1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

হ্নীলায় হঠাৎ পাহাড় ফেটে দু’ভাগ : অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেল অর্ধশতাধিক মানুষ

  • আপডেটের সময় : রবিবার, ২ আগস্ট, ২০১৫
  • ৫৯ দেখা হয়েছে
SAMSUNG CAMERA PICTURES

সাদ্দাম হোসাইন, হ্নীলা :
টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের পাহাড়ী গ্রাম পশ্চিম সিকদার পাড়া এলাকায় দিনের বেলায় হঠাৎ আকস্মিকভাবে একটি টিলা পাহাড় ২ভাগে বিভক্ত হয়েছে। পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসকারী কয়েকটি পরিবারের বসত-বাড়ির কিছু অংশ ক্ষতি হলেও অর্ধশতাধিক মানুষ প্রাণে বেঁচে যায় কুদরতের ইশারায়।
সুত্রে জানাযায়-১আগষ্ট আনুমানিক দুপুর ২টার দিকে টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা পশ্চিম সিকদারপাড়ার  মৃত আবুল হোছনবার ঘোনা নামক পাহাড়টি হঠাৎ বিকট আওয়াজ করে ২ভাগে বিভক্ত হয়ে যায় । এতে পাহাড়ে পাদদেশে বসবাসকারী মৃত আব্দুল জব্বারের পুত্র জাহেদ হোছন এবং মৃত আব্দুল মাবুদের পুত্র মুহাম্মদের পরিবারের বসত-বাড়ির কিছু অংশ ক্ষতি হলেও অর্ধশতাধিক মানুষ প্রাণে বেঁচে যায় কুদরতের ইশারায়।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন- শনিবার দুপুরের দিকে বিকট শব্দে পুরো এলাকা প্রকম্পিত হয়ে ওঠে। সাথে সাথে জাহেদ হোছন এবং আব্দুল মাবুদের পরিবারের সদস্যরা হৈ ছৈ শুরু করলে পাশ্ববর্তী লোকজন  গিয়ে দেখতে পায় পাহাড়টি ২ভাগে বিভক্ত হয়ে গিয়েছে। এতে এক অজানা আতংক বিরাজ করছিল গ্রাম জুড়ে। পরের দিন ভোরে দুর্ঘটনার খবর দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে এলাকার শতশত লোক দেখতে আসে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান-পুরো পাহাড় ফেটে দু’ভাগ হয়ে গেছে। পাহাড়ের পাদদেশে এবং উত্তর ও পুর্ব পাশে বিশটির অধিক পরিবারের বসতি রয়েছে। এতে নারী শিশুসহ প্রায় অর্ধ শতাধিক লোক বসবাস করে। পাহাড় ধ্বসের এ ঘটনায় এসব বাসিন্দারা প্রাণে বেঁচে গেলেও এক ভয়াবহ ঝুঁকিতে বসবাস করছে বর্তমানে তারা। পাহাড় ধ্বসের চৌচিরময় দৃশ্য দেখে অনেকে ধারণা করছেন-এখানে যে কোন সময় বড় ধরনের বিপদের আশংকা রয়েছে। ঝুঁকি এড়াতে পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসকারীদের সরিয়ে নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষেরে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন এলাকাবাসী।

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com