1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
শিরোনাম :
আমি মরে গেলে আমার সব সৃষ্টি ধ্বংস করো- কবীর সুমন রাত ৮টায় এল ক্লাসিকো যুদ্ধে বার্সা-রিয়াল করোনায় আরও ১৯ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১০৯৪ সাংবাদিকনেতা গাজীর মুক্তির দাবিতে কক্সবাজারে মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ কক্সবাজার প্রধান সড়ক বিএস মতে সড়ক বিভাগের অধিগ্রহণকৃত জমিতেই নির্মিত হবে ব্যারিস্টার রফিক-উল হকের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও প্রধান বিচারপতির শোক দুঃসময়ে আইনি লড়াইয়ে এগিয়ে আসেন ব্যারিস্টার রফিক-উল হক: প্রধানমন্ত্রী সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আর নেই টেকনাফ পৌর-ছাত্রলীগের বিশেষ জরুরী সভা অনুষ্ঠিত দ্রুত সময়ের মধ্যে সিনহা হত্যা মামলার নিষ্পত্তি: র‌্যাব ডিজি

শাহজালালে আমদানি নিষিদ্ধ অত্যাধুনিক ড্রোন আটক

  • আপডেটের সময় : বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
  • ১৩ দেখা হয়েছে

শুল্ক গোয়েন্দারা মঙ্গলবার রাতে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে শারজা থেকে আসা এক যাত্রীর ব্যাগ থেকে আমদানি নিষিদ্ধ একটি অত্যাধুনিক ড্রোন (চালকবিহীন বিমান) জব্দ করেছেন। ড্রোনটি DJI Phantom 4 মডেলের। এতে উন্নতমানের ক্যামেরা ও সেন্সর লাগানে আছে।

শুল্ক গোয়েন্দা অধিদফতরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান এসব তথ্য জানান।

প্রাথমিক তথ্যে জানা গেছে, ড্রোনটি শুটিংয়ের পাশাপাশি গোয়েন্দাগিরির কাজে ব্যবহার করা যায়। এর কোনও অপব্যবহারের ঝুঁকি আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

ড্রোনটি আটক হয় জাহিদুল ইসলাম (৪০) নামে এক যাত্রীর ব্যাগ থেকে। তিনি মঙ্গলবার রাত ১০ টায় শারজা থেকে এয়ার অ্যারাবিয়া এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট নং G90515 যোগে শাহজালাল বিমানবন্দরে অবতরণ করেন।

যাত্রীর পাসপোর্ট অনুযায়ী তার নাম নজরুল ইসলাম, পাসপোর্ট নং BA 0230084, গ্রাম ভুরকাপাড়া, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই যাত্রীকে আগে থেকেই নজরদারিতে রেখেছিলেন শুল্ক গোয়েন্দারা। কাস্টমস হলের গ্রিন চ্যানেল পার হয়ে যাওয়ার সময় তাকে থামানো হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ড্রোন থাকার কথা অস্বীকার করেন। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে তল্লাশি চালিয়ে তার সঙ্গে থাকা লাগেজ থেকে ড্রোনটি উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরও জানান, দুবাই থেকে তার এক বন্ধু ঢাকায় এক ব্যক্তিকে এসব গোয়েন্দা সরঞ্জামাদি পৌঁছে দেওয়ার জন্য দিয়েছেন। তিনি নিজে এর মালিক নন।

ড্রোনে উন্নতমানের ক্যামেরা বসানোর অপশন ও সেন্সর রয়েছে। রিমোটের সাহায্যে এটি পরিচালনা করা হয়। এটি প্রতি ঘণ্টায় ৪৫ কিলোমিটার বেগে চলতে পারে।

ড্রোন নানা ধরনের নাশকতার কাজে ব্যবহার হতে পারে, এই আশঙ্কায় সম্প্রতি বাংলাদেশে এর  আমদানির ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হয়। সরকারের পূর্ব অনুমোদন ছাড়া ড্রোন আমদানি করা যায় না এবং এটি উড্ডয়নের আগে সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিতে হয়।

শুল্ক গোয়েন্দারা এর আগে ২৭ জুলাই আরেকটি ড্রোন আটক করেছিল। ড্রোনটি আটকের ঘটনায় শুল্ক আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এটি বিমানবন্দর কাস্টমসে জমা দেওয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com