1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

সংবাদকর্মী ইসলাম মাহমুদকে লাঞ্ছনাকারী পুলিশ কর্মকর্তার শাস্তি দাবী

  • আপডেটের সময় : রবিবার, ২৮ জুন, ২০১৫
  • ১০০ দেখা হয়েছে

কক্সবাজারের অন্যতম শীর্ষ নিউজ পোর্টাল কক্সবাজার টাইম্স’র (সিটিএন) নির্বাহী সম্পাদক ইসলাম মাহমুদকে চকরিয়ায় থানা পুলিশ কর্তৃক লাঞ্ছিত ও ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টার প্রতিবাদে এক জরুরী বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বেঠকে জড়িত পুলিশ কর্মকর্তা ও কনস্টেবলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানানো হয়। রোববার বিকাল ৪টার দিকে অনলাইন রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ অনলাইন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনে যৌথ উদ্যোগে সভাপতিত্ব করেন উভয় সংগঠনের সভাপতি আনছার হোসেন।

বৈঠকের শুরুতেই সংবাদকর্মী ইসলাম মাহমুদকে লাঞ্ছিত ও ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টার প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানো হয়। বৈঠকে ইসলাম মাহমুদকে লাঞ্ছনাকারী চকরিয়া থানার উপ-পরিদশক (এসআই) শাহাদাত ও কনস্টেবল চয়ন (ও+) এর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানানো হয়। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ৪৮ ঘন্টার আল্টিমেটাম ঘোষণা দেয়া হয়। এর মধ্যে বিহীত ব্যবস্থা না নেয়া হলে পরবর্তীতে কঠিন কর্মসূচীর ঘোষণা দেয়া হয়।
বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, চ্যানেল নাইনের জেলা প্রতিনিধি জাবেদ ইকবাল, নয়া দিগন্তের কক্সবাজার দক্ষিণ সংবাদদাতা গোলাম আজম খান, বাংলামেইলের জেলা প্রতিনিধি আবদুর রহমান, কক্সবাজার টাইম্স’র প্রধান সম্পাদক সরওয়ার আলম, বিজয় টিভির জেলা প্রতিনিধি ইমাম খাইর, দ্য রিপোর্ট এর জেলা প্রতিনিধি আব্দুল্লাহ নয়ন, এজাহিকাপ টিভির জেলা প্রতিনিধি আজাদ মনসুর, কক্সবাজার টাইম্স’র ব্যবস্থাপনা সম্পাদক আবুল মঞ্জুর আজাদ, দি ম্যাসেজ এর বার্তা প্রধান মোহাম্মদুর রহমান মাসুদ, কক্সবাজার টাইম্স’র চীফ রিপোর্টার শাহেদ ইমরান মিজান, এশিয়ান টিভির রামু প্রতিনিধি আরোজ ফারুক, আমাদের কক্সবাজারের স্টাফ রিপোর্টার আতিকুর রহমান মানিক, কক্সবাজার টাইম্স’র নিজস্ব প্রতিবেদক মহিউদ্দীন মাহী, কক্সবাজার কলেজ প্রতিনিধি কামরুল হাসান মিনার।
প্রসঙ্গত, গত শনিবার রাতে কক্সবাজারের অন্যতম শীর্ষ নিউজ পোর্টাল কক্সবাজার টাইম্স’র (সিটিএন) নির্বাহী সম্পাদক ইসলাম মাহমুদকে পেশাগত কাজে ঢাকা যাওয়ার পথে চকরিয়া উপজেলার ফাঁসিয়াখালী এলাকায় চকরিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহাদাত ও কনস্টেবল চয়ন শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। শুধু তাই নয় এক পর্যায়ে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করেন। অভিযোগ রয়েছে, উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহাদাত ও কনস্টেবল চয়ন ইয়াবা ব্যবসার সাথে সরাসরি জড়িত রয়েছে। শুধু ব্যবসা নয়; ইয়াবা দিয়ে ফাঁসিয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে নিরীহ মানুষের কাছ থেকে উৎকোচ আদায়সহ নানাভাবে হয়রানি করে যাচ্ছে।

এই বিভাগের আরও খবর