ঢাকাসোমবার , ১৭ জুনe ২০২৪
  1. সর্বশেষ
  2. কক্সবাজার

মেধাকচ্ছপিয়া ন্যাশনাল পার্ক সাবাড়

প্রতিবেদক
কক্সবাজার আলো
১৯ আগস্ট ২০১৫, ৬:২৫ অপরাহ্ণ

Link Copied!

এম.আবু হেনা সাগর, ঈদগাঁও :
খুটাখালীর মেধাকচ্ছপিয়া মাদার ট্রি শতবর্ষী গর্জন বাগান এবং ন্যাশনাল পার্ক (জাতীয় উদ্যান) পরিকল্পনা বাস্তবায়নের পূর্বেই সাবাড় হচ্ছে। এ গর্জন বাগানকে ‘‘ন্যাশনাল পার্ক’’ ঘোষণার কয়েক বছর অতিবাহিত হলেও একের পর এক বেপরোয়া নিধন যজ্ঞে মাদার ট্রি (শতবর্শী) গর্জন বাগান সাবাড় হয়ে যাচ্ছে। পার্ক ঘোষণা ও সাইনবোর্ড লাগানোর পর এ পর্যন্ত কোটি টাকার ও বেশি মূল্যের মাদার ট্রি নিধন করা হয়েছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ তুলেছেন। প্রায় পাঁচশত কোটি টাকা মূল্যের অধিক মাদার ট্রি রক্ষার জন্য আর্ন্তজাতিক এনজিও সংস্থা অরন্য ফাউন্ডেশন এবং ককসবাজার উত্তর বন বিভাগ আপ্রাণ চেষ্টা করলেও মাদারট্রি সাবাড় হচ্ছে। প্রাপ্ত সূত্র মতে, ককসবাজার চট্টগ্রাম মহাসড়ক সংলগ্ন প্রায় ১ হাজার একর বন বিভাগের জমিতে ন্যাশনাল পার্ক বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয় সরকার। গত ২০০৪ সালের এপ্রিল মাসে এই বন ভূমিকে ন্যাশনাল পার্ক হিসাবে ঘোষণা করেন। তবে প্রায়শঃ ভোর ও সন্ধ্যায় বার্মাইয়াদের দিয়ে গাছের গোড়া চেছে ফেলে এবং তাতে ঢেলে দেয় তুঁত। চেছে ও তুঁত দেওয়ার ফলে গাছে ডাল পালা পাতা শুকিয়ে যেতে শুরু করলে কাঠ চোরেরা গাছে উঠে ডালপালা কেটে ফেলে। পরে গাছের মৃত্যু নিশ্চিত হলে গোড়া থেকে করাত দিয়ে কেটে নেয়। এদিকে স্থানীয়দের অভিযোগ কর্তৃপক্ষের সদিচ্ছা না থাকায় দিন দিন ন্যাশনাল পার্কের বৃক্ষরাজী সাবাড় হচ্ছে। অপরদিকে বসতীদের মতে ১৯৯১ সালের পর এখানকার পাহাড় দখল করে অবৈধ বসতি স্থাপন করে উপকূল ও দ্বীপাঞ্চলের ঘূর্ণিবিধ্বস্ত লোকজন। সংশ্লিষ্ট মহল আন্তরিক হলে এ বাগান রক্ষা করা এবং ন্যানশাল পার্ক বাস্তবায়ন সফল ও সার্থক হবে বলে তারা মনে করেন। মেধাকচ্ছপিয়া ন্যাশনাল পার্ক সহ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মাষ্টার আবুল হোসেনের মতে, প্রতিমাসে আমরা ন্যাশনাল পার্ক রক্ষার সমন্বয় সভা করি। মূলত স্থানীয় কাঠ চোরদের ঠেকাতে আমাদের প্রচুর কষ্ট ও ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে । অন্যদিকে দক্ষ জনবলের অভাবে তা সঠিক ভাবে পালন করা সম্ভব হচ্ছেনা বলে তিনি দাবী করেন। কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা ড. শাহ ই আলম ন্যাশনাল পার্ক রক্ষায় সরকার ব্যাপক পরিসরে উদ্যোগ নিয়েছে বলে জানান।

আরও পড়ুন

কক্সবাজারে একসাথে তিন সন্তানের জন্ম, পরিবারে খুশির জোয়ার

মিয়ানমারে ফেরত গেল ১৩৪ বিজিপি-সেনা, ফিরে আসলো ৪৫ বাংলাদেশী

কক্সবাজারের ঈদগাঁওতে বজ্রপাতে কৃষকের মৃত্যু

চাঁদ দেখা গেছে, ঈদুল আজহা ১৭ জুন

দুযোর্গ মোকাবেলায় টেকসই উন্নয়নে বদলে যাচ্ছে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর জীবনযাত্রা

কক্সবাজারস্থ টেকনাফ ফোরামের আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল

কক্সবাজারে টিসিবির পণ্য অবৈধভাবে মজুদ করে বিক্রি, এক লক্ষ টাকা জরিমানা

টেকনাফে পাহাড়ে বন্যহাতির মৃত্যু 

ট্রেড ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দদের সম্মানে শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনে’র ইফতার মাহফিল

টেকনাফে ইয়াবার লেনদেন নিয়ে বন্ধুর গুলিতে বন্ধু খুন

কক্সবাজারে নির্যাতিত ও কারাবরণকারি ৫ শতাধিক নেতা কর্মীকে সংবর্ধিত ও ইফতার

ঈদগাঁওতে কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় সিএনজি চালকের মৃত্যু