1. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
  2. shahjahanauh@gmail.com : কক্সবাজার আলো : কক্সবাজার আলো
  3. syedalamtek@gmail.com : syedalam :
  4. bblythe20172018@mail.ru : traceyhowes586 :

ব্যক্তিগত কারণে আত্মগোপনে ছিলেন ত্ব-হা: ডিবি

  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ১৮ জুন, ২০২১
  • ৫৪ দেখা হয়েছে
আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান।ছবি: সংগৃহীত

কক্সবাজার আলো ডেস্ক :
রংপুর থেকে ঢাকা ফেরার পথে নিখোঁজ ধর্মীয় বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান ব্যক্তিগত কারণে আত্মগোপনে ছিলেন বলে জানিয়েছে রংপুর ডিবি পুলিশ।

নিখোঁজের নয় দিনের মাথায় ত্ব-হার বাড়ি ফেরার পর শুক্রবার বিকাল পাঁচটায় রংপুর ডিবি পুলিশ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান রংপুর মহানগর পুলিশের এডিসি (মিডিয়া ও ডিবি) ফারুক আহমেদ।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ফারুক আহমেদ জানান, ‘এখন পর্যন্ত তার (ত্ব-হা) বক্তব্য অনুযায়ী তিনি ব্যক্তিগত কারণে আত্মগোপন করেছিলেন বলে জানা গেছে। তার ব্যক্তিগত বিষয়টি আমি বলতে চাই না।’

গত ৮ জুন রংপুর থেকে একটি ব্যক্তিগত গাড়িতে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেন আবু ত্ব-হা। তার সঙ্গে ছিলেন আব্দুল মুহিত, মোহাম্মদ ফিরোজ ও গাড়িচালক আমির উদ্দীন ফয়েজ। গাড়িটিসহ তাদের চারজনেরই কোনো খোঁজ মিলছিল না বলে ত্ব-হার পরিবার জানায়।

ছেলেকে ফিরে পেতে ১১ জুন বিকালে রংপুর কোতোয়ালি থানায় জিডি করেন ত্ব-হার মা আজেদা বেগম। সেখানে তিন সঙ্গীসহ ঢাকা যাওয়ার পথে ত্ব-হা নিখোঁজ হয়েছেন বলে জানান তিনি।

তার খোঁজে স্থানীয় থানা থেকে শুরু করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, পুলিশ সদর দপ্তর, র‌্যাব সদরসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে ঘুরছিলেন দ্বিতীয় স্ত্রী সাবিকুন্নাহার, যা নিয়ে সংবাদমাধ্যমে খবরও প্রকাশিত হয়।

তরুণ এই ইসলামি বক্তার নিখোঁজ হওয়ার পরপরই তোড়পাড় শুরু হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। ত্ব-হা’র নিখোঁজের বিষয়টি শোনার পর সরকারও গুরুত্বের সঙ্গে বিষয়টি দেখছে বলে গতকাল জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এর মধ্যে শুক্রবার রংপুরে শ্বশুর বাড়িতে ফেরেন আলোচিত এই ধর্মীয় বক্তা।

বাসায় ফেরার পর ত্ব-হাকে রংপুর কোতোয়ালি থানায় নেয়া হয়। এরপর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেয়া হয় জেলা ডিবি অফিসে। সেখানে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ জানতে পারে ব্যক্তিগত কারণে ত্ব-হার নিখোঁজ হওয়ার ব্যাপারে।

ত্ব-হার বিষয় জানাতে গিয়ে রংপুর মহানগর পুলিশের এডিসি (মিডিয়া ও ডিবি) ফারুক আহমেদ বলেন, নিখোঁজ হওয়ার পর তারা চারজন একসঙ্গে একই বাড়িতে ছিলেন। তাদের আপাতত পুলিশি হেফাজতে রাখা হবে। সেখানে যাচাই-বাছাই করা হবে। প্রয়োজন হলে আদালতের সঙ্গে যোগাযোগ করা হবে। মামলায় যাওয়ার মতো কোনো প্রমাণ এখন আমাদের কাছে আসেনি। স্বেচ্ছায় ও ব্যক্তিগত কারণে আত্মগোপনে যেতে তিনি (ত্ব-হা) তার দুইজন সফরসঙ্গীর কাছে সহযোগিতা চেয়েছিলেন।

তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হবে কি না? সাংবাদিকদের করা এমন প্রশ্নের জবাবে পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘একটা অপরাধের পেছনে দেখতে হয় তাদের খারাপ উদ্দেশ্য আছে কি না? এখন পর্যন্ত দেশকে বিব্রত বা এ সংশ্লিষ্ট কোনো বিষয় আমাদের কাছে আসেনি। এখন আমরা আপনাদের প্রাথমিক তথ্যগুলো জানাতে পারছি। কারণ মাত্র এক ঘণ্টা আগে তাকে আমরা পেয়েছি।’

এই বিভাগের আরও খবর
  • © ২০১৪ - ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | কক্সবাজার আলো .কম
Site Customized By NewsTech.Com