সোমবার , ২৪ আগস্ট ২০১৫ | ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি
  3. আইন আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আরো
  6. ইসলাম
  7. এক্সক্লুসিভ
  8. কক্সবাজার
  9. করোনাভাইরাস
  10. খেলাধুলা
  11. জাতীয়
  12. জেলা-উপজেলা
  13. পর্যটন
  14. প্রবাস
  15. বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি

প্রসংগ : টেকনাফের মোস্তাক অপহরন! কোথায় নিরাপদ আমরা? আমাদের নিরাপত্তা দেবে কে?

প্রতিবেদক
কক্সবাজার আলো
আগস্ট ২৪, ২০১৫ ৭:৩১ অপরাহ্ণ

ছৈয়দ আলম :
সদ্য ছেলে হারানো মা আমেনা বেগম এর আহাজারি আর তার আদরের বুকের ধন হাজি মোস্তাকের ছবি দেখে ও ঘটনাটি অবলোকন করে বুকের মধ্যে কেমন যেন একটা হাহাকার অনুভব করছি। হতে পারে আমার পরিবারের বা অন্য কোন মায়ের এই নির্মম কাহিনী ও কান্নার রোল। হতে পারে মোস্তাকের স্থানে নিজেকে কল্পনা করে আমার মধ্যে এই কষ্টকর অনুভূতির সৃষ্টি। কিন্তু অনুভূতি তো মিথ্যে নয়। আজ একজন উপজেলা চেয়ারম্যান এর ছেলেকে নিয়ে এভাবেই রং তামাশা করছে বা মোটাংকের মাধ্যমে অপহরন নাটক করছে। এটা কি শুভ লক্ষন না রাজনীতি? তেমনিভাবে আমিও তো এই রকম দিনদুপুরে জনসম্মুখে হারিয়ে যেতে পারি ? তখন তো তার মত সকল মায়ের কান্নায় আকাশ বাতাস ভারি হয়ে উঠবে। আর মোস্তাককে যখন বাহিনীরা তুলে নিয়ে যাচ্ছে ঠিক তখন যদি তার আদরের মা ছেলের সামনে দাড়িয়ে থাকত তখন কি নিয়ে যেতে পারত!!! আর কয়েকদিনের ব্যক্তিগত চিন্তা থেকে এতটুকু বলতে পারি, এ নির্মম ঘটনাটি তো আমার সাথেও হতে পারত। যে কারও সাথে যেকোনো সময়েও ঘটে যেতে পারতো। বুকের ভিতরে আগলে রাখা ছেলেকে অপহরণকারী বা আইনশৃংখলা বাহিনীর হাত থেকে বাঁচানোর জন্য বুকে গুলি খেয়ে মোস্তাকের মা তো তখন বক্ষব্যাধি হাসপাতালে নিজের শারীরিক এবং মানসিক মৃত্যুর মুখোমুখি হতে পারত। ২৪ আগস্ট সোমবার সকালে মোস্তাকের মা এমন অনুভুতি জানিয়েছেন তার বাড়িতে বসে বসে। এক পর্যায়ে তিনি সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে বুকে জড়িয়ে ধরে কেঁদে কেঁদে বললেন, বাবা আমার মোস্তাকের কোন খবর আছে কিনা?
পরক্ষনে তিনি কান্নায় জড়িত কন্ঠে আরো বলেন, যারা কালো গ্লাসধারী অস্ত্রধারী ওই বাহিনীরা মোস্তাককে নিয়ে গেছে কিভাবে রেখেছে কে তেমারা কি জান!! আদরের ধন, যে কিনা মায়ের হাত ছাড়া ভাত খায় না..মায়ের ওম ছাড়া যার ঘুম হয় না, দিনে কতবার যে ওকে মায়ের বুকে জড়িয়ে ধরে আদর করতে হয় তার হিসাব নেই..সেই মোস্তাক বাবা-মা-আর সদ্য ঘরে তোলা বউ ও ভাই-বোনদের ছেড়ে কেমন আছে? যে আদরের ধনকে বাসায় কেউ ফুলের টোকাই দেয়নি, ওকে কী অপহরনকারীরা বা আইনশৃংখলা বাহিনীর লোকজন মায়ের কাছে যেতে বায়না ধরার জন্য মারবে? যে দুরন্ত মোস্তাকের পিছনে খাওয়া নিয়ে ছুটতে ছুটতে মা সারাদিন ব্যস্ত থাকে, সেই মোস্তাককে কী ওরা কিছু খেতে দিচ্ছে? বাচ্চাটা কী সারাদিন ও রাতে সেই মধুমাখা আয়রন করা জামা পরেই থাকবে? আজকাল নাকি বিকৃত মানসিকতার পুরুষদের হাতে এভাবেই কোন মানুষ নিগৃহিত হয়। তাহলে মোস্তাককেও কী!!! কী করবে ওরা মোস্তাককে নিয়ে? বেচে দেবে কী আস্ত মোস্তাককে কিংবা আদালতে? কী করবে ওরা?
