1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :

সরকারী রাজস্ব দেওয়ার পরেও ঈদগাঁও’র কালিরছড়া বাজারে পুলিশী বাঁধা

  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৫
  • ৩ দেখা হয়েছে

এম আবু হেনা সাগর, ঈদগাঁও :
কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁওর উপ-বাজার খ্যাত কালিরছড়া বাজারটি সরকারীভাবে রাজস্ব দেওয়ার পরেও অস্থায়ী গরু বাজারে পুলিশী বাঁধা প্রদান নিয়ে সংঘর্ষের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এ নিয়ে ক্ষোভে ফূঁসে উঠছে এলাকাবাসী। জানা যায়, দীর্ঘ বছর ধরে কালিরছড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে অস্থায়ীভাবে কোরবানীর পশুর হাট বসে আসছে। কিন্তু গত ১৩ সেপ্টেম্বর রবিবার বিকেলে এলাকার গরু ব্যবসায়ীরা অস্থায়ী এ বাজারে গরু বিকিকিনির জন্য নিলে ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এএসআই আমিরুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ গরু ব্যবসায়ীদের বাঁধা প্রদান করে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। এ নিয়ে এলাকার সর্বপেশার লোকজনের মাঝে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এছাড়া প্রতি রবি, বুধ ও শুক্রবার এ ঈদগাঁওর কালিরছড়া বাজারে হাট বসে। বাজারে বিশৃঙ্খলা বিষয়ে কালিরছড়া বাজার সভাপতি ও ইজারাদার জসিম উদ্দীন সওদাগর পরবর্তীতে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ঈদগাঁও বাজারের ইজারাদারের অভিযোগে এ বাজারে গরু বিকিকিনিতে বাঁধা প্রদান করা হয় বলে জানান। অপরদিকে কালিরছড়া বাজার দীর্ঘদিন ধরে সরকারীভাবে রাজস্ব দেওয়ার পরেও এ বাজারে পুলিশী বাঁধা প্রদান করার কারণ জানতে চান এলাকাবাসী। তবে এ ব্যাপারে বাজার ইজারাদার ও সভাপতি জসিম উদ্দীনের সাথে মুঠোফোনে এ প্রতিনিধির যোগাযোগ হলে তিনি- ইজারা দেওয়ার পরেও পুলিশী বাঁধা অত্যন্ত দুঃখজনক। তিনি এ বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের জরুরী ভিত্তিতে হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এদিকে কালিরছড়া বাজারের সচেতন লোকজন যে কোন মুহুর্তে তাদের এ ঐতিহ্যবাহী কালিরছড়া বাজারের ঐতিহ্য ধরে রাখার স্বার্থে আন্দোলন কর্মসূচী ঘোষণার পদক্ষেপ গ্রহণ করছে বলেও জানা যায়। তবে বেশ ক’জন বয়োবৃদ্ধের মতে, দীর্ঘদিন ধরে এ বাজার সুনাম রক্ষা করে চলে আসছে। কিন্তু হঠাৎ করে অস্থায়ী গরু বাজারে পুলিশী বাঁধা প্রদান নিয়ে আমরা মর্মাহত ও দুঃখিত। ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মিনহাজ মাহমুদ ভুঁইয়ার কাছে কালিরছড়া গরু বাজারে বাঁধা প্রদান বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এ বাজারটি অনুমতিবিহীন বাজার বলে জানান। অপরদিকে এ বাজারে প্রতিবছর রাজস্ব প্রদান করা হচ্ছে বলে ইজারাদার জসিম জানান।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com