1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

হ্নীলায় জমি নিয়ে দু‘পক্ষের সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত-৭ : গাড়ি ভাংচুর

  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই, ২০১৫
  • ১০৯ দেখা হয়েছে

সাদ্দাম হোসাইন, হ্নীলা :
টেকনাফের হ্নীলায় একটি দোকানের জমির মালিকানা ও ভাড়া নিয়ে দু‘পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে বাঁধা দিতে গিয়েই পুলিশের এসআইসহ ৭জন আহত হয়েছে। এ সময় পুলিশের ব্যবহৃত গাড়ির উপর হামলা চালিয়ে ভাংচুর করা হয়। এই ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়-১৬ জুলাই ভোররাতে টেকনাফের হ্নীলা মৌলভী বাজার ষ্টেশনে আলী আকবর পাড়ার সোলতান আহমদ প্রকাশ নাদুর ছেলে ইব্রাহীম গং মালিকানা নিয়ে স্বশস্ত্র অবস্থায় মৌলভী বাজারে বিরোধীয় জমি দেওয়াল দিয়ে দখলে নেওয়ার চেষ্টা চালায়। খবর পেয়ে প্রতিপক্ষের হাজী ছিদ্দিক আহমদের পুত্র জামাল হোছাইন গং লোকজন নিয়ে তাদের বাঁধা দিতে এলে দু‘পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ লেগে যায়। এতে মৃত হাজ্বী আবুল বশরের ছেলে মিজানুর রহমান, নুর বেগম মুন্নী, তাসনিম মাহমুদ আহত হয়। দফায় দফায় সংঘর্ষের খবর পেয়ে সকাল সাড়ে ১০টারদিকে হোয়াইক্যং পুলিশ ফাঁিড়র আইসি সামিউর রহমান সর্ঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালায়। হঠাৎ এ সময় জবর দখলকারী পক্ষের লোকজন পুলিশের উপর চড়াও হয়ে হামলা ও গাড়ি ভাংচুর চালায়। এতে আইসি সামিউর রহমান, কনস্টেবল নিখিল বড়–য়া, স্বপন চৌধুরী, সোহেলসহ ৭জন আহত হয়। পুলিশের উপর হামলার খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ-বিজিবি ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহতদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উপজেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
উল্লেখ্য,বিরোধীয় এই ৮ কড়া জমির মালিক মৌলভী বাজারের মৃত আজিজুর রহমানের পুত্র খলিলুর রহমান, নাজির হোছন ও এবাদুল্লাহ। গত ১০ বছর আগে ঐ জমি হাজী ছিদ্দিক আহমদের পুত্র জামাল হোছাইনকে চুক্তিমতে ভাড়া দেয়। ঐ ভাড়াটিয়া জামাল ৫/৬ বছর যাবত নিয়মিত ভাড়া পরিশোধ করে আসছে। ইতিমধ্যে মৃত্যুর পূর্বে খলিলুর রহমান তা মেয়ে জামাই ইব্রাহীমকে তার মালিকানাধীন জমি লিখে দেন। এরপর একে এক জমির মালিক ৩ সহোদর মৃত্যুবরণ করলে উক্ত জমির মালিকানা ও দখল নিয়ে দু‘গ্রুপের মধ্যে বিরোধের সৃষ্টি হয়। স্থানীয় মেম্বার ফরিদুল আলমের নিকট এই ব্যাপারে উভয়পক্ষকে নিয়ে সমঝোতার বৈঠক হলেও শেষ পর্যন্ত থানা পর্যন্ত গড়ায়। তা সুরাহা না হতেই এই ন্যাক্কারজনক ঘটনার সৃষ্টি হয়। এই ব্যাপারে জামাল হোছাইন বলেন কাগজ মূলে ঐ জমির প্রকৃত মালিক আমি স্বয়ং। ইব্রাহীম বলেন আমার শ্বাশুড় মৃত্যুর পূর্বে আমাকে কাগজ মূলে মালিকানা দেন। তবে এই ব্যাপারে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে ওসি আতাউর রহমান খোন্দকার জানান।

এই বিভাগের আরও খবর
  • ২০১৪ - ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ‌্য মন্ত্রণালয়ে আবেদিত ।
Site Customized By NewsTech.Com