এত শত প্রশ্নের ভিড়ে একটাই প্রশ্ন দাঁপিয়ে মারছে, দেশে আমরা কোথায় নিরাপদ? রাস্তার কথা বাদ দিলাম, বেডরুমেও নিরাপদ নয়। বাড়ির ভিতর জবাই করে কতশত জনকেই তো সন্ত্রাসীরা মেরে ফেলে রাখছে। কোথাও কোনও বিচার নেই। কারণ, বেডরুমে মরে পড়ে থাকলে সরকার নিরাপত্তা দিতে পারবে না, সাফ জানিয়ে দিয়েছে। এভাবেই মোস্তাক তার স্বপ্নের বাড়ির সামনে বসে থাকা অবস্থায় মাযের বুক থেকে অপহরণ কিংবা কোন বাহিনীর হাতে জীম্মি থাকবে তা কখনো কল্পনা করতে পারছেনা তার মা। তাহলে কার কাছে নিরাপত্তা কী আমরা চাইতে পারি? চাইতে পারলে কার কাছে চাইবো বলুন তো? পাঠক, জবাবটা জানা থাকলে জানাবেন।
উল্লেখ্য-টেকনাফ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ন-সম্পাদক হাজি মোস্তাক আহমদকে আইনশৃংখলা বাহিনী পরিচয় দিয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার আজ ১৩ দিন অতিবাহিত হচ্ছে। কিন্তু এখনো তার কোন হদিস পাওয়া যাচ্ছেনা। বর্তমানে মোস্তাকের পরিবারে চরম হতাশা বিরাজ করছে। তার মা-বাবা-ভাই-বোন ও আদরের স্ত্রীকে কেউ স্বান্তনা দিতে পারছেনা। রাতদিন চলছে কান্না আর বিলাপ—কিন্তু এভাবেই আর কতদিন?
অপরদিকে, মোস্তাক নিখোঁজ হওয়ার পরপরই সর্বস্তরের নারী-পুরুষের বিভিন্ন ব্যানার ও পোষ্টার নিয়ে অক্ষত অবস্থায় ফিরিয়ে দেয়ার দাবীতে গত ১৬ আগষ্ট টেকনাফ ষ্টেশন চত্বরে মানববন্ধনও করেছে। সংবাদ সম্মেলন করেছে মোস্তাকের পরিবার।
একই দাবীতে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে স্মারক লিপি প্রদান করা হয়। পরিবার ও এলাকাবাসীর দাবী, মোস্তাক আহমদকে খুঁেজ বের করে আদালতে প্রেরন ও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
এব্যাপারে চরম হতাশা প্রকাশ করে সম্প্রতি গঠিত মোস্তাক আহমদ মুক্তি পরিষদের সাধারন সম্পাদক ছাত্রনেতা সরওয়ার আলম বলেন, টেকনাফের প্রিয় মোস্তাককে দেখছিনা আজ ১৩ দিন পার হচ্ছে কিন্তু কেন এই ঘটনা? যার কথা ও ছবি দেখে দেখে অশ্র“ নয়নে অনেক কষ্টে দিন পার করতে হচ্ছে। দেশের সকল মানুষ জানে, কোন আইনশৃংখলা বাহিনী যদি কাউকে আটক করলে তাকে ২৪ ঘন্টার মধ্যেই আদালতে সোপর্দ করতে হয় কিন্তু মোস্তাক আহমদকে যদি কোন বাহিনী নিয়ে যায় তাহলে কেন সোপর্দ করছে না। তিনি অভিলম্বে জনতার মোস্তাককে জনতার মাঝে ফিরিয়ে দেয়ার আকুতি জানান।

সর্বশেষ - অপরাধ

আপনার জন্য নির্বাচিত

হ্নীলায় খেলোয়াড়দের উপর হামলার প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ

ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হচ্ছেন জাহাঙ্গীর আলম শামস!

‘শপিংয়ের টাকায়’ ছিন্নমূল ৬০ পরিবারে তুলে দিল খাদ্য সামগ্রী

অবশেষে কামরুল আনতে সৌদি যাচ্ছে পুলিশ

কুচক্রী হ্যাকার কর্তৃক হ্যাক করা ফেইসবুক আইডি দিয়ে মানহানিকর সংবাদ পরিবেশন করায় ভাইস চেয়ারম্যান তাহেরা আক্তার মিলির বিবৃতি

সাংবাদিক তোফায়েলের মায়ের মৃত্যুতে কক্সবাজার জেলা উপকূলীয় সাংবাদিক ফোরামের শোক

ঈদে আসছে নতুন মুখ শাকিলের একক এ্যালবাম ‘ভালবাসার আঁচড়’

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে ৪ কোটি টাকা জরিমানা

তৃতীয়বারের মতো পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী পদে মমতার শপথ

মিয়ানমারে অভ্যুত্থানবিরোধীদের ওপর গুলি, নিহত বেড়ে ৯১