শতকোটি টাকার জমি আত্বসাৎ করতে মরিয়া শহরের পান্নু বাহিনী

নিজস্ব প্রতিবেদক :
কক্সবাজার শহরে সব চেয়ে বড় এবং আধুনিক ইসলামিয়া বরফকল সহ শত কোটি টাকার জমি দখলের পায়তারা করছে টেকপাড়া এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ি ও সন্ত্রাসী ফয়েজুল হক পান্নু ও তার লালিত সন্ত্রাসী বাহিনী। এমন অভিযোগ করে ভুক্তভোগী মরহুম আবু ছৈয়দ কোম্পানী পরিবারের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। ১২ জুন বুধবার বিকালে শহরের একটি হোটেলে নিজেদের জান-মালের নিরাপত্তা চেয়ে এমন অভিযোগ তুলে ধরেন সাংবাদিকদের।
সংবাদ সম্মেলন লিখিত অভিযোগে বলেন-সন্ত্রাসী পান্নু মরহুম নুরুল হক কোম্পানীর দেওয়া ৮০ লাখ টাকার মধ্যে তিনি জীবিত থাকতে এবং মৃত্যুর পরে ২ কোটি ৪৮ লাখ টাকা নিয়েছে। এর পরেও জোরপূর্বক তার ছেলে পান্নু গংরা টাকা পাওনা আছে দাবী করে ৪ বছর ধরে বরফকল পরিচালনা করে প্রায় ৪ কোটি টাকা আত্বসাৎ করে। এর পরও আমাদের কোন হিসাব না দিয়ে উল্টো এখন সব কিছু দখল করার পায়তারা করছে। এছাড়া মিথ্যা ঘটনা দেখিয়ে ইতিমধ্যে একাধিক মামলা করেছে। তাই সন্ত্রাসীদের হাত থেকে শতকোটি টাকার বরফকল উদ্ধার সহ নিজেদের নিরাপত্তা প্রদানের সহযোগিতা কামনা করছি।
সংবাদ সম্মেলনে অসহায় নির্যাতিত আবু ছৈয়দ কোম্পানী এবং মোক্তার আহম্মদ কোম্পানীর পরিবারের পক্ষে আবু ছৈয়দ কোম্পানীর মেয়ে জুবাইদা খানম রেশমী বলেন, ১৯৯৯ সালে আমার পিতা শহরের মাঝেরঘাট এলাকা গড়ে তুলেন জেলা শহরের সব চেয়ে বরফ কল এবং সুবিশাল জেটি, সাথে আমার পিতার ২৪ টি বোট ছিল প্রায় হাজার খানেক কর্মচারী ছিল। পরবর্তিতে আমার পিতা কিছু নিকট কর্মচারীর বিশ^াস ঘাতকতার কারনে ধারদেনা হলে স্থানীয় নুরুল হক কোম্পানী থেকে তৎকালীন ২৯/৪/২০০৮ সালে ৮০ লাখ টাকা ধার নেয়। এর মধ্যে সেই টাকার বিপরীতে নুরুল হক কোম্পানী নিজে এবং উনার মৃত্যুর পর উনার স্ত্রী রশিদ মূলে প্রায় ২ কোটি ৪৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা গ্রহন করে। তারও পরে ২০১৩ সালে নুরুল হক কোম্পানী নিজে এবং স্ত্রী ছেলেরা রশিদ মুলে আসল টাকা হতে ৭৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা গ্রহন করে। পরবর্তিতে উনার ছেলে আবারো টাকা পাওনা আছি দাবী করে আমাদের বরফকল বন্ধ করে দিলে বিভিন্ন গন্যমান্য ব্যক্তিদের মধ্যস্থতায় আরো ২ কোটি টাকা পাওনা দাবী করে একটি চুক্তি করে। যেহেতু আমাদের কোন উপযুক্ত ভাই নেই বাবা এবং তার শরীকদার মোক্তার আহামদও অসহায় তাই বাধ্য হয়ে তা মেনে নিয়ে বরফকল পরিচালনার একটি চুক্তি করি। কিন্তু চুক্তির কোন শর্ত নুরুল হক কোম্পানীর ছেলে ফয়েজুল হক পান্নু পাত্তা না দিয়ে ৪ বছর মিল পরিচালনা করে। প্রায় ৪ কোটি টাকা আত্বসাৎ করে। এর মধ্যে উল্টো আমার বাবার নামে ২৫ লাখ টাকা বিদ্যূৎ বিল বকেয়া রেখে উনাকে মামলা দিয়ে ফেরারী আসামী করা হয়েছে। এই ৪ বছরে বরফ বেচাকেনার কোন হিসাব আমাদের দেয়নি। বরং