1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :
শিরোনাম :
টেকনাফে সর্ববৃহৎ ক্রিস্টাল মেথ আইসের চালান জব্দ  সেন্টমার্টিনে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা ও বিদেশী অস্ত্র উদ্ধার সাবেক এমপি বদির বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির নির্দেশ বুধবার থেকে ফের ভার্চুয়ালি চলবে উচ্চ আদালত সেবা নিতে এসে মানুষ যেন হয়রানির শিকার না হন: প্রধানমন্ত্রী ৫০ বছর বয়সীরা পাবেন বুস্টার ডোজ বিশ্বের চট্টগ্রাম এসোসিয়েশন ও সমিতিগুলির ভার্চুয়াল সভায় বিশ্ব চট্টগ্রাম উৎসব করতে “আন্তর্জাতিক চট্টগ্রাম সমন্বয় কমিটি” গঠিত রামুতে হেডম্যানকে কূপিয়ে হত্যা  ঈদগাঁওতে মাস্ক ব্যবহার ও সামাজিক দুরত্বসহ স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছেনা নারায়ণগঞ্জ সিটিতে আইভীর হ্যাটট্রিক জয়

সোনাদিয়ায় ধুম পড়েছে শুটকি উৎপাদনের

  • আপডেট : মঙ্গলবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০১৫
  • ১০৫ দেখা হয়েছে

এ.এম হোবাইব সজীব :
দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীর সোনাদিয়া দ্বীপ এখন শুটকির মৌ-মৌ সুগন্ধে মাতোয়ারা। ধুম পড়েছে জেলেদের মাঝে শুটকি উৎপাদনের। জেলে পল্লী গুলোতে শুটকির ভরা মৌসুমে খুশির বন্যা ভয়ে যাচ্ছে। এ দ্বীপে চলমান শীত মৌসুমে ভ্রমনে আসা পর্যটকরা বাড়ীতে ফিরার সময় শুটকি ক্রয় করে ফিরতে দেখা গেছে। শুধু শুটকি নয়, হাজারো জীব বৈচিত্রে ভরপুর এ গভীর সমুন্দ্র বন্দ্ররের জন্য নির্ধারিত স্থান অনন্য সুন্দর দ্বীপ। দ্বীপটির একদিকে রয়েছে ইতিহাস ও ঐতিহ্য, অন্যদিকে আছে প্রাকৃতিক অপরূপ সৌন্দয্য। সোনাদিয়া দ্বীপটির আয়তন ৭ বর্গকিলোমিটার। কক্সবাজার জেলা সদর থেকে ৯ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে বাঁকখালী চ্যানেলের উত্তর পাশ ঘেঁষে মহেশখালী দ্বীপের সর্ব দক্ষিণ প্রান্তে অবস্থিত সোনাদিয়া দ্বীপ। বঙ্গোপসাগর কূল ঘেঁষা সোনাদিয়ার চর এলাকায় হাজার হাজার জেলে ক্ষনস্থায়ী কেল্লা তৈরী করে সাগর থেকে আহরিত মাছ সনাতনী পদ্ধতিতে রোধে শুকিয়ে শুটকি তৈরী করে কোটি কোটি টাকার মাছ দেশে-বিদেশে রপ্তানী করে একদিকে যেমন নিজেরা স্বাবলম্বী হচ্ছে, তেমনি দেশকে এনে দিচ্ছে বৈদেশিক মুদ্রা।
সোনাদিয়ার প্যারাবন, চর, খাল ও মোহনায় নানা প্রজাতির মাছ ছাড়াও শতশত প্রজাতির জলজ প্রাণীর আবাসস্থল। মৎস বিশেষজ্ঞদের মতে এখানে ৮০ প্রজাতির মাছ পাওয়া যায়। এখানে ১৯ প্রজাতির চিংড়ি, ৫৭ প্রজাতির শামুক-ঝিনুক এবং ৮ প্রজাতির কাঁকড়া পাওয়া যায়। সোনাদিয়া দ্বীপে যেসব মাছ শুটকি করা হয়, সেগুলো হচ্ছে, লইট্যা, চিংড়ী, ফাসিয়া, রুপচাঁদা, কামিলা, লাউক্ষ্যা, করতি, চুরি, রুপসা, সুরমা, তাইল্যা, পোঁপাসহ আরো বিভিন্ন প্রজাতির মাছ। এ দ্বীপে দৈনিক লক্ষ-লক্ষ টাকার মাছ ব্যবসায়ীরা ক্রয়-বিক্রয় করে থাকে জেলেরা। এসব মূল্যবান মাছ গুলি চট্টগ্রামের আছতগঞ্জ, ঢাকা, সিলেট, উত্তরবঙ্গের বগুড়া, রংপুর, পাবনা, টাঙ্গাইলসহ দেশের বড়-বড় শহরে চালান করে থাকে ব্যবসায়িরা। তাছাড়া এখানকার বড় ব্যবসায়িরা উন্নত ভাবে তৈরী করা শুঠকী দেশ ছাড়িয়ে আমেরিকা, বৃটেন,থাইল্যান্ড, হংকং, মালয়েশিয়া, জার্মান, সৌদিয়া, দুবাইসহ উন্নত দেশে রপ্তানি করে কোটি-কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা এনে দিচ্ছে দেশকে। এছাড়াও কক্সবাজারের নাজিরার টেক, ধলঘাটার সরইতলা,সাপমারার ডেইল এলাকায় মাছ শুকানোর আলাদা আরো ৩টি শুটকি মহাল রয়েছে। সোনাদিয়ার চরের ব্যবসায়ী আব্দু সালাম দৈনিক আমাদের কক্সবাজারকে জানান, প্রতি শুকনো মৌসুমে এখান থেকে ব্যবসায়িরা লক্ষ লক্ষ টাকার শুটকী মাছ ক্রয় করে ঢাকা, সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, চট্টগ্রাম, পাশ্ববর্তী উপজেলা চকরিয়া, খাগড়াছড়িসহ বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করে প্রচুর লাভবান হয়।
সম্প্রতি সাগরে জলদস্যুদের উৎপাত হঠাৎ করে বেড়ে যাওয়ার কারনে ফিশিং ট্রলার মালিকরা সাগরে ট্রলার পাঠাতে অনিহা প্রকাশ করছে। সাগর চ্যানেলে জলদস্যুদের তান্ডব সংশ্লিষ্ট প্রশাসন টেকাতে না পারায় জলদস্যুরা দিগুণ উৎসাহি হয়ে মাছ আহরিত ট্রলারে হানা দিয়ে লুট পাট অব্যাহত রেখেছেন।জেলেদের নিরাপত্তা জন্যবঙ্গোপসাগরের সোনাদিয়া চ্যানেলে কোষ্টগার্ড টহল জোরদার করার দাবী জানান স্থানীয় ফিশিং ট্রলার মালিক ও শ্রমিকরা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
© ২০১৪ - ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।
Site Customized By NewsTech.Com