জাতীয়রাজনীতি

সাংবাদিকদের জন্য প্রণোদনা ব্যবস্থা করতে হবে : মির্জা ফখরুল

সাংবাদিকদের প্রণোদনার ব্যবস্থা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়

128views

কক্সবাজার আলো ডেস্ক

বিএনপি মহাসচিব বলেন, সাংবাদিকরা যেভাবে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই ভয়াবহতার মধ্যে কাজ করছেন এটা নিঃসন্দেহে নজীরবিহীন ঘটনা।

তিনি বলেন, ডাঃ মঈন উদ্দীনকে জাতীয় বীর ঘোষণা ও করোনা পরিস্থিতি, আর্থিক সমস্যা মোকাবেলা ও ত্রাণ বিতরণ নজরদারি করার জন্য জাতীয় টাস্ক ফোর্স গঠনের ওপর আমরা বারবার গুরুত্বারোপ করেছিলাম। টাস্ক ফোর্সের আওতায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের পাশাপাশি সশস্ত্র বাহিনীসহ বিভিন্ন বাহিনী, জনপ্রতিনিধি, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, সাংবাদিক ও স্থানীয় প্রশাসনকে সম্পৃক্ত করে ত্রাণ বিতরণে একটি স্থায়ী প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থা গড়ে তোলার প্রয়োজন বলে মনে করি।

মিজা ফখরুল বলেন, আংশিক লকডাউনের কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত ভূমিহীন দিনমজুর, দিন এনে দিন খায় এ শ্রেণীর শ্রমিক ও গরিব দুঃস্থ জনগণ, কৃষি, মৎস্য, পোল্ট্রি, ডেইরি খাত, বিধবা, বয়স্ক, স্বামী নিগৃহীতা প্রভৃতি অসহায় শ্রেণী উপেক্ষিত থেকে যায়। এমনকি করোনা মোকাবেলায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রথম সারির যোদ্ধা চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীসহ আইন-শৃঙ্খলা ও সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের স্বাস্থ্য/ জীবন বীমা ও নগদ প্রণোদনা দেয়ার বিষয়টি এবং পিপিই, টেস্টিং কিট ও ভেন্টিলেটর সংগ্রহ, পৃথক করোনা হাসপাতাল, আইসোলেশন কেন্দ্র স্থাপনের বিষয়টিও সুবিবেচনা পায়নি।

সরকারের সমালোচনা করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, বর্তমান দলীয় ব্যবসায়ীবান্ধব সরকার স্বাভাবিকভাবেই ব্যবসায়ীদের বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দিয়েছে। কিন্তু দিন এনে দিন খায়, স্বাস্থ্য ও কৃষির মতো গুরুত্বপূর্ণ খাত বাদ পড়াটাকে কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না।

তিনি বলেন, চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য আমরা বিএনপি থেকে যথাক্রমে ১ কোটি, ৭৫ লক্ষ ও ৫০ লক্ষ টাকার জীবন বীমা ঘোষণার প্রস্তাব করেছিলাম। প্রধানমন্ত্রী পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে প্রদত্ত ভাষণে অবশ্য সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য ১০০ কোটি টাকার বিশেষ সম্মানি ভাতা প্রদানের এবং তাদেরকে ৫-১০ লক্ষ টাকার স্বাস্থ্য বীমা এবং মৃত্যুর কারণে এই বীমার অংক ৫ গুণ বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়েছেন। এই নগদ সম্মানী ও বীমার পরিমাণ যথেষ্ট মনে করি না।

Leave a Response