মঙ্গলবার , ২১ জুলাই ২০১৫ | ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি
  3. আইন আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আরো
  6. ইসলাম
  7. এক্সক্লুসিভ
  8. কক্সবাজার
  9. করোনাভাইরাস
  10. খেলাধুলা
  11. জাতীয়
  12. জেলা-উপজেলা
  13. পর্যটন
  14. প্রবাস
  15. বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি

পর্যটকদের পদচারণায় ব্যস্ত সিলেটের বিনোদন কেন্দ্র গুলো

প্রতিবেদক
কক্সবাজার আলো
জুলাই ২১, ২০১৫ ৫:৪৮ অপরাহ্ণ

এম.এ.সাবলু হৃদয়, সিলেট :
ঈদের ছুটিতে মুখরিত হয়ে উঠেছে সিলেটের পর্যটন স্পটসমূহ। ঈদের দিন বিকাল থেকে সিলেটের প্রতিটি পর্যটন স্পটে ভিড় লাগে পর্যটকদের। জাফলং, লালাখাল, রাতারগুল, বিছনাকান্দি, পান্তুমাই, মাধবকু- জলপ্রপাত, দরগাহে হযরত শাহজালাল (রঃ) মাজারের পাশাপাশি সিলেট নগরীর বিভিন্ন পার্কও হয়ে উঠে লোকারণ্য। ঈদ উপলক্ষে ভ্রমণ পিপাশুরা মেতে উঠেছে ভ্রমণ উৎসবে। কেউ পরিবার-পরিজনসহ কেউবা আবার বন্ধু-বান্ধবদের সাথে। এই ভ্রমণ উৎসবে বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে পর্যটকদের বাঁধ ভাঙ্গা উচ্ছাস লক্ষ করা গেছে।
ঈদের দিন থেকে সিলেটের প্রকৃতি কন্যা জাফলং,পিয়াইনের মায়াবী ঝর্ণা,পান্তুমাই র্ঝণা ধারা,সোয়াম্প ফরেস্ট রাতারগুল,বিছনাকান্দি ও মাধবকু- জলপ্রপাত পর্যটন কেন্দ্রে ঈদ পরবর্তী সময়ে সরেজমিন পরিদর্শন কালে দেখা গেছে দেশ বিদেশের বিভিন্ন স্থান থেকে, বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষ ও তরুণ-তরুণীদের বাঁধ ভাঙ্গা উচ্ছাস। গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির মাঝে মেঘাচ্ছন্ন আকাশ প্রতিকুল আবহাওয়ার মধ্যেও ঈদে পর্যটক আকর্ষণ বেড়েই চলছে। পর্যটকদের নিরাপত্তায় প্রস্তত রয়েছে পুলিশ ও বর্ডারগার্ড বাংলাদেশ। ভারতের মেঘালয় পাহাড় ঘেঁষা প্রকৃতির অপরূপ লীলা ভুমি প্রকৃতি কন্যা জাফলং, পান্তুমাই’র ঝর্ণা, বিছনাকান্দির স্বচ্ছ-সফেদ পানি আর সোয়াম ফরেস্ট খ্যাত রাতারগুল ও মাধবকু- জলপ্রপাত এক নজর দেখতে কার না মন চায়। প্রকৃতির টানে বাংলাদেশের অনেক জেলা থেকে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের পাশাপাশি উঠতি বয়সী যুবক-যুবতীরা ছুটে এসেছেন সিলেটে ঈদের ছুটি কাটাতে। তাদের বাঁধ ভাঙ্গা উচ্ছ্বাসে পর্যটন স্পটগুলোতে সৃষ্টি হয় অন্যরকম আবহের। প্রতিদিন প্রায় লাখো পর্যটকদের পদচারনায় পর্যটন এলাকা মুখরিত। মাধবকু- জলপ্রপাতের ধারা পতনের অবিরাম শব্দ সৃষ্টি করছে মায়াময় পরিবেশের। প্রকৃতি যেনো এখানে বর্ণনার উপাচার নিয়ে সামনে দাঁড়ায়। পর্যটকদের জন্য উৎকৃষ্ট পর্যটন কেন্দ্র মাধবকু- জলপ্রপাত। একসময় বাংলাদেশের পর্যটকদের কাছে প্রাকৃতিক জলপ্রপাত মানেই ছিলো মাধবকু-। এখন দেশের ভেতরে আরো অনেক জলপ্রপাতের সন্ধান মিলেছে। তবে এখনো জলপ্রপাত অনুরাগী পর্যটকদের প্রধান আকর্ষণ মাধবকু-ই। প্রতিদিন অসংখ্য পর্যটক ভিড় জমান এই ঝর্ণাধারার সৌন্দর্য উপভোগে। প্রায় ২০০ ফুট উচ্চতাবিশিষ্ট মাধবকু- জলপ্রপাতের অবস্থান মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলায়। মাধবকু- ইকোপার্ক, নয়নাভিরাম দৃশ্য, নান্দনিক পিকনিক স্পট, সুবিশাল পর্বত গিরি, শ্যামল সবুজ বনরাজি বেষ্টিত ইকোপার্ক, পাহাড়ী ঝরণার প্রবাহিত জলরাশির কল কল শব্দ, সবমিলিয়ে মাধবকু- বেড়াতে গিয়ে পাওয়া যায় এক স্বর্গীয় আমেজ। এই স্বর্গীয় আমেজের খোঁজেই ঈদের ছুটিতে দলে দলে পর্যটকরা ভিড় করেছেন মাধবকু- জলপ্রপাতে। বৃষ্টি উপেক্ষা করেই হাজারো প্রাণের মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে মাধবকু- জলপ্রপাত। বগুড়া থেকে আসা ষাটোর্ধ্ব মোহাম্মদ আলী খান জানান, জীবনের শেষ সময়ে পরিবার পরিজনদের নিয়ে জাফলং এসে খুব বেশী আনন্দ উপভোগ করছি। নওগাঁ থেকে আসা রুস্তম আলী জানান, মাধবকু- জলপ্রপাত দেখার জন্য পরিবার পরিজন নিয়ে বেড়াতে এসেছি খুব ভালো লাগছে।

সর্বশেষ - উপজেলা

আপনার জন্য নির্বাচিত

নতুন বছরে আসছে ফোরজি

প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে গতি কমছে ইন্টারনেটের

রামু কাউয়ারখোপ হাকিম রকিমা উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

সাংবাদিকদের উপর হামলার নিন্দা জানিয়েছেন টেকনাফ উপজেলা যুবদল

প্রতীথযশা সাংবাদিক মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম আর নেই

টেকনাফে মার্কিন হত্যা মামলার আসামির পরিত্যক্ত বাড়িতে আগুন দিয়ে বাদিপক্ষকে ফাঁসানোর চেষ্টা

শহরে করোনা সংক্রমণ রোধের অভিযানে ৮জনকে ১৭’শ টাকা অর্থদণ্ড

নাইক্ষংছড়ি উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

মা হলো ‘কিশোর’ নাজমুল!

গার্ডিয়ানকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ক্ষমতা কুক্ষিগত করার অভিযোগ নাকচ প্রধানমন্ত্রীর