1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি ছাত্রলীগ নেতার খোলা চিঠি

  • আপডেটের সময় : সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৫
  • ১৬ দেখা হয়েছে

বরাবরে
মাননীয় সভাপতি
বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, কেন্দ্রীয় কমিটি।
সেদিন ফেইসবুকে দেখলাম কক্সবাজারের কোন এক নার্সারি মালিক আপনার নিকট খোলা চিঠি পাঠিয়েছেন। এখন প্রায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে বিভিন্নজনের খোলা চিঠি দেখতে পায়। বঙ্গবন্ধুর আর্দশ ধারিত কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের একজন নগন্য কর্মী হিসেবে আমার ও আপনার নিকট একখানা খোলা চিঠি লিখার আগ্রহ হলো তবে জানা নেয় আপনার নিকট কিংবা আপনি সংশ্লিষ্ট বক্তিদের নিকট চিঠিখানা পৌছে কিনা। চিঠিটা আপনার কাছে থেকে অর্থ কিংবা ধন সম্পদের সহয়তা ছেয়ে নয়। চিঠির উদ্দ্যেশ এই “মুক্তিযোদ্ধের সপক্ষের সংগঠন, আপনার যোগ্য নেতৃত্বাধীন , আপনার বিচক্ষণতায় যে সংগঠনটি পরিচালিত হয় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, কক্সবাজার জেলা শাখার প্রসঙ্গে কিছু বার্তা আপনাকে জানাতে চাই। মাননীয় নেত্রী আপনি আপনার প্রিয় সংগঠনের খোজ খবর রাখেন তা আমরা ভাল করে জানি। সম্প্রতি কক্সবাজারের রাজনৈতিক মহলে কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের কমিটি আসছে বলে একখানা গুঞ্জন শুনা যাচ্ছে তবে তা কতটুকু সত্য সে বিষয়ে আমার কোন ধারনা নেয়। মাননীয় নেত্রী আমি ওয়ান ইলেভেন খুব কাছ থেকে দেখেছি তখন রাজপথের রাজনীতিতে সক্রিয় অংশ গ্রহণ করতে শুরু করেছিলাম, তাই কম বেশি কক্সবাজারের আওয়ামীলীগ নেতাদের সম্পন্ধে অবগত রয়েছি, কার ও নাম বলে সাহসিকতার পরিচিয় দেখাবো না কিংবা কাওকে ছোট করবো না। আসছি আসল কথায়, ওয়ান ইলেভেন চলাকালে আমার প্রিয় শহর কক্সবাজারের বঙ্গ পরিবারের শাহাদাৎ বার্ষিকী পালনের সৎ সাহস একমাত্র রাশেদুল ইসলাম ভাইয়ের ছাড়া কক্সবাজারের অন্য কোন আওয়ামী নেতা ছিল না। সেসময় রাশেদ ভাই এই কক্সবাজার শীর্ষ আওয়ামীলীগ নেতাদের দ্বারে দ্বারে ঘর বাড়িতে ছুটে গেলেও কোন নেতাদের সাড়া কিংবা পাশে পাইনি, তখন কোন এক সিনিয়র নেতা রাশেদ ভাইকে বলেছিল “এইসবের দরকার নেয়, প্রসাশনের ফালতু ঝামেলায় পড়বে ” অবশেষে রাশেদ ভাই নিজেই তৎকালীন প্রসাশনের ভয়কে পরোয়া না করে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বার্ষিকী ও মেজবান পালন করেন। বলে রাখা ভাল ওয়ান ইলেভেন শাসন চলাকালের পুরাটা সময় দলীয় পার্টি অফিস তালাবদ্ধ ছিল। মাননীয় নেত্রী আপনি হয়তো ভালভাবে জানেন কক্সবাজারের এমন নেতা ও আছেন যারা বঙ্গমাতার সাইনবোর্ড টাংগিয়ে ভূমিদখলের চেষ্টা করেছিল। এই কক্সবাজারের আওয়ামীলীগে এমন অনেকে আছে যারা বিভিন্ন নাশকাতার মামলায় আটক জামাত, শিবিরের নেতাদের পক্ষে দালালী করে থানা কিংবা কোর্ট থেকে জামিনে মুক্ত করে। এমন নেতা ও কক্সবাজারে আছেন যিনি বা যারা জিএমবির জঙ্গিদের জন্য ও জামিন নিয়েছিল, এক কথায় কক্সবাজারের হাইব্রিড আওয়ামী নেতারায় সংখ্যায় অধিক। ফরমালিনে ছেয়ে গেছে কক্সবাজারের আওয়ামী রাজনীতির জনপদের। কক্সবাজার আওয়ামীলীগ নেতাদের কালিমা লিখতে গেলে শেষ হবে না। কক্সবাজারের আঞ্চলিক ভাষায় লোকজন একটি কথা বলে সেইটা এই “”কসবাজারত আওয়ামীলীগ আসে নিকি বেইঘুন দান্ধাবাজ, একটিয়া ফাইলে রুই দে দুইটিয়া ফাইলে আরি দে” সত্য কথা বলতে দুই সিনিয়রদের আশ্রয় প্রশ্রয়ে ধান্ধাবাজরা মাটে সক্রিয়। সত্যি কথা বলতে এই অসুষ্ট রাজনীতির মাটে ত্যাগী নেতাগন সুষ্ট দ্বারার রাজনীতির সুযোগ পাচ্ছেন না। যেসব কিছু লিখে শেষ হবে না। মাননীয় নেত্রী আসছি জেলা আওয়ামীলীগের কমিটি কিংবা সম্মেলন প্রসঙ্গে । আপনার বারাবরে অনুরোধ জানাচ্ছি নতুন একটি কমিটি কক্সবাজারবাসী কে উপহার দেন। যেখানে তরুন আওয়ামীলীগ নেতাদের মিলন ঘটবে জেলা আওয়ামীলীগ ও আওয়ামী রাজনীতির জনপদ ফরমালিন মুক্ত হবে, রাজনীতির অঙ্গন হবে হাইব্রিড মুক্ত। মাননীয় নেত্রী আপনার নিকট বিনীত ও হাতজোড় অনুরোধ করছি। কক্সবাজারের সুনামধন্য রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব সাবেক গভর্নর, বঙ্গবন্ধুর সহচর বিশিষ্ট ,আইনজীবী, সমাজসেবক, এডভোকেট জহিরুল ইসলামের যোগ্য পুত্র যিনি ৯৬ পরর্বতী তৎকালীন জামাত শিবিরের দূর্গ খ্যাত কক্সবাজার কে আওয়ামীলীগের শক্ত ঘাঁটিতে রুপান্তর করেছিল জেলা আওয়ামীলীগের তৃনমূলের আস্থা ও ভালবাসার প্রতিক, ছাত্র ও যুব সমাজের প্রিয় মুখ কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের প্রাভাবশালী সদস্য জনাব রাশেদুল ইসলাম ভাইকে সাধারণ সম্পাদক এবং কক্সবাজার শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি, যিনি সব সময়ে রাজপথে থাকেন জনাব মুজিবুর রহমানকে সভাপতি করে, মুজিব -রাশেদ সমন্নয়ে কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের কমিটি ঘোষনা করেন । কক্সবাজার তৃনমূল নেতাকর্মীদের বর্তমান সময়ের দাবীতে পূরন করুন।
ইতি-
ইব্রাহীম আজাদ বাবু
সাবেক সহ-সম্পাদক কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগ।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com