জেটি, কর্মচারীর বেতন, অফিস ভাড়াসহ সব টাকা আত্বসাৎ করেছে। আমরা অনেকের কাছে বিচার দিয়ে কোন সুরাহা না পেলে ৩/৯/২০১৮ সালে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা করি যার নাম্বার ১৩৫৮/১৮। বিজ্ঞ আদালত বিষয়টি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেষ্টিগেশনে তদন্তভার দিলে। কক্সবাজার পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) এর পুলিশ পরিদর্শক মো: শাহ আলম সরকার সততার সাথে সব বিষয় সনিপুনভাবে উঠিয়ে এনে তদন্ত রিপোর্ট প্রদান করেন। কিন্তু কে শুনে কার কথা। ইতি মধ্যে সন্ত্রাসী এবং মাদক কারবারী ফয়েজুল হক পান্নু, আমাদের বরফমিল দখল করে সেখানে শত শত মাদকসেবী এনে মাদকের আখড়ায় পরিনত করেছে। এবং বরফমিলে বেশির ভাগ যন্ত্রাংশ নিয়ে গেছে। জেটি ভেঙ্গে নিয়ে গেছে, ফার্নিচার বিক্রি করে দিয়েছে। রাতে উলঙ্গ নৃত্যু করে। এ সবের প্রতিবাদ করলে উল্টো আমাদের মারধর করে এবং গালিগালাজ করে এবং প্রকাশ্য বলে এখানে তোমাদের কিছুই নেই সব আমার তোমরা বের হয়ে চলে যাও। এ বিষয়ে থানায় এজাহার, অভিযোগ সাধারণ ডাইরী করতে করতে কাগজের স্তুপে পরিনত হয়েছে কিন্তু কোন আইনী সহায়তা পায়নি। টাকার কাছে সব কিছু অসহায় হয়ে পড়ে। এর মধ্যে ২৬/৫/২০১৯ সন্ত্রাসী পান্নু মাতাল অবস্থায় আমার কলেজ পড়–য়া ভাইকে বিনা কারনে মারধর করলে সে প্রাণ ভয়ে পালানোর সময় সন্ত্রাসী পান্নু তার মটর সাইকেলটি চালাতে গিয়ে গেইটের সাথে ধাক্কা লেগে পড়ে গিয়ে আঘাতপ্রাপ্ত হন। পরে এ ঘটনায় আমাদের পরিবারের বিরুদ্ধে উল্টো মামলা নেয় সদর থানা পুলিশ এখন আমার ভাই পলাতক। কিন্তু আমাদের এত নির্যাতন করছে আমরা কোন আইনী সহায়তা পাচ্ছি না। তারা সব সময় সরকারী দল আওয়ামীলীগের নেতা পরিচয় দিয়ে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করছে। এর মধ্যে আমরা বিষয়টি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান ও সাংগঠনিক সম্পাদক নাজনীন সরওয়ার কাবেরীকে জানালে উনারা এসে আমাদের কিছুটা সহায়তা করেছে। তবে আমরা কোন মতে এই সন্ত্রাসী পান্নু গংদের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছি না। আর বরফমিলটি চালু করতে পারছিনা।
তাই মাননীয় পুলিশ সুপার সহ জেলার সর্বমহলের কাছে অসহায় নির্যাতিত এই পরিবারের আহবান পান্নু গংদের হাত থেকে আমাদের বাচাঁন। ইসলামিয়া বরফকল সহ শত কোটি টাকা জমি দখলের পায়তারা সহ সকল ষড়যন্ত্র থেকে বাঁচতে আমাদের সহায়তা করুন। সংবাদ সম্মেলনে আবু ছৈয়দ কোম্পানীর স্ত্রী রেহেনা আক্তার, কন্যা জুলেখা খানম পাপড়ী উপস্থিত ছিলেন।

উপদেষ্টা সম্পাদক : হাসানুর রশীদ
সম্পাদক ও প্রকাশক : মুহাম্মদ শাহজাহান

নির্বাহী সম্পাদক : ছৈয়দ আলম

যোগাযোগ : ইয়াছির ভিলা, ২য় তলা শহিদ সরণী, কক্সবাজার। মোবাইল নং : ০১৮১৯-০৩৬৪৬০

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য অধিদপ্তরে নিবন্ধনের জন্য আবেদিত

Email:coxsbazaralo@gmail.com