1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

সরকারী খাদ্যগুদামে চাল সংগ্রহে দুর্নীতি : রামুতে ক্ষুদ্ধ কৃষকদের প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানবন্ধন

  • আপডেটের সময় : রবিবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৫
  • ৫৮ দেখা হয়েছে

এম.শাহজাহান চৌধুরী শাহীন,কক্সবাজার :
কক্সবাজারের রামু উপজেলা খাদ্য গুদামে খাদ্যশষ্য সংগ্রহে কেলেংকারির ঘটনায় জড়িত খাদ্য বিভাগের দূর্নীতিবাজ কর্মকর্তা ও কালোবাজারীদের শাস্তি প্রদান এবং মাঠ পর্যায়ে স্থানীয় কৃষকদের কাছ থেকে খাদ্যশষ্য ক্রয়ের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
রবিবার ২৩ আগষ্ট সকাল ১০ টায় রামু চৌমুহনী ষ্টেশনে উপজেলা পর্যায়ে রাইচমিল মালিকদের মাধ্যমে চাল সংগ্রহ কার্যক্রমে সরকারের দেওয়া ভর্তুকি থেকে বঞ্চিত ক্ষুদ্ধ কৃষকরা এ সমাবেশ আয়োজন করেন।
মুঠোফোনে কৃষকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার সদর-রামু আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল। এ সময় তিনি বলেন, চাল কেলেংকারির ঘটনায় জড়িতরা কোনভাবেই ছাড় পাবে না। যারা কৃষকদের সাথে প্রতারনা করেছে তাদের কঠোর শাস্তি হবে।
মানববন্ধন সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন, রামু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়াজ উল আলম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, ‘দেশ বাঁচাও, কৃষক বাঁচাও’ এ শ্লোগান নিয়ে আয়োজিত এ সমাবেশের উদ্যোক্তা মুক্তিযোদ্ধা মোজাফ্ফর আহমদ।
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, রামু বিআরডিবি’র চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম মন্ডল, সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন ) রামু শাখার সভাপতি মাষ্টার মোহাম্মদ আলম, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লিক, স্কীম ম্যানেজার ও কৃষক আবদুর রহিম, সাবেক ইউপি সদস্য গোলাম কবির, ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন।
সমাবেশে মুক্তিযোদ্ধা রমেশ বড়–য়া, রামুর প্রতিনিধিত্বশীল নাট্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠন সমস্বর এর সভাপতি তানভীর সরওয়ার রানা, রামু উপজেলা শ্রমিক লীগ সভাপতি নুরুল কবির হেলাল, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মো. আবু বক্কর, রামু উপজেলা কৃষক লীগ সদস্য সচিব মিজানুর রহমান, যুগ্ন-আহবায়ক জুয়েল ধর, কৃষক লীগ নেতা শহিদুল ইসলাম, উপজেলা বা¯ত্তুহারালীগের সভাপতি নুরুল আলম জিকু, উপজেলা প্রজন্ম লীগ সভাপতি আনোয়ার হোসেন বাবলা উপস্থিত ছিলেন।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, রামু উপজেলায় খাদ্য গুদামে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সোহাগ চন্দ্রসাহার নেতৃত্বে অভিযানে ৪৩ মেট্রিক টন নিম্নমানের চাল সহ ২টি ট্রাক আটক করা হলেও এ ঘটনায় জড়িত উপজেলা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও খাদ্য পরির্দশক দূর্নীতিবাজ সুজিত বিহারী সেন সহ খাদ্য বিভাগের অন্যান্য কর্মকর্তা, কালোবাজারি সিন্ডিকেট সদস্য উখিয়ার আবদুর রহিম এবং অনিয়মে সহায়তাকারি রাইচ মিল মালিকদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। অথচ চাল সংগ্রহে এতবড় অনিয়মের ফলে রামুর হাজার হাজার কৃষক বোরো মৌসুমে ধান-চালের ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হয়েছে।
এ ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত ও দুর্নীতির প্রধান নায়ক উপজেলা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুজিত বিহারী সেন বাদি হয়ে নাম সর্বস্ব থানায় মামলা করেন। এতে কৃষকদের ক্ষোভের মাত্রা আরো বেড়েছে। এ ধরনের হাস্যকর মামলা দূর্নীতিবাজদের রক্ষার কৌশল ছাড়া আর কিছুই নয়। সমাবেশে উপজেলার শত শত কৃষক বিভিন্ন দাবি সম্বলিত প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন।
প্রসংগত, কক্সবাজারে সরকারি খাদ্যগুদামে চলতি মওসুমে ছয়টি উপজেলায় ৫টি খাদ্যগুদামে প্রায় সাড়ে ২৬ কোটি টাকার চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। এর মধ্যে চকরিয়া-পেকুয়, রামু, উখিয়া, টেকনাফ খাদ্যগুদামে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তার যোগসাজশে ব্যাপক অনিয়ম আর দুর্নীতির অভিযোগ উঠে। পাশাপাশি নি¤œমানের চাল গুদামে উঠছে বলেও অভিযোগ করেন অনেকে। ১৯ আগস্ট রামুতে নিম্নমানে চাল সংগ্রহের সময় নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের হাতে আটক হয় ৪৩ মেট্রিক টন নিম্নমানের চাল ভর্তি দু’টি ট্রাক। এঘটনায় মামলাও হয়েছে।
উখিয়া উপজেলায় চাল সংগ্রহ অভিযান বন্ধ ঘোষণা করেছে জেলা খাদ্য শস্য সংগ্রহ কমিটির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আলী হোসেন । গত বুধবার জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সোহাগ চন্দ্রসাহার নেতৃত্বে একটি তদন্ত টিম গঠন করা হয়। তদন্ত না হওয়া পর্যন্ত চাল সংগ্রহ বন্ধ রাখা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com