার বেগমকে নিয়ে বাপের বাড়ির চলে যায়। এ সম্পর্কে স্থানীয় ইউপি সদস্য সোলতান আহমদের সাথে হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। মজুমা খাতুনের ছোট ছেলে কক্সবাজার সিটি কলেজের ছাত্র ও জালিয়া পালং ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের ছাত্রলীগের সভাপতি মুফিদুল আলমের জয় বলেন, ভাবির অনেক অপকর্ম আমরা ধামাচাপা দিয়ে রেখেছিলাম কিন্তু ও আমার বৃদ্ধ মাকে এভাবে আঘাত করল যা আর চুপ করে থাকা যাবেনা। বর্তমানে মা কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আমরা মামলারুজুর প্রস্তুতি নিচ্ছি। শিগগিরি মামলা করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
© ২০১৪ - ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।
Site Customized By NewsTech.Com