1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :

২০ বছর পর বন্ধুকে কাছে পেয়ে যা করলেন তসলিমা

  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
  • ৪০ দেখা হয়েছে

তসলিমা নাসরিন পড়াশোনা করেছেন চিকিৎসাশাস্ত্রে, কিন্তু খ্যাতি তার লেখিকা হিসেবেই। বিতর্কিত লেখার জন্য বাংলাদেশ ছেড়ে নির্বাসন জীবনযাপন করছেন। ভারতে অস্থায়ীভাবে থাকছেন, মাঝে মধ্যেই ঘুরতে যান ইউরোপ, আমেরিকায়। এবার জার্মানির লিচারেচার উৎসবে যোগ দিয়েছেন। সেখানে গিয়ে ২০ বছরের পুরানো এক বন্ধু দেখা পেয়েছেন। সেই অভিজ্ঞতার কথা ১ ঘন্টা আগে নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে শেয়ার করেছেন। পাঠকদের জন্য তসলিমার স্ট্যাটাসটি হুবুহু তুলে ধরা হলো-

‘এবার বার্লিন লিটারেচার ফেস্টিভেলে আরও এক সারপ্রাইজ ছিল আমার জন্য। কুড়ি বছর আগের জার্মান বন্ধু ক্রিস্টান জন এসেছিল আমার সঙ্গে দেখা করতে। তেমন কুড়ি বছর আগের বাঙালি ক’জন বন্ধুও এসেছিল দেখা করতে। আমার দুটো আলোচনা অনুষ্ঠান ছিল। একটির বিষয় নারীর অধিকার, আরেকটির বিষয় ইসলামি মৌলবাদ। দুটোতেই এসেছিল মিলন আর নমি। কুড়ি বছর পরও ওরা প্রায়ই একই রকম আছে। শুধু আমাকেই বোধহয় বয়স আর অসুখ বিসুখ ধরেছে। শেষের অনুষ্ঠানে এক রূপসী বাঙালি এসেছিলেন। নাম তাঁর নাজমুন্নেসা পিয়ারী। ওঁর জন্যই কবি শহীদ কাদরী এক কালে লিখেছিলেন, ‘তোমাকে অভিবাদন প্রিয়তমা ‘ কবিতাটি। ইচ্ছে ছিল কোথাও বসে সবার সঙ্গে জমিয়ে আড্ডা দিই। কিন্তু হলো কই! কে যে কোথায় চুপচাপ চলে গেল!

সুযোগ হয়েছে দুই ব্লগারের সঙ্গে কথা বলার। দুজনই আমার সঙ্গে দেখা করতে এসেছিল। একজন শনিবারে, আরেকজন রবিবারে। একজন জোবায়েন সন্ধি, আরেকজন মনির হোসাইন। বাংলাদেশে ওরা আতঙ্কে ছিল। কখন ইসলামি সন্ত্রাসীরা ওদের কুপিয়ে মারবে, যেমন মেরেছিল অভিজিৎকে, অনন্তকে! দেশ দেশ করে আমি যেমন কাঁদতাম বার্লিন শহরে সেই কুড়ি বছর আগে, ওরা তেমন কাঁদছে না। ওদের বাস্তবতা ওদের বুঝিয়ে দিয়েছে, দেশের জন্য কষ্ট হলেও দেশের বাইরে থাকাটাই নিরাপদ।

বার্লিন ছাড়ার কিছুক্ষণ আগে একটি মেয়ে হোটেলের লবিতে এসে আমাকে বললো, তার নাম সুমনা সিনহা। বললো সেও বার্লিন লিটারেচার ফেস্টিভেলে আমন্ত্রিত। সুমনা কলকাতায় জন্মেছে, বাঙালি। ফ্রান্সে থাকে। ফরাসি ভাষায় বই লিখেছে। ফ্রান্সের রিফিউজিদের নিয়ে বই। বইটি বেশ পাঠকপ্রিয়তা পেয়েছে। বললো, কিশোরী বয়সে সে আমার নির্বাচিত কলাম, নষ্ট মেয়ের নষ্ট গদ্য এসব বই পড়েছে। পড়ে সচেতন হয়েছে। সেই সচেতন মানুষটিই নাকি আজকের সুমনা সিনহা। একজন লেখকের জন্য এর চেয়ে বড় পুরস্কার আর কী আছে?’

উৎসঃ   purboposhchim

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com